বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৭ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্স ফিরিয়ে আনতে ব্যয় হবে ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার

জুলাই ১৯, ২০১৯ | ১০:০৬ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

দুইটি ভয়াবহ দুর্ঘটনার পর নিষেধাজ্ঞা থেকে বোয়িং এর সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিমান বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্সকে পুনরায় কার্যক্রমে ফিরিয়ে আনতে প্রায় ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার খরচ হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটির। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বোয়িংয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে এই আনুমানিক খরচ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান  এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, এ ব্যয় গ্রাহকদের সম্ভাব্য ছাড়, অন্যান্য সুবিধাদি প্রদান এবং উৎপাদনের নিম্নহারের কারণে বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়াও এর সাথে যুক্ত হয়েছে আগামী নভেম্বর পর্যন্ত যাত্রী পরিবহনের নিষেধাজ্ঞা। এ খরচ বহন করতে গিয়ে দ্বিতীয় প্রান্তিকের সম্ভাব্য রাজস্ব এবং করপূর্ব উপার্জন থেকে ৫৬০ কোটি মার্কিন ডলার বেরিয়ে যাবে।

এদিকে, ২৪ জুলাই দ্বিতীয় প্রান্তিকের ফলাফল ঘোষণার আগে পুঁজিবাজারে বোয়িং এর ২ শতাংশ উন্নয়ন ঘটেছে।

পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ রাজিভ লালভানি বলেছেন, এর মাধ্যমে বোঝা যায় বিনিয়োগকারীরা বোয়িং এর বর্তমান উৎপাদন নিয়ে সন্তুষ্ট। তাই তারা বিনিয়োগের ব্যাপারে আগ্রহী হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, বাজারে আসার ৫ মাসের মধ্যেই ইথিওপিয়া এবং ইন্দোনেশিয়ায় বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্স দুইটি ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ৩৪৬ জন মারা যাবার জের ধরে এই বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ সময় কাটাচ্ছে।

এখন শিকাগো ভিত্তিক এই বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি তাদের সুনাম পুনরুদ্ধার এবং অর্থনৈতিক ক্ষতি লাঘবের জন্য বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্সকে  পুনরায় কার্যক্রমে নিয়ে আসার চেষ্টা করছে।

বোয়িং এর প্রধান নির্বাহী ডেনিস ম্যুলেনবার্গ এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, এখন আমাদের প্রধান টার্গেট হলো নিরাপদে বোয়িং-৭৩৭ ম্যাক্সকে সার্ভিসে ফিরিয়ে নিয়ে আসা।

সারাবাংলা/একেএম /এনএইচ  

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন