বিজ্ঞাপন

ভোটের দোলায় দুলছে নন্দীগ্রাম

May 2, 2021 | 3:31 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের ভোট গণনা চলছে। রাজ্যের ক্ষমতায় ফের তৃণমূল কংগ্রেস আসছে, সে ব্যাপারটি এক অর্থে নিশ্চিতই হয়ে গেছে। সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী তৃণমূল ২০৬ আসনে এগিয়ে, যেখানে জয়ের জন্য দরকার ১৪৮ আসন। এখন কেবল আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসা বাকি।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু, বাংলার মানুষের চোখ আটকে আছে নন্দীগ্রামে। ভোটের দোলায় দুলছে নন্দীগ্রাম। কলকাতার আসন ছেড়ে দিয়ে নন্দীগ্রাম থেকে লড়ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তার প্রতিদ্বন্দ্বী এক সময়কার ঘনিষ্ঠ সহচর, বর্তমানে দলত্যাগী শুভেন্দু অধিকারী। নন্দীগ্রামের ভোট গণনায় ওঠানামা চলছে।

এ ব্যাপারে কলকাতা থেকে প্রকাশিত আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, স্থানীয় সময় দুপুর দুইটায় শুভেন্দুকে পেছনে ফেলেছিলেন মমতা কিন্তু মাত্র ২৫ মিনিটের ব্যবধানে ফের এগিয়ে গেছেন শুভেন্দু।

বিজ্ঞাপন

এবার নির্বাচনের আগে মমতাকে ৫০ হাজার ভোটে হারানোর চ্যালেঞ্জ দিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তৃণমূলনেত্রী কলকাতায় নিজের আসন ছেড়ে নন্দীগ্রামে দাঁড়িয়ে সে চ্যালেঞ্জ গ্রহণও করেন।

ভারতীয় পত্রিকাগুলো বলছে, পশ্চিমবঙ্গের দুইবারের মুখ্যমন্ত্রী শেষ পর্যন্ত এই আসনে হেরে গেলে ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে তাকে ঘিরে বিরোধীদের বৃহত্তর জোটের যে পরিকল্পনা দানা বাঁধছিল, তা মুখ থুবড়ে পড়বে বলে অনেকে আশঙ্কা করছেন।

বিজ্ঞাপন

কেবল তাই নয়, মমতা যদি হেরেই যান, আর তার দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়, সেক্ষেত্রে তৃণমূল কাকে মুখ্যমন্ত্রী করবে তা নিয়েও শুরু হয়েছে জল্পনা।

ভারতের সংবিধান অনুযায়ী, নির্বাচিতদের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ যাকে তাদের নেতা হিসেবে নির্বাচিত করবে, তিনিই পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হবেন। মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিতদের কেউ না হলে ১৮০ দিনের মধ্যে তাকে কোনো একটি আসন থেকে জিতে আসতে হবে। তা না পারলে ছেড়ে দিতে হবে পদ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন