বিজ্ঞাপন

পহেলা ডিসেম্বরকে ‘মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ ঘোষণার দাবি

December 1, 2022 | 10:35 pm

সারাবাংলা ডেস্ক

চট্টগ্রাম ব্যুরো : মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের মাসের প্রথমদিনকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ‘মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ হিসেবে পালনের দাবি এসেছে সেক্টর কমান্ডারস ফোরামসহ বিভিন্ন সংগঠনের সভা থেকে। এই দাবিতে সমর্থন দিয়েছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ড. অনুপম সেন।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (০১ ডিসেম্বর) বিকেলে সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম জেলা ও মহানগর শাখার উদ‍্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অনুপম সেন বলেন, ‘সেক্টর কমান্ডারস ফোরামসহ বিভিন্ন সংগঠন বেশ কয়েকবছর ধরে পহেলা ডিসেম্বরকে বেসরকারিভাবে মুক্তিযোদ্ধা দিবস পালন হিসেবে পালন করছে। রাষ্ট্রীয়ভাবে জাতীয় দিবস হিসেবে পালনের দাবি করে আসছে তারা। ২০২১ সালের নভেম্বরে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভায় দিনটিকে রাষ্ট্রীয়ভাবে মুক্তিযোদ্ধা দিবস হিসেবে ঘোষণার জন‍্য জোর সুপারিশ করা হয়। কিন্তু সেই সুপারিশ বাস্তবায়নে সরকার কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।’

বিজ্ঞাপন

‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মত‍্যাগের মধ্য দিয়ে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। জাতির সেই শ্রেষ্ঠ সন্তানদের সম্মান ও স্মৃতি রক্ষায় একটি দিবস পালনের যৌক্তিকতা রয়েছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দানকারী সংগঠন। আশা করব, আওয়ামী লীগ সরকার এ বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেবে।’

নগরীর মোমিন রোডে চট্টগ্রাম একাডেমি হলে সংগঠনের জেলা সভাপতি নুরে আলম মন্টুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দিকীর সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- নগর কমিটির সভাপতি সরফরাজ খান চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সহ সংগঠনিক সম্পাদক বেদারুল আলম চৌধুরী বেদার, সহ সভাপতি ফজল আহমদ, জাহিদ হোসেন শরীফ, ফোরকান উদ্দিন আহমেদ, যুগ্ম সম্পাদক সেলিম চৌধুরী, ইফতেখার রাসেল, আবদুল মালেক খান, সাইফুন্নাহার খুশী, রঞ্জন প্রসাদ দাশগুপ্ত, সেলিম রহমান, জসীম উদ্দিন, পলাশ বড়ুয়া, নুরুল হুদা চৌধুরী, নাজিম উদ্দিন, পংকজ রায়, ফজলুল হক সিদ্দিকী, সৈকত দাশগুপ্ত, নবী হোসেন সালাউদ্দিন।

বিজ্ঞাপন

সভায় ২৫ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালের সৌজন্যে আজীবন ‘ফ্যামিলি হেলথ কার্ড’ দেয়া হয়। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে গৌরী শংকর চৌধুরী, বাদশা মিয়া, রফিকুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম খান, এস এম নুরুল আমিন বক্তব্য রাখেন।

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা ইউনিট কমান্ডের এক মতবিনিময় সভায়ও একই দাবি এসেছে। বৃহস্পতিবার নগরীর দারুল ফজল মার্কেটে মুক্তিযোদ্ধা ভবনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন মহানগর ইউনিট কমান্ডার মোজাফফর আহমদ। মহানগরের ডেপুটি কমান্ডার শহীদুল হক চৌধুরী সৈয়দের পরিচালনায় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- জেলা ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার এ কে এম সরোয়ার কামাল দুলু, সহকারী কমান্ডার এ কেএম আলাউদ্দিন, আবদুর রাজ্জাক, সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আলম।

বিজ্ঞাপন

পহেলা ডিসেম্বরকে মুক্তিযোদ্ধা দিবস ঘোষণার দাবি দেড় দশক ধরে উপেক্ষিত থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধারা। একইসঙ্গে বিজয়ের মাসে রাজাকারদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ করতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানানো হয় সভায়।

এদিকে শহীদ মিনারে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগর শাখা বিজয়ের মাসের কর্মসূচি শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নগরীর মিউনিসিপ্যাল মডেল হাইস্কুল প্রাঙ্গনে অস্থায়ীভাবে নির্মিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ কর্মসূচি পালন করে সংগঠনটি।

বিজ্ঞাপন

সংগঠনের নগর শাখার আহবায়ক সাহেদ মুরাদ সাকুর সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব কাজী রাজিশ ইমরানের সঞ্চালনায় সভায় বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদ, সংগঠনের সহ সভাপতি সরোয়ার আলম চৌধুরী মনি, নগর শাখার যুগ্ম আহবায়ক মিজানুর রহমান সজীব ও সাজ্জাদ হোসেন, সদস্য আশরাফুল হক চৌধুরী, রিপন চৌধুরী, সৈয়দ মাঈনুল আলম সৌরভ বক্তব্য রাখেন।

সারাবাংলা/আরডি/ এনইউ

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন