বিজ্ঞাপন

রোমাঞ্চ ছড়িয়ে সাকিবদের বিপক্ষে মাশরাফিদের জয়

January 24, 2023 | 5:22 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

নবম বিপিএলে মাশরাফি বিন মুর্তজার সিলেট স্ট্রাইকার্স ও সাকিব আল হাসানের ফরচুন বরিশাল এখন পর্যন্ত পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুই দল। দুই দলের মুখোমুখি লড়াইও হলো রোমাঞ্চকর। ক্ষণে ক্ষণে রং পাল্টানো ম্যাচে রোমাঞ্চ শেষে ২ রানের জয় পেয়েছে মাশরাফির সিলেট।

বিজ্ঞাপন

আগে ব্যাটিং করে ১৭৩ রান তুলেছিল সিলেট স্ট্রাইকার্স। পরে বরিশাল ১৭১ রানে থেমে গেলে ২ রানের রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে সিলেট।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিলেটের ১৭৩ রানের জবাব দিতে নেমে বরিশাল এগুচ্ছিল বেশ স্বচ্ছন্দেই। শুরুতে রীতিমতো ঝড় তুলেছিলেন তরুণ সাইফ হাসান। ১০ ওভার শেষে ২ উইকেটে বরিশালের রান ছিল ১০৬। লম্বা ব্যাটিং লাইনআপ এবং প্রায় সব ব্যাটাররা ফর্মে থাকা বরিশাল বাকি সমীকরণ সহজেই মিলাবে এমনটাই মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু পরের ওভার থেকেই বরিশালর খেই হারানো শুরু।

বিজ্ঞাপন

তরুণ পেসার রেজাউর রহমান রাজার করা ১১তম ওভারে দারুণ খেলতে থাকা সাকিব আল হাসান ও ইব্রাহিম জাদরান ফিরলে ম্যাচ জমে উঠে। ১৬তম ওভারে মাশরাফি বিন মুর্তজাকে টানা তিন ছয় হাঁকিয়ে আবারও নিজেদের দিকে ম্যাচ হেলে নেন অবশ্য বরিশালের আফগান অলরাউন্ডার করিম জানাত।

কিন্তু সিলেটের মোহাম্মদ আমির স্লগ ওভারে রীতিমতো অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেন। ১৭তম ওভারে মাত্র ১ রান খরচায় করিম জানাতের উইকেট তুলে নেন সিলেটের পাকিস্তানি পেসার আমির। নিজের পরের ওভারে তুলে নেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। শেষ ওভারে জয়ের জন্য বরিশালের লাগত ১৫ রান।

বিজ্ঞাপন

সিলেটের তরুণ পেসার রেজাউর রহমান রাজা ওভারের প্রথম বলেই ফেরান ইফতিখার আহমেদকে। পরের বলে মুশফিকুর রহিম দুর্দান্ত ভাবে রান আউট করেন মেহেদি হাসান মিরাজকে। ওভারের পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকিয়ে অবশ্য আবারও ম্যাচ জমিয়ে তুলেছিলেন বরিশালের পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ ওয়াসিম। তবে শেষ বলে ছক্কা হাঁকানোর দাবি মেটাতে পারেননি তিনি।

যাতে ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৭১ রানে থেমেছে সাকিবের দল। ৩৭ বলে সর্বোচ্চ ৪২ রান করেছেন ইব্রাহিম জাদরান। তরুণ ওপেনার সাইফ হাসান ১৯ বলে ৪টি ছয়ের সাহায্যে করেছেন ৩১ রান। সাকিব আল হাসান ১৮ বলে ২৯ ও করিম জানাত ১২ বলে ২১ রান করেন।

বিজ্ঞাপন

সিলেটের হয়ে ৪১ রানে তিন উইকেট নেন রেজাউর রহমান রাজা। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ আমির ও তানজিদ হোসেন সাকিব।

রোমাঞ্চ ছড়িয়ে সাকিবদের বিপক্ষে মাশরাফিদের জয়

বিজ্ঞাপন

এর আগে সিলেটের ইনিংসটি গড়েছে তরুণ নাজমুল হোসেন শান্তর ব্যাটে। টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ফরচুন বরিশালের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ ওয়াসিম সাকিবের সিদ্ধান্তের যথার্থতা প্রমাণ করেছে দারুণভাবে। শুরুতে গতির ঝড় তুলেছিলেন ওয়াসিম।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে প্রথম আক্রমণে এসে সিলেটকে এলোমেলো করে দেন ওয়াসিম। প্রথম বলেই সরাসরি বোল্ড করেন জাকির হাসানকে। ওভারের পঞ্চম ও ষষ্ঠ বলে ফেরান তাওহিদ হৃদয় ও মুশফিকুর রহিমকে। টম মরিচকে নিয়ে শান্তর প্রতিরোধ।

চতুর্থ উইকেটে ৭৮ রান তোলেন দুজন। মরিচ ৩০ বলে ৪টি চার ১টি ছয়ে ৪০ রান করে ফেরেন। পরে থিসারা পেরেরা ১৬ বলে করেছেন ২১ রান। তারপর আবারও টপাটপ উইকেট হারাতে থাকে সিলেট। তবে শান্ত একপ্রান্তে ছিলেন অবিচল।

২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৩ রানে থেমেছে সিলেট। শান্ত তখন ৬৬ বলে ৮৯ রানে অপরাজিত। তার ইনিংসে ১১টি চার ও ১টি ছয়ের মার।

মোহাম্মদ ওয়াসিম ৩৪ রানে তিন উইকেট নিয়েছেন। একটি করে উইকেট নিয়েছেন সাকিব আল হাসান ও কামরুল  ইসলাম।

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন