বিজ্ঞাপন

ঢাকা ছেড়েছে দার্জিলিং-সিকিমগামী ২ বাস

December 12, 2019 | 9:54 pm

সাব্বির আহমেদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা থেকে প্রথমবারের মতো ভারতের দার্জিলিং ও সিকিমের পথে রওনা হয়েছে বাংলাদেশের প্রথম দুই বাস। সিকিম ও দার্জিলিংয়ের পাঁচদিনের সফর শেষে ১৬ ডিসেম্বর আবার দেশের পথে রওনা দেবে বাস দুটি।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার বিআরটিসির গাবতলী বাস টার্মিনাল থেকে রাত নয়টার দিকে বাস দুটি দার্জিলিং ও সিকিমের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। বাসে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ও কারিগরি টিম রয়েছে। তারা সরাসরি বাস চলাচলের সম্ভাব্যতা যাচাই করবেন।

এদিকে কাল বাংলাদেশের বাংলাবান্ধা সীমান্ত পার হওয়ার পর শিলিগুড়ি থেকে ভারতীয় প্রতিনিধি দল এই পরীক্ষামূলক যাত্রায় যুক্ত হবে। এরপর খুব দ্রুত ঢাকা থেকে পর্যটকরা সরাসরি বাসে করে সিকিম যেতে পারবেন। যদিও ১২ ডিসেম্বরের যাত্রাটি হবে ট্রায়াল রান। তবে এই যাত্রার ওপরই নির্ভর করবে এই রুটে নিয়মিত বাস চলাচল।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) চেয়ারম্যান এহছানে এলাহী সারাবাংলাকে বৃহস্পতিবার বিকেলে বলেন, ‘রাতে দুটি বাস সিকিম ও দার্জিলিংয়ের পথে রওনা দেবে। পাঁচদিনের সফর শেষে ১৬ ডিসেম্বর ফের ঢাকার পথে রওনা দেবে বাস দুটি। মূলত ঢাকা থেকে সিকিম যাওয়ার রুটের বর্তমান অবস্থা, পর্যটক সুবিধা ও নিয়মিত বাস চালু করতেই এই ট্রায়াল রান।’

ঢাকা থেকে বাংলাবান্ধার দূরত্ব প্রায় ৫০০ কিলোমিটার, ঢাকা থেকে শিলিগুড়ির দূরত্ব ৫২০ কিলোমিটার। সেখান থেকে সিকিমের গ্যাংটকের দূরত্ব আরও ১২০ কিলোমিটার। পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিংয়ের দূরত্বও প্রায় একই।

বিআরটিসি সূত্র জানায়, ঢাকা থেকে সিকিম-দার্জিলিংয়ে প্রথম যাত্রার সঙ্গী শ্যামলী এন আর ট্রাভেলসের দুটি হুন্দাই বাস। এই বাসগুলো বাংলাদেশের সীমানা পেরিয়ে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে ১৩ ডিসেম্বর প্রথমে ভারতের শিলিগুড়ি পৌঁছবে। এরপর ওইদিনই দার্জিলিং যাবে বাস বহর। দার্জিলিং অংশটুকু ভারতীয় মিনিবাসে যাওয়া হবে। ১৪ ডিসেম্বর দার্জিলিং থেকে পাহাড়ি পথে তিস্তা ব্রিজ পর্যন্ত পৌঁছে আবার বাংলাদেশি বাসে সিকিমের রাজধানী গ্যাংটকে যাওয়া হবে। ১৫ ডিসেম্বর সিকিমে অবস্থান করে শেষদিন ১৬ ডিসেম্বর গ্যাংটক থেকে ঢাকার পথে রওনা হবে বাস দুটি।

শ্যামলী এন আর ট্রাভেলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শুভঙ্কর ঘোষ রাকেশ জানান, তারা প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ট্রায়াল রানের ঠিক পরপরই ঢাকা থেকে নিয়মিত সিকিম-দার্জিলিং রুটে বাস চালানোর চেষ্টা করবেন তারা।

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য সিকিম। পূর্ব হিমালয় পর্বতশ্রেণির শিলালিক পর্বতে ১৪৩৭ মিটার উচ্চতায় হিম বরফে মোড়া শহর সিকিমের গ্যাংকট। এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর হিমালয় পর্বতমালার সুউচ্চ শিখরগুলোর আঁকাবাঁকা পথের সৌন্দর্য পর্যটকদের দারুণ পছন্দ। ইউরোপীয় দেশগুলোর মতো বরফাচ্ছাদিত পাহাড়ভূমির নজরকাড়া শুভ্রতার দেখা মেলে সিকিমেও। এজন্য প্রকৃতিপ্রেমীদের অন্যতম এক পর্যটন গন্তব্য সিকিম।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশি পর্যটকরা সিকিমে যেতে পারতেন না। এ বছরই বাংলাদেশের পর্যটকদের উন্মুক্ত হয়েছে সিকিম। আর সেই সিকিমেই এবার সরাসরি ঢাকা থেকে বাস চালুর উদ্যোগ নিয়েছে বিআরটিসি। চলতি বছরের শুরু থেকেই এ উদ্যোগ নেওয়া হলেও তা বাস্তবায়িত হচ্ছে বছর শেষে।

সারাবাংলা/এসএ/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন