বিজ্ঞাপন

ভ্যাকসিনের কোনো অভাব আমাদের হবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

November 1, 2021 | 1:25 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ভ্যাকসিনের কোনো অভাব আমাদের হবে না। দেশে যার যার প্রয়োজন সবার জন্য ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই অনুপ্রেরণায় আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমরা ২১ কোটি ভ্যাকসিন ক্রয় করেছি। এই ভ্যাকসিন কিনতে হাজার হাজার কোটি টাকা লেগেছে। আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মাধ্যমেও ভ্যাকসিন পেয়ে যাচ্ছি। সেখানেও প্রায় ৭ কোটি ভ্যাকসিনের প্রতিশ্রুতি আছে। কাজেই ভ্যাকসিনের কোনো অভাব হবে না।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

জাহিদ মালেক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমরা স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন প্রয়োগ করার কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। ইতোমধ্যে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়াদের ভ্যাকসিন দেওয়া প্রায় সমাপ্ত হয়ে আসছে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সি স্কুল শিক্ষার্থী্দের যেন ভ্যাকসিন দেওয়া হয়— এমনটা তাদের অভিভাবকদের চাহিদা ছিল। ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য আগ্রহ ছিল শিক্ষার্থীদেরও। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমরা তাদেরও ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি।

তিনি আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্র সরকার নিজেদের দেশে শিশুদের যে ভ্যাকসিন দিচ্ছে, সেটাই বাংলাদেশকে দিয়েছে। আমরা সেটি শিক্ষার্থীদের দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি। আমাদের হাতে অনেক ভ্যাকসিন রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা ফাইজারের ৯৬ লাখ ভ্যাকসিন পেয়েছি, হাতে আছে আরও ৮২ লাখ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে তারা আগামীতে আরও ফাইজার ও মডার্নার ভ্যাকসিন দেবে। উপজেলা পর্যায়েও ফাইজারের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, ১২-১৭ বছর বয়সি শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন দিতে প্রয়োজন তিন কোটি ডোজ ভ্যাকসিন। ইতোমধ্যে আমাদের দুই কোটি ভ্যাকসিন নিশ্চিত করা আছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আরও বেশি পরিমাণে ফাইজার ও মডার্নার ভ্যাকসিন দেবে আমাদের।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, গত ১৪ অক্টোবর মানিকগঞ্জের সদর উপজেলার চারটি স্কুলের ১২ থেকে ১৭ বয়সী ১২০ জনকে পরীক্ষামূলকভাবে ভ্যাকসিন দেওয়া হয় কর্নেল মালেক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে।

শিশুদের ভ্যাকসিন প্রয়োগের এই কার্যক্রম উদ্বোধন করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের প্রয়োগের উপযোগী ৬০ লাখ ভ্যাকসিন আমাদের হাতে আছে। এর মধ্য থেকে প্রাথমিকভাবে ৩০ লাখ শিক্ষার্থীকে ভ্যাকসিন আমরা দেব।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. লোকমান হোসেন মিয়া অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মাহবুব হোসেন, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. খুরশীদ আলমসহ অন্যান্যরা।

সারাবাংলা/এসবি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন