বিজ্ঞাপন

বুধবার থেকে পল্লবী স্টেশনে থামবে মেট্রোরেল

January 24, 2023 | 11:34 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: এবার মিরপুরের পল্লবী স্টেশনে মেট্রোরেল থামবে। বুধবার (২৫ জানুয়ারি) থেকে এই স্টেশনে মেট্রোরেল থামা শুরু করবে। এর ফলে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পথে মাঝখানে পল্লবী থেকে যাত্রীরা ওঠা নামা করতে পারবে।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড- ডিএমটিসিএল এর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন আগামী ২৬ মার্চের মধ্যে পর্যায়ক্রমে বাকি স্টেশনগুলোতে মেট্রোরেল থামবে।

ডিএমটিসিএল এর পক্ষ থেকে জানানো হয়, মেট্রোরেল চলাচলে নতুন এই স্টেশনটি যোগ হওয়ায় চলাচলের সময়ে কিছুটা পরিবর্তন আসবে। প্রাথমিক পর্যায়ে পূর্ব নির্ধারিত সময় থেকে অন্তত ৩০ মিনিট সময় পিছিয়ে নেওয়া হবে। আগে সকাল ৮ টায় স্টেশনের গেট খুলে টিকিট সংগ্রহের পর পরই ট্রেন ছেড়ে দেওয়া হতো। বুধবার থেকে সকাল ৮ টায় স্টেশনের গেট খোলা হবে। তখন যাত্রীরা ভেতরে প্রবেশ করে টিকিট বা এমআরটি পাস সংগ্রহ করবেন। এরপর ট্রেন ছাড়া হবে সাড়ে ৮টায়। আর মেট্রোরেল চলাচল দুপুর ১২ টার পরিবর্তে বন্ধ করা হবে সাড়ে ১২টায়।

বিজ্ঞাপন

ডিএমটিসিএলের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, যাত্রীদের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে ট্রেন চলাচল শুরুর ত্রিশ মিনিট আগে গেট খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তারা আরও জানান, ফেব্রুয়ারি মাসে নতুন আরো একটি স্টেশনে মেট্রোরেল থামানোর পরিকল্পনা রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে ডিএমটিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমএএন ছিদ্দিক সারাবাংলাকে বলেন, ‘ফেব্রুয়ারি মাসে দুইটি স্টেশন চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে। মার্চের মধ্যে আমরা সবগুলো স্টেশন চালুর চিন্তা করছি। তবে আপাতত মেট্রোরেল চলাচলের সময় বাড়ছে না।’

বিজ্ঞাপন

গত ২৮ ডিসেম্বর উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার মেট্রোরেলের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর থেকে যাত্রী পরিবহন করছে মেট্রোরেল। চালু হওয়া পৌনে ১২ কিলোমিটার রেলপথে মোট নয়টি স্টেশন রয়েছে। উদ্বোধনের পর থেকে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত সরাসরি মেট্রোরেল চলাচল করে আসছিলো। এবার এই পথের মাঝে মিরপুরের পল্লবী স্টেশনে থামবে মেট্রোরেল।

উল্লেখ্য, উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার নির্মানের কথা ছিলো। পরে সংশোধন করে মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ১ দশমিক ১৬ কিলোমিটার বাড়ানো হয়।উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেল স্থাপনে চলমান এ প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছিলো ২১ হাজার ৯৮৫ কোটি টাকা। এরপর কমলাপুর পর্যন্ত যুক্ত হওয়ায় এর ব্যয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩ হাজার ৪৭২ কোটি টাকায়। এরমধ্যে জাইকা ১৯ হাজার ৭১৯ কোটি টাকা দিচ্ছে আর সরকার নিজস্ব তহবিল থেকে খরচ করবে ১৩ হাজার ৭৫৩ কোটি টাকা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন