বৃহস্পতিবার ১৮ জানুয়ারি, ২০১৮, ৫ মাঘ, ১৪২৪, ৩০ রবিউস-সানি, ১৪৩৯

Live Score

<< আগের পর্ব থাক সে কথা! আপাতত বাইরে কেউ নেই। দোকানের সামনের অংশটা একটু গোছানো। দামি পণ্যগুলো সাজানো এ অংশে। হাজার দুয়েক বইয়ের স্থান সংকুলান হয়েছে এখানে। এক্সক্লুসিভগুলো রাখা জানালার দিকটায়। ডান দিকে একটা গ্লাসআঁটা শোকেসে শিশুদের বই। পাজির পাঝাড়া শিশুদের নিয়ে র‌্যাকহ্যামের জংলি ইলাস্ট্রেশনের একটি বইয়ের মলাটের ওপর থেকে সরে ব্লুবেল গ্লেড হয়ে ওয়েন্ডলি […]

ঘড়ির কাঁটায় বেলা আড়াইটা। ম্যাকেচনির বইদোকানের পেছনে ছোট্ট কোঠায় আড়াআড়ি পাতা টেবিলে লম্বালম্বি শুয়ে গর্ডন। গর্ডন কমস্টক। কমস্টক পরিবারের সবশেষ সদস্য। ঊনত্রিশে পড়েছে। হাতে চারপেনি দরের প্লেয়ার্স ওয়েটস সিগারেটের প্যাকেটটা বুড়ো আঙুলের চাপে খুলছে আর আটকাচ্ছে। দূরের আরেকটা ঘড়ি- রাস্তার উল্টোদিকে প্রিন্স অব ওয়েলস থেকে ডিংডং শব্দে থমকে থাকা ইথার কাঁপিয়ে সময়ের জানান দিচ্ছে। কষ্টে […]

অরুণ কুমার বিশ্বাস সাত সকালে দেশ বিক্রির ধুয়ো শুনে বেচারা যোগেনের নাভিশ^াস ওঠার জোগাড়। নিঃশ^াস একবার নাভিতে প্রবিষ্ট হলে কী হয় জানেন তো! তখন বাঁচা-মরা দুইই সমান। প্রাণপাখি প্রাণপণ ডানা ঝাপটে বলে, আমি এবার যাই যাই। পালাই। আমাদের এত প্রিয় স্বদেশভূমি, সেটা নাকি কারো কাছে বিক্রি হয়ে যাচ্ছে, মানে পণের বিনিময়ে হাতবদল। এমন না-শুনছি কথা […]

তোমাকে আমি দূর থেকে দেখি। কোন কোন বিকেলে তুমি একটা কফিশপে এসে বসো। এটা আবিস্কার করার পরই মাঝে মাঝে আমিও চুপচাপ এসে বসি ঐখানে, একটু দূরে একটা জানলাঘেষা টেবিলে এককাপ কালো কফি নিয়ে।  তোমাকে আমি খুব মন দিয়ে দেখি। মানে যতটুকু পারি আর কি। দূর থেকে- একটা দূরবর্তী ছায়ার মত থাকি আর দেখি তোমার সাদা […]

রাজবাড়ীতে জ্বলল আলো। জ্বলল আলো কত বছর পর? প্রশ্ন মুখে মুখে। অনেক অনেক বছর পর। অনেক অনেক মানে কত বছর? কত বছর পরে রাজবাড়ীতে জ্বলল আলো? নির্দিষ্ট করে বলতে পারে না কেউ। কেউ বলে ষাট বছর, কেউ বলে এক শ’ বছর আর কেউ বলে হাজার বছর পর। রাজবাড়ীর রাজ নর্তকীরা এত দিন এত রাত অপেক্ষায় […]

গহর ঘাড় ঘুরিয়ে সাইকেল দেখল। তার ভ্যানের ওপর পঞ্চাশটা সাইকেল আছে। তিন চাকার সাইকেল। এই সাইকেল সে নিয়ে এসেছে নবাবপুর থেকে। নিয়ে যেতে হবে উত্তরায়। ফজরের আজানের সময় ভ্যানে সাইকেল নিয়ে রওনা হয়েছে। সূর্য ওঠেনি এখনো। বাতাসে হালকা ঠান্ডা ভাব। গহর দরদর করে ঘামছে। সকাল হওয়ার আগে মালগুলো পৌঁছে দিতে হবে দোকানে। বেলা উঠে গেলে […]

অরুণ কুমার বিশ্বাস শুরুতেই বলে নিই, আমরা সব বিপণনগুরু ফিলিপ কট্লার-এর যোগ্য শিষ্য। তাঁর সোজা কথা, ভাল কিছু করেছ কি, মেলে ধরো। ফুলে সুবাস থাকলে তার সৌরভ নিতে মানুষ ছুটে আসবেই। কটলারের সেই সূত্র মেনে আমরা সবাই এখন বড্ড বেশি ঢোল বাজাতে ব্যস্ত। কাজ কিছু করি বা না-করি, জানান দিতে কারো এতটুকু কার্পণ্য নেই। যেন […]

মাঘের শীতে নাকি বাঘ পালায় । কিন্তু মাঘ চলে আসছে শীতের বাতাস নেই। এর কারণটা কি? অতি উৎসাহী কেউ কেউ হালকা জ্যাকেট সোয়েটার ব্লেজার পড়ে শীত নামানোর চেষ্টা করছেন তাতেও কাজ হচ্ছে না। শীত আসছেই না। মাঝখানে একবার এক পশলা হুড়মুড় করে বৃষ্টি হল, আকাশে মেঘ গুড় গুড় করল , বিদ্যুৎও চমকালো দুই একঝলক … […]

তপন বাগচী

কলকাতার ‘ভারতমিহির’ যন্ত্রে ছাপা হলেও মীর মশাররফ হোসেনের (১৮৭৪-১৯১১) ‘সঙ্গীত লহরী’ ১ম খ- বেরিয়েছিল কুষ্টিয়ার লাহিনীপাড়া থেকে, ১৮৮৭ সালে। এর আগে ১৮৮১ সালে একই নামে কলকাতা আরেকটি গ্রন্থ বেরিয়েছিল কুমার মহেন্দ্রলাল খান (১৮৪৩-১৮৯৯) রচিত। কাছাকাছি সময়ে নওয়াব ফয়জুননেছা চৌধুরাণীও (১৮৩৪-১৯০৩) একই নামে গ্রন্থ রচনা করেন। মশাররফের গানের বইয়ের নামকরণের ক্ষেত্রে তাঁর পূর্বসূরী দুই লেখকের পূর্বপ্রকাশিত বইয়ের প্রভাব থাকতে পারে বলে এই তথ্যটুকু উল্লেখ করা যায়।