বিজ্ঞাপন

দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাত, প্লাস্টিক কারখানায় কর্মচারী খুন

October 28, 2020 | 3:17 am

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: রাজধানীর চকবাজার খাজেদেওয়ান প্রথম লেন প্লাস্টিক কারখানায় দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে ইলিয়াস (২৫) নামে এক কর্মচারী নিহত হয়েছে। একই ঘটনায় সেলিম রেজা (২৫) নামে এক নির্মাণ শ্রমিক আহত হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) রাতে এ ঘটনা ঘটে। ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের দু’জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত ইলিয়াসকে মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত ইলিয়াস মাগুরা সদর উপজেলার গোলাম নবীর ছেলে। খাজেদেওয়ান প্রথম লেনের ওই কারখানার ওপরেই একটি ঘরে থাকতেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

ইলিয়াসের চাচাত ভাই আইয়ুব আলী সারাবাংলাকে বলেন, খাজেদেওয়ান প্রথম লেনের ৩৮/২ নম্বর হোল্ডিংয়ে অবস্থিত ‘আফসার প্লাস্টিক’ নামে একটি কারখানায় কাজ করত ইলিয়াস। রাতে প্লাস্টিক কারখানার ভেতরে এক দুর্বৃত্ত ঢুকে ইলিয়াস ও সেলিম রেজাকে ছুরিকাঘাত করে। তবে কী কারণে তাদের ছুরিকাঘাত করছে, সে বিষয়ে কিছু বলতে পারছি না।

আহত সেলিম রেজাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। সেলিম রেজার সহকর্মী মো. জামাল জানান, তারা ওই এলাকাতেই একটি নির্মাণাধীন ভবনে রাজমিস্ত্রি হিসেবে কাজ করেন। থাকেন ওই একই ভবনে। রাতে ঘটনাস্থলের ওই ভবনে কিছু মালামাল আনতে গিয়েছিলেন সেলিম। ভবনের নিচ তলায় ঢুকতেই এক দুর্বৃত্ত তাকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে।

বিজ্ঞাপন

চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ (পরিদশর্ক) মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, ইলিয়াছের বুকের ডান পাশে ও হাতে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন ছিল। হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছিল। এখানে আনার পরপরিই চিকৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে ময়নাতদন্তের জন্য তার মরদেহ ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে।

বাচ্চু মিয়া আরও বলেন, একই স্থান থেকে আসা সেলিম রেজার বাম হাতে ও বাম ‍উরুতে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন আছে। জরুরি বিভাগে তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতের ঘটনা সম্পর্কে জানতে যোগাযোগ করলে চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুত হাওলাদার সারাবাংলাকে বলেন, প্লাস্টিক কারখানার ভেতরে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় দু’জন আহত হয়েছেন বলে জেনেছি। দু’জনকেই হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল। একজন মারা গেছেন। আরেকজন চিকিৎসাধীন আছেন। কে বা কারা তাদের ছুরিকাঘাত করেছে, তা জানার চেষ্টা চলছে।

সারাবাংলা/এসএসআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন