বিজ্ঞাপন

বিলবাওকে হারিয়ে বার্সার সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধান কমাল রিয়াল

January 23, 2023 | 4:13 am

স্পোর্টস ডেস্ক

লা লিগায় সময়টা খুব একটা ভালো কাটছিল না রিয়াল মাদ্রিদের। নতুন বছরের প্রথম ম্যাচেই হারের মুখ দেখে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। এরপর বার্সেলোনার কাছে সুপার কাপের ফাইনালেও হার। যদিও এরপর কোপা দেল রে'তে ভিরিয়ালের বিপক্ষে দুই গোলে পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত জয় পায়। তবে লা লিগায় এরপর আবারও বড় পরীক্ষা ছিল। অ্যাথলেটিক ক্লাব বিলবাওয়ের মাঠ থেকে ২-০ গোলের জয় দিয়ে লা লিগায় জয়ে ফিরল রিয়াল। আর সেই সঙ্গে লিগ লিডার বার্সার সঙ্গে কমাল পয়েন্ট ব্যবধানও।

বিজ্ঞাপন

এস্তাদিও সানমেমেসে বিলবাওকে ২-০ গোলে হারানো ম্যাচের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত স্বস্তি পায়নি রিয়াল। ম্যাচের ২৪ মিনিটে বেনজেমার দুর্দান্ত গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। আর ৯১তম মিনিটে এসে টনি ক্রুসের নিখুঁত এক ফিনিশিংয়ে ২-০ ব্যবধানের জয় নিশ্চিত করে লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। এছাড়া ম্যাচের প্রতিটি মুহূর্তেই অল হোয়াইটসদের বুকে কাঁপন ধরিয়েছে বিলবাও। তবে থিবো কোর্তোয়ার দারুণ গোলকিপিংয়ে রিয়ালের জালে বল জড়াতে পারেনি বিলবাও।

এই জয়ে লা লিগার পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থান ধরে রাখল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ। জয় হাতছাড়া হলে রিয়াল সোসিয়েদাদের সঙ্গে যৌথভাবে দুই নম্বরে থাকতে হতো তাদের। রিয়ালের চেয়ে ৩ পয়েন্ট এগিয়ে শীর্ষে বার্সেলোনা। রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৪১।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের শুরু থেকে রিয়ালকে চেপে ধরে বিলবাও। তবে সেই চাপ শুষে নেয় রিয়ালের রক্ষণ আর মধ্যমাঠ। এদিন অভিজ্ঞ টনি ক্রুস ও লুকা মদ্রিচকে বেঞ্চে রেখে তরুণ এডুয়ার্ড কামাভিঙ্গা আর দানি সেবায়োসকে শুরুর একাদশে খেলান কার্লো আনচেলোত্তি। আর এই দুই তরুণের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সই রিয়ালকে ম্যাচে নিয়ন্ত্রণ এনে দেয়।

সাত মিনিটের মাথায় ভিনিসিয়াস ও বেনজেমার দারুণ যুগলবন্দিতে আক্রমণে ওঠে রিয়াল। তবে শেষ পর্যন্ত বেনজেমার শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে বেরিয়ে যায়। এর তিন মিনিট পর বিলবাওয়ের দারুণ এক আক্রমণ ঠেকিয়ে দলকে ম্যাচে ধরে রাখেন থিবো কোর্তোয়া। পরের ১০ মিনিট গোটা মাঠ জুড়ে কেবল বিলবাওয়ের দাপট। তবে কিছুতেই ভাঙতে পারেনি রিয়ালের রক্ষণ।

বিজ্ঞাপন

তবে ম্যাচের ২৪তম মিনিটে এসে ডান দিক থেকে দারুণ আক্রমণ করে রিয়াল। বল নিয়ে ডি বক্সে ঢুকে গোলমুখে ক্রস করে ফেদে ভালভার্দে। সেই ক্রস থেকে আসা বল লাফিয়ে উঠে হেড দেওয়ার চেষ্টা করেন অ্যাসেন্সিও। তবে বলে ঠিকমতো মাথা ছোঁয়াতে না পারলেও বল ঠেলে দেন পেছনের দিকে আর পেছনের দিকে সরে গিয়ে দারুণ এক ভলিতে বল জালে জড়িয়ে রিয়ালকে লিড এনে দেন করিম বেনজেমা। আর এই এক গোলের লিড নিয়েই বিরতিতে যায় রিয়াল।

বিরতি থেকে ফিরে রিয়ালের ওপর চড়াও হয় বিলবাও। একের পর এক আক্রমণে রিয়ালের রক্ষণের ভালোই পরীক্ষা নিচ্ছিল বিলবাওয়ের আক্রমণ ভাগ। ৭৮তম মিনিটে এসে গোলের দেখাও পেয়েও যায় তারা, তবে অফসাইডের কারণে সে যাত্রায় রক্ষা পায় রিয়াল। মিনিট দুই পরে নিকো উইলিয়ামস দারুণ এক শট নেন কিন্তু তার শট সামান্যের জন্য লক্ষ্যভেদ হয়নি।

বিজ্ঞাপন

এরপর লুকা মদ্রিচ ও টনি ক্রুসকে মাঠে নামান রিয়াল বস। আর এই দুই অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার এসেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা করে। ম্যাচের নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষ যোগ করা অতিরিক্ত সময়ে প্রতি আক্রমণে ওঠে রিয়াল। ডান দিক থেকে আক্রমণে ওঠেন রদ্রিগো। ডি বক্সে ঢুকে শট নেওয়ার জায়গা খুঁজে না পেয়ে ডি বক্সের বাইরে দৌড়ে আসা টনি ক্রুসের দিকে বল বাড়িয়ে দেন। আর দৌড়ে এসে মাপা শটে লক্ষ্যভেদ ক্রুসের। আর তাতেই ২-০ গোলের জয় নিশ্চিত রিয়ালের।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন