বিজ্ঞাপন

প্রমাণের অপেক্ষায় রাজু

January 9, 2018 | 7:11 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

বিজ্ঞাপন

আর পাঁচ দিন পরেই ত্রিদেশীয় সিরিজে মাঠে টাইগাররা। প্রথম দুই ম্যাচের জন্য প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। সেই স্কোয়াডে সুযোগ মিলেছে জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার আবুল হাসান রাজুর। সবশেষ বিপিএলে অলরাউন্ডার পারফর্ম করে দলে ডাক পেয়েছেন এই সিলেট সিক্সার্স তারকা। জাতীয় দলের মূল একাদশে সুযোগ পেলে নিজেকে প্রমাণ করতে চান তিনি।

সবশেষ লাল-সবুজ জার্সি গায়ে জড়িয়েছেন তিন বছর আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে এই মিরপুরেই। এরপর থেকে দলের বাইরে। সবশেষ বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে বল হাতে ১০ উইকেট নিয়ে নাসিরের পরই আছেন। ব্যাট হাতে চার ইনিংস মিলিয়ে করেছেন ৪৩ রান। এই পারফর্মেন্সের জন্যই টাইগার শিবিরে নাম এসেছে মনে করেন তিনি, বিপিএল আসলে এই জায়গায় আসার জন্য চ্যালেঞ্জ ছিল আমার কাছে। এখানে প্রুভ করার সময় আসছে। আমি প্রুভ করতে পারছি, সবচেয়ে বড় জিনিস হলো এটি। আমি আত্মবিশ্বাসী।’

বিজ্ঞাপন

জাতীয় দলের হয়ে ছয়টি ম্যাচ খেলেছেন। সবগুলো ম্যাচেই ছিলেন উইকেট শূন্য। মাঝের তিন বছরে নিজেকে নিয়ে অনেক কাজ করেছেন বলে দাবি রাজুর, ‘আমি আত্মবিশ্বাসী। আসলে আগে একটু ডিফারেন্ট ছিলাম। এখন অনেক কিছুই ডিফারেন্ট হয়েছে। দেখি যদি চান্স পাই তাহলে নিজেকে প্রমাণ করব।’

কি কি বদল এসেছে বোলিংয়ে? ‘লাইন অ্যান্ড লেংথ। বোলিং নিয়ে অনেক বেশি কাজ করেছি অফ সিজনে। বিপিএলেও অনেক বেশি কাজ করেছি। ওয়াকার ভাই..চম্পাকা, সুজন ভাই সবার সঙ্গে কাজ করেছি।’

বিজ্ঞাপন

পেস বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাট হাতেও মাঝে মাঝে জ্বলে উঠেছেন তিনি। টেস্টে দশ নম্বরে নেমে শতক হাঁকানোর রেকর্ডও আছে তার। বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংয়ে কেমন প্রস্তুতি নিচ্ছেন, ‘ভাই আসলে এটা টাফ জিনিস। বোলিং করার পর যতটুকু সময় পাই, রিহ্যাব করতে হয় বা ব্যাটিংয়ে সময় দিতে হয়। যতটুকু সময় পাই ব্যাটিংয়ে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করি।’

জাতীয় দলে অনেকটা আসা যাওয়ার মধ্যেই আছেন রাজু। মাঝে তিনবছর দলের বাইরে। দলে না থাকার কারণ হিসেবে মনে করেন ইনজুরিকে। রাজু বলেন, ‘সো রিজন ইজ ইনজুরি। সো আমি আসলে তিন বছর আউট অব ক্রিকেট ছিলাম বিকজ অব মাই ইনজুরি।’

বিজ্ঞাপন

আল্লাহর রহমতে এখন সবকিছু ওভারকাম করেছি। সো দেখি এখন কী হয়। সো আবার এখানে এসেছি। সো নিজেকে প্রুভ করার সময়।’

লেন্থের সঙ্গে রিভার্স সুইং নিয়ে কাজ করছেন তিনি। জানালেন, ‘সবকিছুর মেইন অস্ত্র হলো স্ট্রেংথ। ওয়াকার জাস্ট একটি কথাই বলেছিল-আমাকে জাস্ট মেইনটেইন করো। ইভেন দ্যাট বোলিং করতে থাকো। কিছুতো তা ডিফারেন্ট আছেই। বল ধরার মধ্যে।

বিজ্ঞাপন

জাতীয় দল ও বিপিএলে সিলেট সিক্সার্স মিলিয়ে তিন বোলিং কোচের সান্নিধ্যে এসেছেন রাজু। টাইগারদের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, চম্পাকা রামানায়েক আর পরামর্শক হিসেবে ওয়াকার ইউনুসকে পেয়েছেন, ‘এখানে পেস বোলিং ক্যাম্পে তো চম্পাকার সঙ্গে অকে দিন কাজ করছি। ইভেন দ্যাট এখনও করছি। ওয়ালশের সঙ্গে আগে ওরকম কাজ করার সো সুযোগ হয়নি আমার। সো উনার সঙ্গে কাজ করছি। সো চাচার সঙ্গে তো আগে থেকেই আছি। তিনজনই সো একই কথাই বলেন। সো লাইন অ্যান্ড লেংথ। সো ওইটা নিয়েই বেশি কাজ করছি।’

সবকিছু মিলে ত্রিদেশীয় সিরিজে সুযোগ পেলেই নিজেকে প্রমাণ করতে চান তিনি। পারবেন কি পারবেন না সেটা সময়ই বলে দিবে।

সারাবাংলা/এএম/জেএইচ

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন