বিজ্ঞাপন

ঢাবিতে ৭৩টি মণ্ডপে হবে সরস্বতী পূজা, চলছে প্রস্তুতি

January 24, 2023 | 4:30 pm

রাহাতুল ইসলাম রাফি, ঢাবি করেসপন্ডেন্ট

ঢাবি: পঞ্চানন পাল। গত ৩০ বছর যাবৎ সরস্বতী পূজার আগেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে হাজির হন গোপালগঞ্জ জেলার বাজুনিয়া গ্রামের এই মৃৎশিল্পী। এবারও ব্যতিক্রম কিছু হয়নি। এবার গোটা পঞ্চাশেক সরস্বতীর প্রতিমা বানানোর দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে গিয়ে দেখা যায়, মাঠসহ বিভিন্ন অংশে চলছে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ। কোথাও চলছে প্যান্ডেলের কাজ, কোথাও বা চলছে প্রতিমা বানানোর কাজ। বাঁশ, বেত, রঙ, হাতুড়ি-পেরেকের ঠুকঠাক শব্দে মেতে আছে পুরো হল। আগামী পরশুদিন বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) অনুষ্ঠেয় বিদ্যাদেবী সরস্বতীর অর্চনার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হওয়ার আগেই শেষ করতে হবে সমস্ত কর্মযজ্ঞ।

প্রতিষ্ঠার পর থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে সরস্বতীপূজা উদযাপন হয়ে আসছে। প্রথমদিকে কেবল জগন্নাথ হলের শিক্ষার্থীরাই পূজা উদযাপন করতো। পরে জগন্নাথ হল মাঠে বিভিন্ন থিমে প্রতিমা বানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য বিভাগগুলোও অংশগ্রহণ করে এখন।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, করোনা মহামারির কারণে গত দুই বছর স্বল্পপরিসরে পূজা উদযাপন হলেও এবার সর্বমোট ৭৩টি মণ্ডপে উদযাপন হবে বিদ্যাদেবী সরস্বতীর পূজা। জগন্নাথ হলের উপাসনালয়ে হবে পূজার প্রধান আয়োজন। এছাড়া, হল মাঠজুড়ে ৭১টি বিভাগের আয়োজনে থাকবে ৭১টি মণ্ডপ। চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীদের তৈরি বড় একটি প্রতিমা থাকবে হলের পুকুরে।

ঢাবিতে ৭৩টি মণ্ডপে হবে সরস্বতী পূজা, চলছে প্রস্তুতি

বিজ্ঞাপন

জগন্নাথ হলের অক্টোবর স্মৃতি ভবনের পাশে বেশ অনেকগুলো প্রতিমার দেখা মেলে। প্রায় সবগুলোরই মৌলিক গঠন শেষ। মৃৎশিল্পীরা প্রতিমাগুলোর দেহে রঙতুলির শেষ আঁচড় দিতে ব্যস্ত।

পাশেই দীর্ঘ ত্রিশবছর যাবৎ প্রতিমা তৈরির কাজে যুক্ত মৃৎশিল্পী পঞ্চানন পাল সারাবাংলাকে বলেন, ‘পঞ্চাশটির মতো প্রতিমা তৈরির কাজ পেয়েছি। প্রায় সবগুলোর কাজই শেষের দিকে।’

বিজ্ঞাপন

হিন্দুধর্ম মতে, মাঘ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে সাদা রাজহাঁসে চেপে দেবী সরস্বতী জগতে আসেন। পদ্মাসনে বসা দেবীর হাতে থাকে বীণা। তাই, প্রতীমা নির্মাণের ক্ষেত্রে এগুলোই থাকে মৌলিক চাহিদা। তবে সময়ের সঙ্গে ভিন্নতার স্বাদ চাইছেন বলে জানিয়েছেন পঞ্চানন পাল। সারাবাংলাকে তিনি বলেন, ‘রাজহাঁস, বীণা, পদ্মাসন—এগুলো মৌলিক জিনিস। এর বাইরে ডিজাইন, রঙসহ বিভিন্নক্ষেত্রে ভিন্নতা চায় মানুষ।’

এদিকে, জগন্নাথ হলের উপাসনালয় প্রাঙ্গণে চলছে সবচেয়ে বড় প্রতিমা বানানোর কাজ। চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীদের বানানো এই প্রতিমা বসানো হবে হলের পুকুরে। বাঁশ-বেতের বিভিন্ন অংশ জুড়ে দিয়ে প্রতিমার অবয়ব স্পষ্ট হয়েছে। চলছে পূর্ণপ্রস্তুতির তোড়জোর। এছাড়া, হলের মাঠে ৭১টি বিভাগের আয়োজনে বসবে ৭১টি মণ্ডপ। প্যান্ডেল, মণ্ডপ-কাঠামো তৈরির কর্মযজ্ঞ চলছে সেখানে।

বিজ্ঞাপন

ঢাবিতে ৭৩টি মণ্ডপে হবে সরস্বতী পূজা, চলছে প্রস্তুতি

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের মণ্ডপ তৈরির কাজে ব্যস্ত চারুকলার এক শিক্ষার্থী সারাবাংলাকে বলেন, ‘প্রতিমার কাজ তো বাইরে। আমরা কেবল স্ট্রাকচার বানাচ্ছি। কাল সকাল নাগাদ কাজ শেষ হবে আশা করি। আমার নিজেরই এই কাজ করতে ভালো লাগে। প্রতিবছর অপেক্ষায় থাকি কবে সরস্বতী পূজা আসবে।’

জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ ও পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. মিহির লাল সাহা সারাবাংলাকে বলেন, ‘আবারও আমরা বড় পরিসরে বিদ্যাদেবীর উপাসনা করতে পারছি, এটি আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের। ৭৩টি মণ্ডপে পূজা পালন করা হবে। পূজার দিন সকলের জন্য প্রবেশপথ উন্মুক্ত রাখা হবে। ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে সকলে পূজার প্রস্তুতিতে কাজ করছে। নিরাপত্তার বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রক্টরিয়াল টিম কাজ করবে।’

অধ্যাপক মিহির লাল বলেন, ‘হলের সিসিটিভি ক্যামেরার পাশাপাশি আমরা আরও বাড়তি সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করছি। আশা করছি সবার সহযোগিতায় আমরা সুন্দর একটি পূজা পালন করতে পারব।’

সারাবাংলা/আরআইআর/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন