বিজ্ঞাপন

পোশাককর্মীদের অবরোধে পুলিশের লাঠিচার্জ, টিয়ারশেল-রাবার বুলেট

March 23, 2021 | 9:46 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম নগরীতে বকেয়া মজুরির দাবিতে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন। এ সময় পুলিশ লাঠিচার্জের পাশাপাশি টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছুড়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে অন্তঃত আট জন শ্রমিক আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) সকালে নগরীর চান্দগাঁও থানার কালুরঘাট বিসিক শিল্প এলাকায় ‘আনোয়ারা লিগেসি’ নামে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। তবে বিক্ষোভের পর সন্ধ্যা থেকে কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বকেয়া মজুরি পরিশোধ শুরু করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কারখানায় প্রায় সাড়ে ৩ হাজার শ্রমিক আছে। তারা গত ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন পাননি। কারখানার কর্মকর্তাদের বেতন দুতিন মাস ধরে বকেয়া আছে। সোমবার তাদের বকেয়া পাওনা পরিশোধের কথা ছিল। কিন্তু না দিয়ে মঙ্গলবার দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার সকালে কারখানায় গিয়ে শ্রমিকরা বকেয়া মজুরি পাবার কোনো সম্ভাবনা না দেখে বিক্ষোভ শুরু করেন। প্রথমে কারখানায় বিক্ষোভের পর সকাল ১০টার দিকে তারা সড়কে নেমে আসেন। বিসিক শিল্প এলাকার ভেতরে সড়কে অবস্থান নিয়ে তারা বিক্ষোভ শুরু করেন। এরপর পুলিশ তাদের লাঠিচার্জ শুরু করলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।

চান্দগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোস্তাফিজুর রহমান সারাবাংলাকে বলেন, ‘কয়েক’শ শ্রমিক প্রথমে কারখানায় বিক্ষোভ করে। পরে তারা সড়কে এসে অবস্থান নেয়। সেখানে শিল্প পুলিশ ছিল। শ্রমিকরা গাড়ি চলাচল বন্ধ করতে চাইলে শিল্প পুলিশ বাধা দেয়। তখন ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। একপর্যায়ে শিল্প পুলিশের সদস্যরা কয়েক রাউন্ড ফাঁকা টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট ছুঁড়ে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়। এখন অবশ্য পরিস্থিতি ঠাণ্ডা আছে। সন্ধ্যা থেকে কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বকেয়া যা পাওনা ছিল সেগুলো পরিশোধ করছে।’

বিজ্ঞাপন

শ্রমিকদের অভিযোগ, ‍পুলিশের লাঠিপেটায় কমপক্ষে আট জন শ্রমিক আহত হয়েছেন। তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

চমেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে কর্তব্যরত নায়েক হামিদুর রহমান জানিয়েছেন, আহত অবস্থায় চারজনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/এমআই

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন