Ad

বিজ্ঞাপন

১২ মে আসছে চীনের ভ্যাকসিন

May 6, 2021 | 6:19 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে আগামী ১২ মে চীনের ভ্যাকসিন ঢাকা আসবে। বাংলাদেশের নিযুক্ত চীনের ডেপুটি চিফ অব মিশন হুয়ালঙ ইয়ান বৃহস্পতিবার (৬ মে) এক বার্তায় এই তথ্য জানান।

Ad

বিজ্ঞাপন

হুয়ালঙ ইয়ান জানান, আগামী ১২ মে চীনের ভ্যাকসিন ঢাকায় আনতে প্রচেষ্টার কোনো ঘাটতি থাকবে না।

এর আগে চীনের ভ্যাকসিন ইস্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জানিয়েছিলেন, চীনের রাষ্ট্রদূত আমাদের জানিয়েছে, মে দিবসের ছুটি শেষে আগামী ১২ মে তাদের ভ্যাকসিন ঢাকায় আসবে। তার আগে উপহারের ৫ লাখ আসার কথা রয়েছে। তবে ভ্যাকসিন কবে আসবে, কতটুকু আসবে, দাম কত হবে, এসব কিছুই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ঠিক করে। আমরা শুধু যোগাযোগ ঘটিয়ে দেই। আর এসব ভ্যাকসিন কেনার জন্য প্রধানমন্ত্রী এরই মধ্যে ১০ হাজার কোটি টাকার অনুমোদন দিয়ে রেখেছেন।

Ad

বিজ্ঞাপন

এদিকে ভ্যাকসিন ইস্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে ভ্যাকসিন সহযোগিতা নিয়ে আলাপ হয়েছে। আমরা এর আগেই তাদের চিঠি দিয়ে ভ্যাকসিন সহযোগিতার চেয়েছি। আজ বলেছি, আমাদের প্রচুর ভ্যাকসিন দরকার। কিন্তু এই মুহূর্তে জরুরি ভিত্তিতে চার মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন প্রয়োজন। কেননা আমরা সংকটে আছি। আমাদের অনেকেরই প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে, কিন্তু সংকটের কারণে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া যাচ্ছে না। তাই চার মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন খুবই জরুরি।’

তিনি আরও বলেন, ‘জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত বলেছেন যে, তারা আমাদের ভ্যাকসিন দিয়ে সহায়তা করবে। এ বিষয়ে তাদের মিশন কাজ করছে। তবে নির্দিষ্ট দিনক্ষণ তিনি বলেননি। কিন্তু আমাদের আশ্বস্ত করেছেন যে, আমরা ভ্যাকসিন পাব।’

ভ্যাকসিন সংকট কাটিয়ে ওঠার জন্য নানামুখী যোগাযোগ চলছে জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এরই মধ্যে আমরা চীন এবং রাশিয়া থেকে ভ্যাকসিন আনার জন্য যোগাযোগ করেছি। এই দুই দেশ আমাদেরকে ভ্যাকসিন সহযোগিতা করবে। আগামী ১২ মে উপহার হিসেবে চীনের পাঁচ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন ঢাকায় আসার কথা রয়েছে। এই বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কাজ করছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। ভারতকে চিঠির মাধ্যমে তাগাদা দিয়ে বলেছি যে, জরুরি ভিত্তিতে আপাতত চার মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন প্রয়োজন।’

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad

বিজ্ঞাপন

Ad