বিজ্ঞাপন

অধিকার পাচ্ছেন সৌদি নারীরা, কমবে বাংলাদেশি চালকের চাহিদা

June 23, 2018 | 1:07 pm

।। আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা: নারীদের গাড়ি চালানোর ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে সৌদি আরব। রোববার থেকে ১৫.১ মিলিয়ন সৌদি নারী স্বাধীনভাবে গাড়ি চালানোর সুযোগ পাবেন। ইতোমধ্যে গাড়ি চালানোর প্রশিক্ষণ ও ড্রাইভিং লাইসেন্স নিতে আগ্রহী হয়েছেন অনেকে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, রিয়াদে বিভিন্ন গাড়ির শো-রুমে তাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। গবেষণা সংস্থা বলছে, আগামী ২০২০ সাল নাগাদ আনুমানিক ৩ মিলিয়ন সৌদি নারীকে রাস্তায় নিয়মিত গাড়ি চালাতে দেখা যাবে।

বিজ্ঞাপন

দেশটির ক্রাউন প্রিন্স সালমানের ভিশন ২০৩০’র অংশ নারীদের গাড়ি চালানোর অধিকার দেওয়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা। তারা বলছেন, যুবরাজের এই পদক্ষেপে নারীদের কর্মক্ষেত্র আরও বিস্তৃত হবে, একইসঙ্গে দেশটির অর্থনীতির পালে নতুন হাওয়া আসবে।

কমে যাবে বিদেশি শ্রমিকদের চাহিদা। বর্তমানে সৌদি আরবে ১.৩৮ মিলিয়ন বিদেশি চালক কর্মরত। এদের অধিকাংশই বাংলাদেশি ও ভারতীয়। ২০৩০ সালের মধ্যে এই সংখ্যা অর্ধেকে নেমে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। তাতে প্রতি বছর সৌদি আরবের সাশ্রয় হবে ২০ বিলিয়ন রিয়াল।

বিজ্ঞাপন

নারীদের গাড়ি চালানোর অধিকার দাবিতে ১৯৯০ সালে প্রথম সৌদি আরবে আন্দোলন শুরু হয়। সে সময় প্রায় ৪৭ জন নারীকে গ্রেফতার করা হয়। ২০১১ সালে, আরব বসন্তে “উইমেন২ড্রাইভ” হ্যাসট্যাগ দারুণ সাড়া ফেলে। মানাল-আল-শেরিফ নামে এক নারী অ্যাক্টিভিস্টকে জেলেও যেতে হয়।

সারাবাংলা/এমআইএস/এটি

বিজ্ঞাপন

** দ্রুত খবর জানতে ও পেতে সারাবাংলার ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন: Sarabangla/

আরও পড়ুন..

বিজ্ঞাপন

প্রথমবারের মতো ড্রাইভিং লাইসেন্স পেলেন ১০ সৌদি নারী

নারী সীমান্তরক্ষী নিয়োগ দেবে সৌদি আরব

অভিবাসী শ্রমিকদের অপার সম্ভাবনা দেখছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন