বিজ্ঞাপন

অবিশ্বাস্য জয়ে বাংলাদেশের আশা বাঁচিয়ে রাখল আফগানিস্তান

June 23, 2024 | 9:58 am

স্পোর্টস ডেস্ক

দুর্দান্ত এক ওপেনিং জুটির পর মাত্র ১৪৮ রানেই থেমেছিল তাদের ইনিংস। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এই অল্প পুঁজি নিয়েই অবিশ্বাস্য এক জয় পেয়েছেন রশিদ খানরা। সেন্ট ভিনসেন্টে রোমাঞ্চকর এক ম্যাচে গুলবাদিন নাইবের বোলিং জাদুতে অস্ট্রেলিয়াকে ২১ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপে গ্রুপ-১ এর লড়াই জমিয়ে তুলল আফগানরা। নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর স্বাদ পেল তারা। একই সাথে এই জয়ে টিমটিম করে টিকে রইল বাংলাদেশের সেমিতে খেলার স্বপ্নও!

বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলিয়ার সামনে লক্ষ্য ছিল ১৪৯। এই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে তৃতীয় বলেই ট্রাভিস হেডকে হারায় অজিরা। নাভিনের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে শূন্য রানেই বোল্ড হয়ে ফেরেন হেড। মিচেল মার্শও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি, ১২ রানে ফিরেছেন নাভিনের বলেই।

বোলিংয়ে এসে প্রথম বলেই ওয়ার্নারকে ফিরিয়ে অজিদের বেশ চাপে ফেলেন নবি। ৩২ রানে ৩ উইকেট হারানো অজিদের হাল ধরেই ম্যাক্সওয়েল। স্টোয়নিসকে সাথে নিয়ে ধীরে ধীরে এগিয়ে যেতে থাকেন লক্ষ্যের দিকে। মনে হচ্ছিল আজও সেই ওয়ানডে বিশ্বকাপের মতো আফগানদের হতাশ করে জয় ছিনিয়ে নিয়েই মাঠ ছাড়বেন ম্যাক্সওয়েল।

তবে অন্য প্রান্তে তাকে সাহায্য করতে পারেননি কেউই। বোলিংয়ে এসে অজি মিডল অর্ডার একাই গুড়িয়ে দিয়েছেন গুলবাদিন নাইব। স্টোয়নিস, ডেভিডকে পরপর ফিরিয়ে অজিদের কাঁপিয়ে দিয়েছেন তিনি। এক প্রান্ত আগলে রেখে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে একাই লড়ে যাচ্ছিলেন ম্যাক্সওয়েল।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের মোড় ঘুরে যায় ১৫তম ওভারে। নাইবের বলে মারতে গিয়ে নুরের দুর্দান্ত এক ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফেরেন ম্যাক্সওয়েল। ৬ চার ও তিন ছক্কায় ৫৯ রানে ম্যাক্সওয়েল ফিরলে কার্যত শেষ হয়ে যায় অজিদের জয়ের আশা।

শেষ পর্যন্ত আর জয়ের কাছে যেতে পারেনি অজিরা। শেষ ওভারে গিয়ে ১২৭ রানে থামে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস। ২০ রানে ৪ উইকেট নিয়ে জয়ের নায়ক নাইব। ৩ উইকেট নিয়েছেন নাভিন। ২১ রানের দুর্দান্ত এই জয়ে সুপার এইটে টিকে রইল আফগানরা। অসম্ভব এক সমীকরণে টিকে রইল বাংলাদেশও। শেষ ম্যাচে আফগানদের অবিশ্বাস্য বিশাল ব্যবধানে হারানোর পর বাংলাদেশকে তাকিয়ে থাকতে হবে ভারতের দিকে। ভারত যদি অস্ট্রেলিয়াকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে দেয় তাহলেই কেবল সামান্য সম্ভাবনা থাকবে বাংলাদেশের সেমিতে যাওয়ার।

অন্যদিকে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে জিতলেও নিশ্চিত হবে না অজিদের সেমিতে ওঠা। সেক্ষেত্রে তাদের তাকিয়ে থাকবে হবে বাংলাদেশের দিকে। বাংলাদেশ আফগানদের হারিয়ে দিলে আর নিজেদের ম্যাচে জিতলেই সেমিতে উঠবে অজিরা। আর আফগান ও অস্ট্রেলিয়া দুই দল জিতলে রান রেটেই নির্ধারিত হবে সেমির স্পট।

বিজ্ঞাপন

এর আগে টসে জিতে আফগানদের ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন অজি অধিনায়ক। ব্যাটিংয়ে নেমে গুরবাজ-জাদরান জুটি অবিশ্বাস্য এক পারফরম্যান্স দেখিয়েছে। অস্ট্রেলিয়ান বোলারদের নাকানি চুবানি খাইয়ে এই জুটি তুলে নেয় ১০০ রান। এবারের বিশ্বকাপে এটি এই জুটির তৃতীয় শতরানের জুটি। টি-২০ বিশ্বকাপের ইতিহাসে যা সর্বোচ্চ।

দুর্দান্ত এই জুটি গড়ার পথে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন দুই ওপেনারই। দুই ব্যাটারের দারুণ ব্যাটিংয়ের সাথে আজ যোগ হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বাজে ফিল্ডিংও। বেশ কিছু ক্যাচ, মিস ফিল্ডিংয়ে এলোমেলো ছিল পুরো অজি দল।

অবশেষে ১৬তম ওভারে এসে ১১৮ রানের জুটি ভাঙ্গেন স্টোয়নিস। ৪ চার ও ৪ ছক্কায় ৪৯ বলে ৬০ রান করা গুরবাজকে ফিরিয়ে অজিদের স্বস্তি এনে দেন তিনি। গুরবাজ ফেরার পর থেকেই তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে আফগান ব্যাটিং লাইনআপ। ৬ চারে সাজানো ৪৮ বলে ৫১ রানের ইনিংস খেলে ফেরেন জাদরানও। জাম্পার দারুণ বোলিংয়ে দ্রুত উইকেট হারিয়ে থমকে যায় রানের গতিও।

এরপর ১৮ ও ২০তম ওভারে প্যাট কামিন্সের দারুণ এক হ্যাটট্রিকে ১৫০ পেরোতে পারেনি আফগানদের ইনিংস। পরপর দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিক তুলে নিয়ে ইতিহাস গড়েছেন কামিন্স। টি-২০ ফরম্যাটে এমন ঘটনা এই প্রথম। পরের বলে ওয়ার্নার খারোটের ক্যাচ মিস না করলে ৪ বলে ৪ উইকেট পেতে পারতেন তিনি!। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে ১৪৮ রানেই থেমেছে আফগানদের ইনিংস। কামিন্স নিয়েছেন ৩ উইকেট। জাম্পা পেয়েছেন ২উইকেট।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এফএম

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন