বিজ্ঞাপন

ওমিক্রন রোধে নতুন ক্লিনিক্যাল গাইডলাইন পাঠানো হয়েছে হাসপাতালে

January 26, 2022 | 10:10 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের কারণে দেশে সংক্রমণ বাড়ছে। এমন অবস্থায় ওমিক্রন প্রতিরোধে এরই মধ্যে ক্লিনিক্যাল গাইডলাইন চূড়ান্ত করা হয়েছে। স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকে এই গাইডলাইন পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মুখপাত্র ও সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম বুধবার (২৬ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান।

ডা. নাজমুল বলেন, দেশে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন ছড়িয়ে গেছে। বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, এই ওমিক্রনের কারণেই দেশে সংক্রমণ এতটা বেড়ে গেছে। ওমিক্রন রোধে ক্লিনিক্যাল গাইডলাইন আমরা তৈরি করেছি, সেটি চূড়ান্তও হয়েছে। সব হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে গাইডলাইনটি পাঠানো হয়েছে। ওমিক্রন নিয়ে নতুন নতুন যেসব তথ্য রয়েছে, সেগুলোর আলোকেই সাজানো হয়েছে গাইডলাইনটি।

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, রোগ নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাই হলো করোনা সংক্রমণ রোধের বিজ্ঞানভিত্তিক সঠিক পন্থা। এজন্য আমাদের সঠিকভাবে মাস্ক পরতে ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে।

শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিনের সংকটের বিষয়ে অধ্যাপক ডা. নাজমুল বলেন, কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই ভ্যাকসিনের সংকট নেই। আমাদের হাতে পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন রয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে আমাদের কাছে যদি চাহিদা পাঠিয়ে দেওয়া হয়, আমরা সে অনুযায়ী ভ্যাকসিন পাঠিয়ে দেবো। ভ্যাকসিনের কোনো সংকট দেশে নেই।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য অধিদফতরের এই কর্মকর্তা বলেন, গত সাত দিনে বাংলাদেশে করোনা রোগীর সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে। জানুয়ারি মাসের ১৯ তারিখে আমরা ৯ হাজার ৫০০ জন রোগীকে শনাক্ত করেছিলাম। তখন নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ছিল ২৫ শতাংশের কিছুটা বেশি। ২৫ জানুয়ারি এসে সেই শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ৪০ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। রোগীর সংখ্যা ৯ হাজার থেকে বেড়ে ১৬ হাজারে এসেছে।

তিনি আরও বলেন, ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসের এ সময়ে আমরা মোট করোনা সংক্রমণ পেয়েছিলাম ২১ হাজার ৬২৯ জন, কিন্তু ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসে এসে এক লাখ ৩০ হাজারের বেশি করোনা সংক্রমণ পেয়েছি।

বিজ্ঞাপন

এ পরিস্থিতিতে সবাইকে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করার আহ্বান জানান তিনি। একইসঙ্গে সরকারের পক্ষ থেকে যেসব বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে, সেগুলোও অনুসরণ করার আহ্বান জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের এই কর্মকর্তা।

সারাবাংলা/এসবি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন