শুক্রবার ২৪ মে, ২০১৯ ইং , ১০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ রমজান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

চলচ্চিত্র বিনিময় নয়, একসঙ্গে দুই দেশে মুক্তির দাবি

ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৯ | ৬:০৪ অপরাহ্ণ

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপন্ডেন্ট ।।

বিগত কয়েক বছর ধরে নিয়মিত পশ্চিমবাংলার সঙ্গে চলচ্চিত্র বিনিময় করছে বাংলাদেশ। পশ্চিমবাংলায় মুক্তি পাওয়ার কয়েক মাস পর সেটা মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশে। তবে সে সব মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিগুলো প্রত্যাশা অনুযায়ী ব্যবসা করতে পারছে না। কারণ বাংলাদেশে মুক্তির আগেই ছবিগুলো অন্তার্জালে প্রকাশ হয়ে যাচ্ছে। এছাড়া বাংলাদেশে আমদানি ছবি মুক্তি দেয়ার ক্ষেত্রে সেন্সরবোর্ড ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের দীর্ঘসূত্রিতার কারণে ছবি মুক্তি দিতে দেরি হচ্ছে। এই সময়টাতেই অন্তর্জালে চলে আসছে চলচ্চিত্র।

এরকম অবস্থায় বিনিময় চুক্তি বাতিল করার জন্য শিগগিরই একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি। সারাবাংলাকে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন সংগঠনটির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ।

বিজ্ঞাপন

নওশাদ বলেন, ‘সিনেমা বিনিময় করে আমাদের কোন লাভ হচ্ছে না। ভারতীয় বাংলা ছবি মুক্তি দেয়ার ক্ষেত্রে এদেশে যত সময় লাগে তাতে ছবিটি অনলাইনে চলে আসে। অনলাইনে দেখে ফেললে সেটা মানুষ দেখবে না এটা তো স্বাভাবিক। আমরা চাই ভারতীয় ছবি একই সাথে ভারত ও বাংলাদেশে মুক্তি পাক। হলিউডের ছবি যদি একসঙ্গে মুক্তি পেতে পারে, তাহলে ভারতের ছবি মুক্তি দেয়া অসম্ভব কিছু নয়।’

হিন্দি ছবি আমদানির বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে কোনো এজেন্ডা থাকবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই থাকবে। আমাদের ছবি দরকার। আজ (৮ ফেব্রুয়ারি) আমার সিনেমা হলে যে সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে সেটি প্রথম শো থেকে মাত্র ৬০০ টাকা আয় করেছে। এভাবে চললে আমি স্টাফদের বেতন কীভাবে দেবো! সিনেমা হল বাঁচানোর জন্য আমরা নতুন করে কিছু প্রস্তাবনা দেবো সংবাদ সম্মেলনে। তারপরও যদি কিছু না হয় তাহলে সিনেমা হল বন্ধ করে দিতে বাধ্য হতে হবে। মধুমিতা সিনেমা হল তো বন্ধ হবেই। বন্ধের তালিকায় আরও সিনেমা হলের নাম চলে আসবে।’

প্রদর্শক সমিতির সভাপতির মতে, সামনে আরও যেসব ছবি আসছে তার অনেকগুলোই দেখার মতো নয়। পরিবার পরিজন নিয়ে কেউ দেখতে যাবে না। সরকারের উচিত এখনই এই বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

সারাবাংলা/আরএসও/পিএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন