বিজ্ঞাপন

প্রথমবার ভোটের দৌড়ে প্রিয়াংকা গান্ধী

June 18, 2024 | 7:29 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গান্ধী পরিবারের সদস্য হিসেবে মা সোনিয়া গান্ধী ও ভাই রাহুল গান্ধীর নির্বাচনি প্রচারে কাজ করছেন বহু বছর ধরেই। তবে প্রিয়াংকা গান্ধী নিজে রাজনীতিতে সক্রিয় হয়েছেন বছর পাঁচেক আগে। সাধারণ সম্পাদকের পদ নিয়ে সামলাচ্ছেন পূর্ব উত্তরপ্রদেশে পার্টির কাজ। কিন্তু কখনো নির্বাচন করেননি। এবার সেই অভিজ্ঞতাও নিতে যাচ্ছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিবিসি ও ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর খবর বলছে, ভারতে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে দুটি আসনে জয় পাওয়া কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ছেড়ে দিচ্ছেন কেরালার ওয়েনাড় আসনটি। উপনির্বাচনে সেই আসনেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন রাহুলের বোন প্রিয়াংকা গান্ধী ভাদরা। এবারই প্রথম কোনো ভোটে লড়ছেন তিনি।

লোকসভা নির্বাচনে কেরালার ওয়েনাড়ের পাশাপাশি উত্তর প্রদেশের রায়বেরিলি আসনেও জয় পেয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। নিয়ম অনুযায়ী একটি আসন রেখে আরেকটি আসন তাকে ছেড়ে দিতে হবে। কেরালার আসনটিই ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই কংগ্রেস নেতা।

সোমবার কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গের বাসভবনে দলের শীর্ষ নেতাদের এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ওয়েনাড় আসনটি ছেড়ে দেবেন রাহুল, যেখানে উপনির্বাচনে লড়বেন প্রিয়াংকা। পরে মল্লিকার্জুন খাড়গে ওয়েনাড়ে উপনির্বাচনে কংগ্রেস প্রার্থী হিসেবে প্রিয়াংকার নাম ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

খাড়গে বলেন, কংগ্রেস দলের আমরা সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে রাহুল গান্ধী রায়বরেলি আসন থেকে সংসদ সদস্য হিসেবে লোকসভায় প্রতিনিধিত্ব করবেন। তিনি ওয়েনাড় থেকেও ভোটে জিতেছিলেন, সেখানকার মানুষের ভালোবাসাও পেয়েছিলেন। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, প্রিয়াংকা গান্ধী ওয়েনাড় থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

পরে রাহুল গান্ধী সাংবাদিকদের বলেন, ওয়েনাড় আসনটি ছেড়ে দিলেও সেখানকার সঙ্গে তার সম্পর্ক চুকেবুকে যাবে না। প্রিয়াংকা নির্বাচিত হলেও তিনি নিয়মিতই যাতায়াত করবেন সেখানে। অন্যদিকে প্রিয়াংকাও বলেছেন, ওয়েনাড়ের বাসিন্দাদের রাহুল গান্ধীর অভাব অনুভব করতে দেবেন না তিনি।

প্রিয়াংকা বলেন, ওয়ানাড়ের প্রতিনিধিত্ব করতে পারলে আমি খুশি হব। রাহুল গান্ধীর অভাব বোধ করতে দেবো না ওয়েনাড়ের জনতাকে। রাহুল গান্ধী বলেছেন, ওয়ানাড়ে তিনি আসবেন। আমিও সবাইকে খুশি রাখার জন্য কঠোর পরিশ্রম করব।

বিজ্ঞাপন

ওয়েনাড় থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে প্রিয়াংকাকে সেখানে অনেক বেশি সময় দিতে হবে। তবে এত দিন ধরে তিনি দলের হয়ে সবচেয়ে বেশি কাজ করেছেন রায়বেরিলি ও আমেঠিতে। এসব জায়গাতেও তিনি নিয়মিত সময় দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

প্রিয়াংকাকে উপনির্বাচনে প্রার্থী করা অনুমিতই ছিল বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। প্রবীণ সাংবাদিক হেমন্ত আত্রি বিবিসিকে বলেন, কংগ্রেসের এই সিদ্ধান্ত অপ্রত্যাশিত নয়। এবারের লোকসভা নির্বাচনের শুরু থেকেই এটা তাদের রণকৌশলের অংশ ছিল। প্রিয়াঙ্কা চাইলে আমেঠি থেকে নির্বাচনি রাজনীতি শুরু করতে পারতেন কিন্তু তা হয়নি। কারণ কংগ্রেস পার্টি স্মৃতি ইরানিকে উপযুক্ত জবাব দিতে চেয়েছিল। আর সে কারণেই আমেঠিতে ‘নবীন’ প্রিয়াংকাকে প্রার্থী না করে অভিজ্ঞ কে এল শর্মাকে প্রার্থী হিসাবে বেছে নেওয়া হয়েছিল।

তবে প্রিয়াংকার ওয়েনাড় আসন থেকে উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্তকে কড়া ভাষায় সমালোচনা করেছে বিজেপি। দলটির নেতা শেহজাদ পুনাওয়ালা বলেন, কংগ্রেস কোনো দল নয়, এটি একটি পারিবারিক সংস্থা এবং আজ তা প্রমাণিত হয়েছে। মা সোনিয়া গান্ধী রাজ্যসভায় থাকবেন, ছেলে লোকসভায় থাকবে আর মেয়েও সেখানেই থাকবে। এটা পরিবারতন্ত্রের উদাহরণ।

আরেক বিজেপি নেতা নলিন কোহলি বলেন, কংগ্রেসের এই সিদ্ধান্তে দুটি বিষয় কিন্তু স্পষ্ট হয়ে গেল। প্রথমত, ওরা ওয়েনাড় থেকে রায়বেরিলি পর্যন্ত ওদের পারিবারিক রাজনীতির প্রসার করতে চায়। দ্বিতীয়ত, ওয়েনাড়ের মানুষের এখন কী হবে, যারা সব সমস্যা সত্ত্বেও রাহুল গান্ধীকে দ্বিতীয়বারের জন্য নির্বাচিত করেছেন?

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিআর

Tags: , , , , , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন