মঙ্গলবার ২৫ জুন, ২০১৯ ইং , ১১ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ শাওয়াল, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

অ্যাপ নিয়ে রেলমন্ত্রীর দুঃখ প্রকাশ

মে ২২, ২০১৯ | ২:০৬ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: কথা ছিল এবছর রেলসেবা অ্যাপ আর ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ৫০ শতাংশ টিকিট সংগ্রহ করা যাবে। কিন্তু অগ্রীম টিকিট বিক্রির প্রথম দিনেই দেখা গেছে নানা বিপত্তি। সকাল থেকে ই-টিকেটিংয়ের মাধ্যমে অনেকেই টিকিট সংগ্রহ করতে পারেননি।

অ্যাপের মাধ্যমে রেলের কাঙ্ক্ষিত টিকিটসেবা দিতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন।

বুধবার (২২ মে) বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে টিকিট বিক্রি কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মন্ত্রী এই দুঃখ প্রকাশ করেন। রেলের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হওয়ার প্রথম দিনে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে এসে যাত্রীদের খোঁজ খবরও নেন রেলমন্ত্রী।

রেলমন্ত্রী বলেন, ‘অ্যাপসে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সিএনএসের সঙ্গে ২০০৭ সাল থেকে চুক্তি। তারা সেবা দিতে ব্যর্থ হয়েছেন এজন্য তাদের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে আর বাড়ানো হবে না। তবে ব্যর্থতার দায় আমরাও এড়াতে পারি না। আমরা দুঃখিত। শিগগিরই সিএনএসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ও অ্যাপসের মাধ্যমে আসন থাকা সাপেক্ষে অবশিষ্ট টিকিট ২৭ মে বিক্রি করা হবে।’

বিজ্ঞাপন

এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে তিনি টিকিট বিক্রির পরিসংখ্যানও তুলে ধরেন।

নুরুল ইসলাম সুজন জানান, ই-টিকেটিং এ নানা সমস্যার মধ্যেও সকাল থেকে অনলাইনে ১৪ হাজার ৭৫৪টি, অ্যাপসের মাধ্যমে ১ হাজার ৫৫৭ ও মোবাইলে ৫ হাজার ২৮০টি টিকিট বিক্রি হয়েছে। তিনি বলেন, ‘সব মিলিয়ে ভালোই বিক্রি হচ্ছে টিকেট। স্টেশনেও টিকিট প্রত্যাশীদের সংখ্যা অনেক বেশি। টিকিট যেন কোনোভাবেই কালোবাজারি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। কেউ যদি কালোবাজারির সাথে যুক্ত থাকে তাকে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে বিশেষ দিবসগুলোতে পরিবহন সক্ষমতার চেয়েও বেশি যাত্রী থাকে। এজন্য যাত্রী সেবায় জড়িতদের আরো বেশি তৎপর হতে হয়। আমরা চেষ্টা করছি যাত্রীরা যেন নিশ্চিন্তে বাড়ি ফিরতে পারে।’

সারাবাংলা/টিএস/এসএমএন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন