বিজ্ঞাপন

দুর্নীতির কারণে ভবানীগঞ্জ পৌর মেয়র বরখাস্ত

June 14, 2024 | 10:36 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

রাজশাহী: রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার ভবানীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আবদুল মালেককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সরকারি অর্থ আত্মসাৎ এবং দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞাপন

গত বুধবার (১২ জুন) স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। এতে স্বাক্ষর করেছেন স্থানীয় সরকার বিভাগের পৌর-১ শাখার উপসচিব আব্দুর রহমান।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ২০১৯ সালে পৌরসভার ৪টি প্যাকেজের কাজের দরপত্র আহ্বান করা হয়। এরমধ্যে তিনটি প্যাকেজের কাজ শেষ না করেই চেক তুলে নিয়েছেন মেয়র আবদুল মালেক।

২০২২ সালে কাজ না করেই কোটেশনের মাধ্যমে ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৪০ টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। পৌর ভবনের নির্মাণকাজ ঠিকাদারের পরিবর্তে নিজেই করেছেন আবদুল মালেক। স্বাক্ষর করে বিলও তুলেছেন তিনি নিজে।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া আদায় করা পৌরকর আত্মসাৎ, ট্রেড লাইসেন্স দিতে অনিয়ম, পৌরসভার ট্রাক, রোলার ও অন্য যানবাহন ব্যবহারের ক্ষেত্রে গাফিলতি এবং পৌর এলাকার সড়কে যানবাহন থেকে স্লিপের মাধ্যমে অবৈধভাবে টাকা তোলার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

তাই স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন-২০০৯ এর ৩১ (১) ধারা মোতাবেক আবদুল মালেককে মেয়রের পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়।

আবদুল মালেক ভবানীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি। রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের তিনবারের সাবেক সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক তার ফুফাতো ভাই। আবদুল মালেক পর পর দুইবার পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে পৌরসভার প্যানেল মেয়র-১ হাচেন আলীকে পৌরসভার প্রশাসনিক দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

প্রজ্ঞাপনের এই কপি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

সারাবাংলা/এমও

Tags: , , , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন