বিজ্ঞাপন

স্ত্রীকে খুন করে আত্মহত্যার নাটক, স্বামীর ফাঁসির আদেশ

December 12, 2021 | 6:00 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম নগরীতে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে খুন করে আত্মহত্যার নাটক সাজিয়েছিলেন। তবে সে নাটক ধরা পড়ে যাওয়ায় পার পেলেন না স্বামী। আদালত তাকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

রোববার (১২ ডিসেম্বর) চট্টগ্রামের সপ্তম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ফেরদৌস আরা এ রায় দিয়েছেন।

দণ্ডিত মো. রিয়াজ হোসেন ও তার স্ত্রী হত্যার শিকার রুমা বেগমের বাড়ি পিরোজপুর জেলায়। চাকরির সুবাদে থাকতেন চট্টগ্রাম নগরীর পতেঙ্গা থানা এলাকায়।

বিজ্ঞাপন

ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলী খন্দকার আরিফুল আমিন সারাবাংলাকে জানান, ঘটনার দুই বছর আগে রিয়াজ ও রুমার বিয়ে হয়। চট্টগ্রাম শহরের পতেঙ্গা থানা এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। ২০১৪ সালের ৯ জানুয়ারি সকালে রুমা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে রিয়াজ স্বজনদের জানান। রুমার চাচাতো ভাই এসে তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

আত্মহত্যার বিষয়টি নিয়ে রুমার চাচাতো ভাইয়ের সন্দেহ হয়। তিনি থানায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর সংবাদ দেন। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে খুন প্রমাণ হওয়ার পর ২০১৪ সালের ৩ মার্চ রুমার বাবা সিরাজুল হক বাদী হয়ে রিয়াজের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। অভিযোগপত্র দাখিল ও অভিযোগ গঠনের পর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও চিকিৎসকসহ ছয় জন সাক্ষীর সাক্ষ্য নিয়ে আদালত আসামি রিয়াজ হোসেনের উপস্থিতিতে এ রায় দিলেন। রায়ে রিয়াজ হোসেনকে মৃত্যুদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন বিচারক।

বিজ্ঞাপন

পিপি আরিফুল আমিন বলেন, ‘ছয় জন সাক্ষীর মধ্যে তিন জনকে বৈরী ঘোষণা করতে হয়েছে। কারণ তারা ঘটনার সঙ্গে সঙ্গতিবিহীন তথ্য দিয়ে আদালতকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছিলেন। এমনকি বিচার চলাকালে ভিকটিমের বাবা সিরাজুল হকও আসামির সঙ্গে আপস করেছেন মর্মে আদালতের কাছে প্রতীয়মান হয়েছে। এ কারণে আদালত জরিমানার ৫০ হাজার টাকা ট্রাইব্যুনালে জমা দেওয়ার পর সেটি বাবার পরিবর্তে অন্য স্বজন, যারা হত্যাকাণ্ডের বিচারের পক্ষে কঠোর অবস্থান নিয়েছিলেন, তাদের দেওয়ার আদেশ দিয়েছেন।’

সারাবাংলা/আরডি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন