Ad

বিজ্ঞাপন

আর্থিক সমস্যা, হাতে ছবি নেই, কাজ চাইতে যশ চোপড়ার অফিসে অমিতাভ!

April 22, 2021 | 4:10 pm

এন্টারটেইনমেন্ট ডেস্ক

ভাগ্যের চাকা চিরকাল একভাবে ঘোরে না। জীবনে সাফল্য যেমন আছে, তেমনি খারাপ সময়ও আছে। অর্থ, যশ, মান খ্যাতির শীর্ষে থেকেও যে সময়ের চাকা ঘুরে যেতে পারে তারই যেন জলজ্যান্ত উদাহরণ বলিউডের বচ্চন পরিবার। সব পেয়ে আবার হারিয়ে ফেলে নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর সত্যি গল্প লিখেছেন তারা। এক সময় অমিতাভের আর্থিক অবস্থা নাকি এতটাই খারাপ হয়ে গিয়েছিল যে, পড়াশুনা ছেড়ে বাবার পাশে দাঁড়াতে বাধ্য হয়েছিলেন অভিষেক। সেদিনের সেই সময়টা এখনও স্মৃতিতে উজ্জ্বল বলেই জানালেন তিনি। বললেন, ‘আমরা খুব খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলাম’।

Ad

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি ইউটিউবার রণবীর আল্লহাবাদিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে অমিতাভ-পুত্র জানিয়েছেন, ‘তখন আমি বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছিলাম। পড়া মাঝপথে রেখেই আমাকে ফিরে আসতে হয়। তখন আমরা আর্থিক সমস্যার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলাম। বাবা তখন নতুন ব্যবসা শুরু করেছিল, এবিসিএল।’

Ad

বিজ্ঞাপন

অভিষেক আরও বলেন, ‘বাবা-র আর্থিক সমস্যা দূর করার কোনও যোগ্যতাই তখন আমার ছিল না। শুধু মনে হয়েছিল, এরকম একটা সময়ে আমার উচিত বাবার পাশে থাকা। তাই ফিরে এসেছিলাম। বাবার কোম্পানিতে প্রোডাকশন বয় হিসেবে কাজ করতাম।’

অভিষেক জানান, একদিন রাতে তিনি পড়াশোনা করছেন তখন অমিতাভ তাকে জানান, তার ব্যবসা ভালো চলছে না। ফের অভিনয়ে ফিরতে চান তিনি। এরপর সকালে উঠে যশ চোপড়ার অফিসে কাজ চাইতে যান অমিতাভ। যশ চোপড়াকে গিয়ে বলেন, ‘দেখ আমাকে কেউ অভিনয়ে নিতে চাইছে না। আমার ছবিও ভালো চলছে না। আমার জন্য কী কোনও কাজ হবে?’

এরপরেই অমিতাভ অভিনয় করেন ‘মহব্বতেঁ’ ছবিতে। সেই সময়তেই শুরু হয় অমিতাভের জনপ্রিয় টিভি শো ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’। এই দুই প্রোজেক্টই ভাগ্য ফেরায় বচ্চন পরিবারের। যশ, খ্যাতি, মান তো ছিলই, সেই সঙ্গে ফিরে আসে অর্থও।

সারাবাংলা/এএসজি

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad