বিজ্ঞাপন

নেতার অভাবে সাড়ে ৩ বছর ধরে বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি যশোরে

December 5, 2022 | 1:44 pm

তহীদ মনি, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

যশোর: যোগ্য ও বিশ্বস্ত নেতার অভাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) কমিটি হচ্ছে না যশোরে। সর্বশেষ ২০১৯ সালের এপ্রিলে ৯০ দিনের জন্য আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এরপর গত সাড়ে ৩ বছর ধরে সেই কমিটি দিয়ে চলছে যশোর বিএনপি। খুব শিগগিরই নতুন কমিটি হবে বলে দাবি স্থানীয় বিএনপি নেতাদের।

বিজ্ঞাপন

সাবেক মন্ত্রী ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামের মৃত্যুতে যশোর বিএনপির যে নেতৃত্বের শূন্যতা তৈরি হয়েছে তা থেকে বের হতে পারেনি দলটি। এ কারণে সঠিক অভিভাকত্বের মাধ্যমে জেলা বিএনপিকে নেতৃত্ব দিতে পারবে এমন নির্ভরযোগ্য নেতার অভাবও প্রকট বলে জানা গেছে।

জেলা বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের কয়েকজন নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দলটিতে জেলায় ৫৩ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি রয়েছে। এর আহ্বায়ক সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলামের স্ত্রী অধ্যাপক নার্গিস বেগম। সদস্য সচিব হিসেবে রয়েছেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাবেরুল হক সাবু।

বিজ্ঞাপন

দলীয় সূত্র মতে, ২০১৯ সালে ৩ মাস অর্থাৎ ৯০ দিনের জন্যে এই আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছিল। এর আগে, ২০০৯ সালের দিকে ১৫১ সদস্য বিশিষ্ট দলের যশোর জেলা কমিটি গঠিত হয়েছিল। ওই সময় সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন প্রয়াত চৌধুরী শহিদুল ইসলাম নয়ন। তার মৃত্যুর পর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পান সেই কমিটির সহ-সভাপতি মো. শামসুল আলম। তার মৃত্যুর পর এক পর্যায়ে ২০১৯ সালে ২০ এপ্রিল আহ্বায়ক কমিটি গঠিত হয়। মাত্র ৩ মাসের জন্যে গঠিত ৫৩ সদস্যের এই কমিটির হাল ধরেন নার্গিস বেগম। এরপর কয়েক দফা সময় বৃদ্ধি করলেও আজ পর্যন্ত জেলা কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠিত হয়নি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক নেতা জানান, সভাপতি পদের জন্যে নার্গিস বেগমের বিকল্প কোনো নাম তাদের নেই। কারণ, যে আস্থা ও নির্ভরতা একটি দলের শীর্ষ নেতৃত্বের থাকতে হয় যশোর বিএনপিতে তেমন কোনো নেতৃত্ব নেই বা তৈরি হয়নি। দলের সভাপতিকে পুরো দলটির ভার বইতে হয়, গণমুখী হতে হয় এবং বিভিন্নভাবে পদ প্রত্যাশী ও সুযোগ সন্ধানীরা নানা ষড়যন্ত্র করবে, সেটিকে শক্ত হাতে সামাল দিয়ে সকলকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে হয়। এমন যোগ্যতা সম্পন্ন নেতা পাওয়া যাচ্ছে না বলে সমস্যাটি প্রকট হয়েছে। নার্গিস বেগমকে বাদ রেখে জেলা পর্যায়ে যে ৪/৫ জন নেতা রয়েছেন তারাও দুই ভাগে বিভক্ত।

বিজ্ঞাপন

আপাতত তরিকুল ইসলামের ছেলে এবং দলের খুলনা বিভাগীয ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত যশোরকে ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা করলেও কাউন্সিল গঠন ও কমিটি গঠনের সময় দলে ভাঙান খুবই স্পষ্ট হবে। সেক্ষেত্রে বর্তমান সরকার বিরোধী আন্দোলনে দলের মূল নেতৃত্বকে একসঙ্গে দেখা যাচ্ছে, সে অবস্থা নাও থাকতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে বলে জানান নেতারা।

এদিকে দীর্ঘ সময় সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলাম পরে নার্গিস বেগম এবং কেন্দ্রীয়ভাবে অনিন্দ্য ইসলাম অমিতের হাতে দলের নেতৃত্ব থাকায় নতুন নেতৃতের বিকাশ যেমন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে, তেমনি নেতৃত্ব পেতে ওই একটি পরিবারের ইচ্ছাকে প্রাধান্য দিতে হচ্ছে বলে অনেক নেতাই স্বীকার করেন।

বিজ্ঞাপন

দলের দায়িত্বশীল একাধিক নেতা জানিয়েছেন, জেলায় দলে ১৬টি ইউনিট রয়েছে। এসব ইউনিটের ওয়ার্ড পর্যায়ের কমিটি গঠন করা উল্লেখযোগ্য কাজ। সে হিসেবে ইউনিয়ন পর্যায়ে ৯৯৬টি ওয়ার্ড কমটি, পৌরসভার ৭২টি ওয়ার্ড কমিটিসহ আনুসাঙ্গিক যে প্রস্তুতি থাকা দরকার তার সব এখনো সম্পন্ন হয়নি। নেতাদের ভাষায় ইউনিয়ন পর্যায়ে ৮৬২টি কমিটি হয়েছে, পৌরসভা পর্যায়ে ঝিকরগাছা ও চৌগাছায় কিছু জায়গায় কাউন্সিল সম্পন্ন হয়নি।

এ বিষয়ে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু বলেন, ‘ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের নির্দেশ রয়েছে ২০২৩ সালের জানুয়ারির মধ্যে জেলা কাউন্সিল সম্পন্ন করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

আহ্বায়ক কমিটি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘করোনার কারণে একাধিকবার মোট দেড় বছর সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে। তবে সব কাউন্সিল শেষ না হলে জেলা কমিটি গঠিত হবে কীভাবে?’

সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু আরও বলেন, ‘তৃণমূল পর্যায়ে অনেকেই দলে যোগ দিচ্ছেন, তাদের জায়গা দিতে গিয়ে কোথাও কোথাও কাউন্সিল দেরি হচ্ছে। আবার কোথাও কোথাও সরকারি দলের স্থানীয় পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ চাপে কাউন্সিল করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি।’

দলে অভ্যন্তরীণ বিরোধ নিয়ে তিনি বলেন, ‘কমিটিতে নেতৃত্বের প্রত্যাশী আছেন অনেকেই, কিন্তু পদ-পদবি নিয়ে কোনো বিরোধ নেই।’

বর্তমান সরকার বিরোধী আন্দেলনসহ গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামের প্রয়োজনে যেমন বা যে নামে কমিটি থাকুক সবাই একসঙ্গে কাজ করবেন বলেও বিশ্বাস করেন সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু। এছাড়াও তরিকুল পরিবারের একক নেতৃত্বে দল বিকাশের সমস্যাকে অস্বীকার করেন তিনি।

সারাবাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন