Ad

বিজ্ঞাপন

একাত্তরের পরাজিত শত্রুরা দিন দিন শক্তিশালী হচ্ছে: জব্বার

March 31, 2021 | 5:15 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, একাত্তরের পরাজিত শত্রুরা দিন দিন আরও শক্তিশালী হয়ে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিচ্ছে। আমাদের বুঝতে হবে একাত্তরের যুদ্ধ এখনো শেষ হয়নি। বঙ্গবন্ধুর নীতি ও আদর্শ নতুন প্রজন্মের কাছে যথাযথভাবে উপস্থাপন করা বঙ্গবন্ধুর প্রতিটি সৈনিকের কর্তব্য।
বুধবার (৩১ মার্চ) টেলিটক বাংলাদেশের বঙ্গবন্ধু প্রকৌশল পরিষদ আয়োজিত স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আলোচনা সভা, রক্তদান কর্মসূচি ও মুজিববর্ষ স্মরণিকা ‘হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু’র মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

Ad

বিজ্ঞাপন

টেলিযোগাযোগমন্ত্রী বলেন, ‘স্বাধীনতার ৫০ বছরের মধ্যে ২৯ বছর পরাজিত শক্তির দোসররা দেশটাকে পাকিস্তানি ধারায় ফিরিয়ে নিতে চেষ্টা করেছে। পরাজিত শত্রুর গাড়িতে বাংলাদেশের পতাকা উড়েছে। জাতি হিসেবে এটা লজ্জার।’

তিনি বলেন, ‘একাত্তরে বঙ্গবন্ধুর নীতি ও আদর্শের ভিত্তিতে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর এদেশে পরাজিত শক্তিকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। ১৯৭৫ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত ২১ বছর এবং পরবর্তী ৮ বছরসহ মোট ২৯ বছর দেশকে পাকিস্তান বানানোর প্রচেষ্টা অব্যাহত ছিল। ৫০ বছরের মধ্যে বাকি ২১ বছর বঙ্গবন্ধু ও তার সুযোগ্য উত্তরসূরি জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টি সম্পন্ন কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় হেনরি কিসিঞ্জারের তলাবিহীন ঝুড়িখ্যাত বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে।’

Ad

বিজ্ঞাপন

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘২০০৯ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি বৈশ্বিক মহামারিতে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, ব্যবসা-বাণিজ্য, অফিস ও কল-কারখানা চালুসহ স্বাভাবিক জীবনধার সচল রেখেছে। অনেক উন্নত দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি যেখানে ঋণাত্মক সেখানে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি ৫ দশমিক ২ শতাংশ। এটা অভাবনীয় সাফল্য। করোনাকালেও প্রমাণিত হলো আমরা বীরের জাতি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশনারি নেতৃত্বের কারণে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ লাভ করেছে।’

বঙ্গবন্ধু প্রকৌশল পরিষদ টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড শাখার সভাপতি রওনক আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী সাহাব উদ্দিন, আইইবি‘র সভাপতি প্রকৌশলী নুরুল হুদা, ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. নুরুজ্জামান ও প্রকৌশলী মঞ্জুর মোর্শেদ এবং সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মো. শাহাদাৎ হোসেন শিবলু বক্তব্য দেন।

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad