বিজ্ঞাপন

‘স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে স্টার্টআপদের ভূমিকা রয়েছে’

April 19, 2022 | 7:41 pm

সিনিয়র করেসপসেন্ডন্ট

ঢাকা: স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে স্টার্টআপদের ভূমিকা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম। আইসিটি বিভাগের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) আওতায় ‘উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ (আইডিইএ) প্রকল্পের আওতায় স্টার্টআপদের নিয়ে একটি কর্মশালায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১৮ এপ্রিল) রাজধানীর আইসিটি টাওয়ারে অবস্থিত আইডিয়া প্রকল্পের কার্যালয়ে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

‘আইডিয়া পোর্টফোলিও স্টার্টআপস লেসনস অ্যান্ড ওয়ে ফরওয়ার্ড’ শীর্ষক কর্মশালায় আইডিয়া প্রকল্পের অনুদানপ্রাপ্ত স্টার্টআপদের মধ্য থেকে ১৮টি উদীয়মান স্টার্টআপের প্রতিষ্ঠাতারা অংশ নেন। কর্মশালায় স্টার্টআপগুলো তাদের অনুদান গ্রহণের পর থেকে এ পর্যন্ত তাদের অর্জন, ব্যবসায়ের অবস্থা, সীমাবদ্ধতা, চ্যালেঞ্জ ইত্যাদি বিষয় তুলে ধরেন। একইসঙ্গে স্টার্টআপদের থেকে আইডিয়া প্রকল্প স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গঠনে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শও গ্রহণ করেন, যা ভবিষ্যতে তাদের উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণে অন্যতম ভূমিকা রাখবে।

বিজ্ঞাপন

কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিসিসি নির্বাহী পরিচালক (গ্রেড-১) ড. মো. আব্দুল মান্নান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইডিয়া প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ও যুগ্মসচিব মো. আলতাফ হোসেন। অন্যান্যের মধ্যে আইডিয়া প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক ও উপসচিব ড. মো. মিজানুর রহমানসহ প্রকল্পের পরামর্শক ও কর্মকর্তারা কর্মশালায় অংশ নেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন আইডিয়া প্রকল্পের সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও অপারেশন স্পেশালিস্ট সিদ্ধার্থ গোস্বামী।

স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে স্টার্টআপদের ভূমিকা রয়েছে মন্তব্য করে আইসিটি সচিব জিয়াউল আলম বলেন, আজকের তরুণরা আমাদের শক্তি। তরুণ উদ্ভাবকদের সক্ষমতা বাড়ানোর মাধ্যমে আরও দক্ষ করে গড়ে তুলতে পারলে বাংলাদেশে একটি শক্তিশালী স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গঠন করা সহজ হবে। স্টার্টআপদের এই আয়োজনে অংশ নেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিসিসি নির্বাহী পরিচালক ড. আব্দুল মান্নান বলেন, শুধু দেশেই নয়, সারাবিশ্বে বাংলাদেশের তরুণরা সেবা দিয়ে চলেছে, যা আমাদের জন্য সত্যিই গর্বের বিষয়। লক্ষ্য ঠিক থাকলে ছোট্ট স্টার্টআপ থেকেই বৃহৎ প্রতিষ্ঠানে পরিণত হওয়া সম্ভব। তাই স্টার্টআপ বা উদ্যোক্তাদের কল্যাণে উন্নয়নমূলক কার্যক্রম চলমান থাকবে।

অনুষ্ঠানের সভাপতির বক্তব্যে আইডিয়া প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. আলতাফ হোসেন বলেন, একজন দক্ষ ও সফল উদ্যোক্তার মধ্যে বিশেষ কিছু গুণ থাকে, যার মাধ্যমে তাকে অন্যদের থেকে আলাদা করা যায়। নিজস্ব কিছু গুণাবলি উদ্যোক্তা জন্মগতভাবে লাভ করলেও শিক্ষা, অভিজ্ঞতা, প্রশিক্ষণ, পরামর্শ ইত্যাদির মাধ্যমে তিনি আরও সমৃদ্ধ হয়ে ওঠেন। ফলে ওই স্টার্টআপ বা উদ্যোক্তার উদ্যোগটি সফল হওয়ার পথ আরও সহজ হয়। এ বিষয়গুলোকে প্রাধান্য দিয়েই আইডিয়া প্রকল্প স্টার্টআপদের অনুদান প্রদানের পাশাপাশি মেন্টরিং, প্রশিক্ষণ, কর্মশালাসহ নানা ধরনের সহায়তামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করেছে এবং আগামীতেও তা চলমান রাখবে।

বিজ্ঞাপন

তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক যেকোনো উদ্ভাবনী আইডিয়া নিয়ে আগ্রহী স্টার্টআপদের প্রি-সিড পর্যায়ে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত অনুদানের জন্য আবেদন করতে ভিজিট করতে হবে www.idea.gov.bd।

সারাবাংলা/ইএইচটি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন