বিজ্ঞাপন

গতবার বিশ্বকাপ জিতেছি, এবার কেন নয়: রাকিবুল

January 14, 2022 | 12:19 pm

.

যুব ক্রিকেটে চলছে ব্যস্ততম সময়। মাত্রই শেষ হলো যুব এশিয়া কাপ। তাতে অবশ্য সেমিফাইনালে ভারতের কাছে হেরে গেছে বাংলাদেশ। এখন দরজায় যুব বিশ্বকাপ। বাংলাদেশ টুর্নামেন্টের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন। শিরোপা ধরে রাখার চাপটা তাই থাকছে। তবে সেই চাপকে বড় কিছুও মনে করছে না দল। করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘ সময় ক্রিকেটের বাইরে থাকলেও যুব এশিয়া কাপ দিয়ে প্রস্তুতিটা খারাপ হয়নি। ওই সেমিফাইনালের ম্যাচ বাদে বাকি সবগুলো ম্যাচেই দলের পারফরম্যান্স ছিল দুর্দান্ত।

বিজ্ঞাপন

সব মিলিয়ে দলের প্রস্তুতিটা কেমন হলো, যুব বিশ্বকাপে দল কেমন করবে— এসব বিষয় নিয়েই কথা হয় যুব ক্যাপ্টেন রাকিবুল হাসানের সঙ্গে। করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে তার সঙ্গে দীর্ঘ আলাপটা হয় মোবাইল ফোনে। গতবারের বিশ্বকাপজয়ী দলে যে চার জন এবারের দলেও আছেন, তাদেরই একজন তিনি। এই স্পিনার সারাবাংলাকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে বলছেন— গতবার বিশ্বকাপ জিততে পারলে এবার নয় কেন! যুবা ক্যাপ্টেন রাকিবুলের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সারাবাংলার নিউজরুম এডিটর শামিম হোসেন শিশির। আলাপচারিতার চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো পাঠকদের জন্য—

সারাবাংলা: বিশ্বকাপজয়ী দলের অংশ ছিলেন গতবার। এবার আপনিই দলের অধিনায়ক। দল নিয়ে কতটুকু আশাবাদী?
রাকিবুল: আমরা সবশেষ যে দুই-তিনটি সিরিজ খেলেছি, এর মধ্যে ভারত সফরও করেছি। আমরা অনেক ভালো খেলেছি। সব মিলিয়ে অনেক আত্মবিশ্বাসী আমরা। আমরা একটা প্রসেস ধরে এগিয়ে যাব। সেদিকেই ফোকাস করছি। ম্যাচ ধরে ধরে এগুতে চাই। আমি মনে করি, আমরা আমাদের সেরা ক্রিকেটটা খেলতে পারলে এবং মাঠে প্রসেসগুলো কাজে লাগাতে পারলে ভালো কিছুই হবে ইনশাআল্লাহ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা: করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে অনেকদিন ক্রিকেটের বাইরে ছিল যুব দল। এবারের প্রস্তুতি কেমন হলো?
রাকিবুল: আসলে করোনার জন্য সবকিছুই তো বন্ধ ছিল। আমরাও সেভাবে খেলতে পারিনি। তবে গত কয়েকটি সিরিজে আমাদের প্রস্তুতি কিন্তু ভালোই হয়েছে। ভারত সফরে (যুব এশিয়া কাপের আগে) আমাদের ভালো প্রস্তুতি হয়েছে।

সারাবাংলা: অধিনায়ক হিসেবে এবার কী পরিকল্পনা থাকছে?
রাকিবুল: আমি গতবার একজন স্পিনার হিসেবে দলে ছিলাম। তখন সেই দায়িত্বটাই ভালোভাবে পালন করার চেষ্টা করেছি। এবারও আমি আমার বোলিং নিয়েই কাজ করছি। আর অধিনায়কত্ব সম্প্রতি পেয়েছি। আমি উপভোগ করছি। আমাদের জন্য দোয়া করবেন যেন আমরা ভালো করতে পারি।

বিজ্ঞাপন

গতবার বিশ্বকাপ জিতেছি, এবার কেন নয়: রাকিবুল

সারাবাংলা: আপনিসহ গত বিশ্বকাপজয়ী স্কোয়াডের কয়েকজন আছেন এবারের বিশ্বকাপ দলে। তাদের অভিজ্ঞতা কতটা কাজে লাগবে বলে মনে করছেন?
রাকিবুল: অবশ্যই ভূমিকা রাখবে। গত বিশ্বকাপ খেলা যে চার জন আছি এবারের বিশ্বকাপ দলে, আমরা চেষ্টা করছি অন্যদের সঙ্গে আমাদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করার। কীভাবে আরও ভালো করা যায়, কীভাবে প্রেশার হ্যান্ডেল করা যায়— এসব বিষয় আমরা বলছি। আমার মনে হয় সিনিয়র-জুনিয়র মিলিয়ে ভালো কম্বিনেশন হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা: গত যুব বিশ্বকাপ জেতা বাংলাদেশ স্কোয়াডের সঙ্গে এই বিশ্বকাপের স্কোয়াডের পার্থক্য কতটা বলে মনে করছেন?
রাকিবুল: আমাদের গতবারের দলটা খুব ভালো ছিল। যখন যেমন পারফরম্যান্স লেগেছে তখন তেমনই করেছি। আর আমাদের এই দলটাও খুব ভালো আছে। দলগত পারফরম্যান্সকে সামনে রেখে এগুচ্ছি আমরা। এই দলে গতবারের দলের চেয়ে বেশি অলরাউন্ডার আছে। আমি মনে করি, এটি আমাদের এগিয়ে রাখবে।

সারাবাংলা: এবারের যুব বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রত্যাশা কী থাকবে?
রাকিবুল: প্রস্তুতির দিক থেকে আমরা মোটামুটি সন্তুষ্ট। সেই অর্থে আমরা ভালো প্রস্তুতি নিয়েই বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছি। এখন আমরা যদি সবাই নিজের সেরাটা দিয়ে খেলতে পারি, যে প্রসেসগুলো আমরা বিবেচনায় নিয়েছি সেগুলো যদি মাঠে অ্যাপ্লাই করতে পারি, তাহলে ভালো কিছুই হবে। বিশ্বকাপে আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ আগাব এবং ভালো একটা ফলাফল নিয়ে আসব ইনশাআল্লাহ।

বিজ্ঞাপন

গতবার বিশ্বকাপ জিতেছি, এবার কেন নয়: রাকিবুল

সারাবাংলা: ভালো ফলকে যদি সুনির্দিষ্ট করতে চাই— যেমন গত বিশ্বকাপের আগে বলা হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন হতে চায় বাংলাদেশ...
রাকিবুল: দেখুন, আমরা যদি ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি তাহলে সবকিছুই সম্ভব। গতবার (চ্যাম্পিয়ন) হলে এবার হবে না কেন? তবে চ্যাম্পিয়ন নয়, আমাদের ফোকাস খেলায়, আমাদের পারফরম্যান্সে। যদি সেটি ফুলফিল করতে পারি তাহলে নিশ্চয় ভালো একটা ফল আনতে পারব ইনশাআল্লাহ।

সারাবাংলা: গত যুব বিশ্বকাপ খেলা তিন জনের (শরিফুল ইসলাম, শামীম হোসেন পাটোয়ারী, মাহমুদুল হাসান জয়) এরই মধ্যে জাতীয় দলে অভিষেক হয়েছে। এ ক্ষেত্রে আপনার কোনো প্রত্যাশা বা লক্ষ্য আছে?
রাকিবুল: ওরা জাতীয় দলে খেলছে— এটি খুব চমৎকার একটি বিষয়। খুবই ভালো লাগে। সবাই আমার খুবই ভালো বন্ধু। আমার প্রত্যাশা— ওরা আরও ভালো খেলুক, দেশের জন্য আরও বড় বড় অর্জন বয়ে আনুক। আমার নিজের কথা যদি বলি— আমি এখন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে খেলছি। এখানে আরও ভালো করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। জাতীয় দল নিয়ে কোনো তাড়াহুড়ো নেই। তবে আমি নিজেকে এমনভাবে তৈরি করতে চাই যেন জাতীয় দলের হয়ে দীর্ঘ সময় ধরে খেলতে পারি।

সারাবাংলা: সারাবাংলাকে সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। যুব বিশ্বকাপের জন্য শুভকামনা।
রাকিবুল: আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ। সেই সঙ্গে বিশ্বকাপের জন্য সবার কাছে দোয়াপ্রার্থী।

সারাবাংলা/এসএইচএস/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন