বিজ্ঞাপন

এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের জন্য আচরণবিধিমালার প্রস্তাব

January 24, 2023 | 10:13 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের জন্য আচরণবিধিমালা করার প্রস্তাব দিয়েছেন জেলা প্রশাসকরা।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক সম্মেলনের প্রথম দিন শিক্ষামন্ত্রীর উপস্থিতিতে জেলা প্রশাসকরা এই প্রস্তাব দিয়েছেন।

জেলা প্রশাসকদের তরফ থেকে বলা হয়, বর্তমানে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের শতভাগ মূল বেতন সরকার থেকে দেওয়া হচ্ছে। তা সত্ত্বেও তারা বিভিন্ন রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তাই এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের মতো আচরণবিধির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সম্মেলনে জেলা প্রশাসকরা শিক্ষা সংক্রান্ত সংবাদ এবং অনুষ্ঠান প্রচারের জন্য একটি পূর্ণকালীন টেলিভিশন করার দাবি জানিয়েছেন। এছাড়াও সম্মেলন থেকে মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতর থেকে মাধ্যমিক আর উচ্চ শিক্ষাকে আলাদা কারার প্রস্তাবনা এসেছে। পাশাপাশি হাওর অঞ্চলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য আলাদা সময়ে ছুটির ব্যবস্থা করার প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসকদের সম্মেলন থেকে বের হয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ ব্যাপারে বলেন, আমাদের শিক্ষকরা বিশেষ করে যারা বেসরকারি এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক তাদের জন্য একটি আচরণবিধিমালার প্রস্তাব দিয়েছেন ডিসিরা। আমরা মনে করি এটি একটি ভালো প্রস্তাব। এই প্রস্তাবটি নিয়ে আমরা কাজ করব। জেলা প্রশাসকরা শিক্ষাবিষয়ক একটি পূর্ণকালীন টেলিভিশনের দাবি করেছেন। এটা খুবই যৌক্তিক দাবি বলে আমরাও মনে করছি।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে মাধ্যমিক আর উচ্চ শিক্ষাকে আলাদা বিষয়ে আলোচনায় এসেছে। বিশেষ করে প্রাথমিক আর মাধ্যমিকের মধ্যে সমন্বয় করার কথা বলা হয়েছে। তবে এটি নিয়ে আমাদের অনেক বেশি ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

ডা. দীপু মনি বলেন, জেলা প্রশাসকরা হাওর অঞ্চলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটির সময়কাল ভিন্ন করার করার প্রস্তাব দিয়েছেন। এটা নিয়ে আমরা আগে থেকেই কাজ করছি, যাতে একটি ফ্লেক্সিবল ক্যালেন্ডার করা যায়। আমাদের দেশে কয়েকটি অঞ্চলে একটি ভিন্ন সময়ে বন্যা হয়। ঋতুর সঙ্গে কিছু কিছু তফাৎ আছে। ফলে ওইসব এলাকায় একটি ফ্লেক্সিবল ক্যালেন্ডার করার জন্য আমরা আগে থেকেই কাজ করছি।

বিজ্ঞাপন

জেলা প্রশাসক সম্মেলনে শিক্ষা কর্মকর্তাদের পদবি পরিবর্তনের কথা উঠেছে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার পদকে সুস্পষ্টভাবে ভাগ করে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এবং উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এবং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এই ধরনের পদ সৃষ্টি করার প্রস্তাবনা এসেছে। আমার মনে হয়েছে এসব প্রস্তাব খুবই যুক্তিযুক্ত। এটা করা হলে আর বিভ্রান্তিটা থাকে না। এরকম কারিগরি শিক্ষার ক্ষেত্রেও কিছু প্রস্তাবনা এসেছে। বিশেষ করে কারিগরি শিক্ষায় বয়সের বাধা তুলে দেওয়া, নবম দশক শ্রেনীতে দরকারি শিক্ষার কোর্স নিয়ে আসা। এই ধরনের কিছু প্রস্তাবনা আগে থেকেই বাস্তবায়নাধীন রয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সম্মেলনে কক্সবাজারে একটা মেরিন বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রতিটি উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ করার প্রস্তাব এসেছে। ইতিমধ্যে এই ধরনের একটি প্রকল্প চলমান রয়েছে। নতুন শিক্ষাক্রম নিয়ে বিভিন্ন প্রস্তাব এসেছে। ইতিমধ্যে এ বিষয়টি দেখার জন্য আমরা দুটি কমিটি করে দিয়েছি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/আইই

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন