বিজ্ঞাপন

বায়োজিদ কিভাবে নাট খুলেছে জানাতে পারেনি সিআইডি

June 27, 2022 | 2:55 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পদ্মা সেতুর নাট বল্টু খোলার অভিযোগে মো. বায়েজিদকে গ্রেফতার দেখিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। তবে বায়োজিদ কিভাবে নাট খুলেছে তা জানাতে পারেনি সিআইডির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২৭ জুন) দুপুরে মালিবাগ সিআইডি কার্যালয়ে এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন সিআইডির (সাইবার ইন্টিলিজেন্স ও রিস্ক ম্যানেজমেন্ট) বিশেষ পুলিশ সুপার মো. রেজাউল মাসুদ।

তিনি বলেন, ‘পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট-বল্টু হাত দিয়ে খোলার কথা নয়। কোনো যন্ত্রাংশ ছাড়া শুধুমাত্র হাত দিয়ে পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খোলা সম্ভব নয়। এটি একটি অন্তর্ঘাতমূলক কাজ। পদ্মা সেতুর আরও যারা নাট-বল্টু খুলেছে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে।’

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘পদ্মা সেতুতে দাঁড়ানো বা ছবি তোলায় নিষেধাজ্ঞা থাকলেও প্রথম দিনে শিথিলতার সুযোগে বায়েজীদ তালহা নামের এক যুবক অসৎ উদ্দেশ্যে খুলে নিয়েছেন পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু যা তার নিজস্ব টিকটক অ্যাকাউন্টে ভাইরাল হয়। আটক বায়েজিদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে। মামলাটির তদন্ত করবে সিআইডি।’

সিআইডির এই কর্মকর্তা বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে মুহূর্তে টিকটকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে যায় যা বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালেও রিপোর্ট হয়। ভিডিওতে দেখা যায় পদ্মাসেতু নিয়ে যুবকটি তুচ্ছ তাচ্ছিল্য এবং ব্যাঙ্গাত্মক অঙ্গভঙ্গি এবং হাসাহাসি করছে।

বিজ্ঞাপন

ভাইরাল ভিডিওতে দেখা গেছে— পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের দুটি নাট খুলে, খোলা নাট হাতে নিয়ে তিনি বলেন, এই হলো পদ্মা সেতু, আমাদের পদ্মা সেতু। দেখো আমাদের হাজার হাজার কোটি টাকার পদ্মাসেতু। এই নাট খুইলা এহন আমার হাতে। এ সময় পাশে থেকে আরেক ব্যক্তি বলেন, 'ভাইরাল কইরা ফালায়েন না।’

রেজাউল মাসুদ আরও বলেন, ‘টিকটিকের ভিডিওটি আপলোড হওয়ার তা সিআইডির সাইবার পুলিশের মনিটরিং টিমের নজরে আসে। সিআইডি সাইবার মনিটরিং টিম দ্রুত যুবককে শনাক্ত করে। এরপর বিকেল চারটায় রাজধানীর শান্তিনগর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।’

বিজ্ঞাপন

তার কোনো রাজনৈতিক পরিচয় আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক পরিচয় থাকতে পারে কিন্তু আমরা তার অপরাধটাকেই গুরুত্ব সহকারে দেখছি।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে বিশেষ পুলিশ সুপার বলেন, ‘নাট বল্টু কী দিয়ে খুলেছে তা এখনও জানা যায়নি। কোনো যন্ত্র ব্যবহার করেছে তা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়নি। তবে তাকে ১০ দিনের আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। রিমান্ড পেলে তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।’

বিজ্ঞাপন

পদ্মা সেতুর কত নম্বর পিলারের নাট বল্টু খুলেছিল জানতে চাইলে রেজাউল মাসুদ বলেন, ‘আমরা এখনও ঘটনাস্থলে যাইনি। কত নম্বর পিলার সেটিও এখনও জানা যায়নি। মামলার তদন্তকালে এ সব বিষয় নিয়ে আসা হবে।’

মামলায় আলামত হিসেবে নাট বল্টু দেখানো হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মামলায় শুধুমাত্র তার ফোনটি ছাড়া আর কোনো আলামত দেখানো হয়নি। নাট বল্টু বায়েজিদের কাছে পাওয়া যায়নি।’

এ ঘটনায় কোনো সিসিটিভি ফুটেজ পেয়েছেন কিনা জানতে চাইলে সিআইডির কর্মকর্তা বলেন, আমরা এখনো সিসিটিভি ফুটেজ উদ্ধার করতে পারিনি। সিসিটিভি ফুটেজ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

ঘটনার পর তড়িঘড়ি করে মামলা করে এবং নাটবল্টু আলামত হিসেবে না দেখিয়ে আসামিকে মামলায় কোনো সুবিধা দেওয়া হচ্ছে কি না, জানতে চাইলে এ কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা অনেক তথ্যই পেয়েছি কিন্তু সব তথ্য গণমাধ্যমের সামনে এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না। যে তথ্যগুলো আমরা শুধু নিশ্চিত হতে পেরেছি সেগুলো আমরা গণমাধ্যমকে বলছি। মামলাটি তদন্তের জন্য সময় রয়েছে। তদন্তে আরও অনেক তথ্য বেরিয়ে আসবে।’

সারাবাংলা/ইউজে/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন