বিজ্ঞাপন

নন্দীগ্রামে মমতাকে ৫০ হাজার ভোটে হারাতে চান শুভেন্দু

January 19, 2021 | 7:07 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নন্দীগ্রামে দাঁড়িয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন দলত্যাগী নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে।

বিজ্ঞাপন

তার ফলশ্রুতিতে, সোমবারই (১৮ জানুয়ারি) মমতার ভোটব্যাংক হিসেবে পরিচিত দক্ষিণ কলকাতায় দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন শুভেন্দু।

শুভেন্দু বলেছেন, নন্দীগ্রাম থেকে অন্তত ৫০ হাজার ভোটে মমতাকে হারাতে না পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেবেন তিনি। খবর ডয়চে ভেলে।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন - পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন: নন্দীগ্রাম থেকে লড়বেন মমতা

এদিকে, দুই দশকেরও বেশি সময়ে মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে রাজনীতি করেছেন শুভেন্দু। নন্দীগ্রামে তিনিই ছিলেন মমতার মূল সেনাপতি। সেই শুভেন্দুই এখন বিরোধী শিবির বিজেপিতে। সোমবার নন্দীগ্রামে সভা করতে গিয়ে মমতা বলেছিলেন, নন্দীগ্রাম আসনে শুভেন্দুর বিপরীতে তিনি নিজেই লড়বেন।

বিজ্ঞাপন

এর কয়েক ঘণ্টা পর, মমতা ব্যানার্জির ভোটব্যাংক দক্ষিণ কলকাতায় দাঁড়িয়ে শুভেন্দু জানিয়ে দেন, মুখ্যমন্ত্রীর চ্যালেঞ্জ তিনি গ্রহণ করছেন। বিজেপি মমতাকে অন্তত ৫০ হাজার ভোটে হারাবে। অন্যথা হলে শুভেন্দু রাজনীতি ছেড়ে দেবেন।

শুভেন্দু বিকেলের সভায় বলেছিলেন, বিজেপি একটি রেজিমেন্টেড দল। ফলে নন্দীগ্রামে কে দাঁড়াবেন, তা দল স্থির করবে। তবে, যিনিই পদ্মফুলের প্রতীকে দাঁড়াবেন, তিনিই মমতাকে ৫০ হাজার ভোটে হারাবেন। এটাই তার চ্যালেঞ্জ।

বিজ্ঞাপন

রাতে অবশ্য নন্দীগ্রামে নিজের দাঁড়ানোর বিষয়টি খানিকটা স্পষ্ট করে এক টুইটার বার্তা প্রকাশ করেন শুভেন্দু। টুইটে তিনি লিখেছেন, স্বাগতম দিদি। ২১ বছর সঙ্গে ছিলাম। এবার‌ নন্দীগ্রামে সামনা-সামনি দেখা হবে।

যদিও, বিজেপি এ বিষয়ে মুখ খুলতে রাজি হয়নি। এ ব্যাপারে রাজ্য বিজেপির সহসভাপতি রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, প্রার্থী বাছাই করার সময় এখনো আসেনি। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এবং রাজ্য নেতৃত্ব আলোচনা করে প্রার্থী ঠিক করবেন। এখনই এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করার অর্থ হয় না।

বিজ্ঞাপন

তবে বিজেপির অভ্যন্তরীণ কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, নন্দীগ্রাম থেকে শুভেন্দুই প্রার্থী হবেন, তা মোটের ওপর নিশ্চিত। মমতার বক্তৃতার পরে শুভেন্দু যদি সেখানে না দাঁড়ান, তাহলে জনসাধারণের কাছে খুব ভালো বার্তা যাবে না। ফলে শুভেন্দুকে চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে নন্দীগ্রামেই দাঁড়াতেই হবে।

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন