বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রের কালো তালিকায় রাশিয়ার ওয়াগনার গ্রুপ, নেই ভারত

December 5, 2022 | 12:55 am

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ঢাকা: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতার কালো তালিকায় যুক্ত হলো রাশিয়ার ভাড়াটে গ্রুপ ওয়াগনার। মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে ধর্মকে ব্যবহার করে সহিংসতার অভিযোগে তাদের নাম যুক্ত করা হয়েছে এ তালিকায়। কিন্তু আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা সম্পর্কিত স্বায়ত্তশাসিত 'ইউএস কমিশনের' সুপারিশ সত্ত্বেও ভারতকে যুক্ত করা হয়নি এই তালিকায়। নতুন করে যুক্ত এই দেশ ও সংগঠনগুলোর উপর আসতে পারে নিষেধাজ্ঞা।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেক্রেটারি অফ স্টেট অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন এই তালিকা সম্পর্কে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে নানা ধরনের অসদাচরণে জড়িত থাকার কারণে ওয়াগনার গ্রুপকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। এসব অঞ্চলে ধর্মীয় প্রভাবে প্রায় এক দশক ধরে রক্তপাত ঘটছে।

ব্লিঙ্কেন আরও বলেন, ধর্মীয় স্বাধীনতার লঙ্ঘন বিভাজনের বীজ বোনে, অর্থনৈতিক নিরাপত্তাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে এবং রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও শান্তিকে হুমকির মুখে ফেলে। যুক্তরাষ্ট্র এসব অপব্যবহারকে সহ্য করবে না।

বিজ্ঞাপন

এদিকে স্বায়ত্তশাসিত 'ইউএস কমিশন' ভারত সম্পর্কে তাদের সুপারিশে বলেছিল, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হিন্দু জাতীয়তাবাদী সরকারের অধীনে সংখ্যালঘুদের সঙ্গে আচরণ "উল্লেখযোগ্যভাবে" খারাপ হচ্ছে। এই প্রতিবেদনে মুসলিম ও খ্রিস্টানদের বিরুদ্ধে ভারতীয় কর্মকর্তাদের উস্কানিমূলক মন্তব্য ও বৈষম্যের বিবরণ উঠে এসেছে। স্টেট ডিপার্টমেন্টের এই বার্ষিক প্রতিবেদন নিয়ে ভারত প্রতিবাদ ও ক্ষোভ জানিয়ে আসছে।

মনে করা হচ্ছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একটি প্রধান উদীয়মান মিত্র হিসেবে দেখার কারণেই ব্লিঙ্কেন ভারতের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নেননি।
ভারতের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ বা সতর্কবার্তা না থাকলেও সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে ভিয়েতনামকে। আর ২০২১ সাল থেকে ব্লিঙ্কেনের বিশেষভাবে উদ্বেগজনক দেশের তালিকায় রয়েছে চিন, ইরিত্রিয়া, ইরান, মায়ানমার, উত্তর কোরিয়া, পাকিস্তান, রাশিয়া, সৌদি আরব, তাজিকিস্তান এবং তুর্কমেনিস্তান।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবেদনে আলাদাভাবে সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকের রাশিয়ার ওয়াগনার গ্রুপের অপব্যবহারের দিকে ইঙ্গিত করা হয়েছে। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তাদের ভাড়াটে হিসেবে ব্যবহার করে মুসলিমদের উপর হত্যা ও যৌন সহিংসতা ঘটিয়েছে বলে ইঙ্গিত করা হয়েছে এই রিপোর্টে। এছাড়াও ওয়াগনারকে সন্ত্রাসী দল আখ্যা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বলছে দলটি মালি, লিবিয়া, সিরিয়া ও ইউক্রেনের মানবাধিকার লঙ্ঘনের সঙ্গে জড়িত ছিল।

'বিশেষ উদ্বেগের দেশ' তালিকায় নতুনভাবে যুক্ত কিউবা এবং নিকারাগুয়া বামপন্থী লাতিন আমেরিকান দেশ। ইতোমধ্যেই তাদের উপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা জারি আছে। কালো তালিকায় নাম আসায় নতুন করে আরও ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে দেশ দুটির বিরুদ্ধে।

বিজ্ঞাপন

নিকারাগুয়ার ক্রমবর্ধমান কর্তৃত্ববাদী রাষ্ট্রপতি ড্যানিয়েল ওর্তেগা ২০১৮ সালের সরকার বিরোধী বিক্ষোভকে সমর্থন করার অভিযোগে ক্যাথলিক চার্চের উপর চাপ সৃষ্টি করে আসছে। আগস্টে সরকারের সমালোচক একজন বিশপ রোলান্ডো আলভারেজকে অনির্দিষ্ট অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয় ও অন্যান্য পুরোহিত এবং সেমিনারিয়ানদের সঙ্গে গৃহবন্দী করে রাখা হয়। পোপ ফ্রান্সিস সেপ্টেম্বরে সংলাপের আহ্বান জানানোর পর, ওর্তেগা গির্জাকে একটি 'স্বৈরাচার' সংস্থা হিসেবে চিহ্নিত করেন।

জুন মাসে জারি করা ধর্মীয় স্বাধীনতার উপর তার সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদনে স্টেট ডিপার্টমেন্ট বলেছে যে, কিউবায় খ্রিস্টানদের ক্রমবর্ধমান হয়রানি, সহিংসতা এবং জনবিক্ষোভের অভিযোগে ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরএফ

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন