শুক্রবার ২৩ আগস্ট, ২০১৯ ইং , ৮ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২১ জিলহজ, ১৪৪০ হিজরি

বিজ্ঞাপন

অনেক নেতাকর্মী ছবি তুলে দায় সারছেন, অভিযোগ মেয়র নাছিরের

আগস্ট ১৪, ২০১৯ | ৭:৪৫ অপরাহ্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: প্রাণঘাতী ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবের সময় দলের নেতাকর্মীদের অনেকে ‘লোক দেখানো’ মশকনিধন কার্যক্রম চালাচ্ছে বলে হতাশা প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বুধবার (১৪ আগস্ট) বিকেলে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সম্মেলন কক্ষে নগর যুবলীগের একাংশের নেতাদের সঙ্গে ঈদুল আজহা পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে মেয়র একথা বলেন। সন্ধ্যায় আ জ ম নাছির উদ্দীনের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে মেয়রের বক্তব্যের বিষয়টি উল্লেখ করে পোস্ট দেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত যে, গত ১১ আগস্ট চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের মূল অংশটি নগরীতে মশকনিধন কার্যক্রম পরিচালনা করে, যাতে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

এরপর মেয়র যুবলীগের নিজের অনুসারী নেতাদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় তাদের ‘লোক দেখানো’ রাজনীতি বাদ দিয়ে জনমুখী রাজনীতির চর্চা করার নির্দেশনা দেন। মেয়র বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে দেশজুড়ে ডেঙ্গু রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। প্রাণঘাতী এই রোগে অনেকে মারা গেছেন। তবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন জোরদারভাবে মশক নিধনের কাজ করে যাচ্ছে। এতে চট্টগ্রামে সুফল পাওয়া যাচ্ছে। সিটি করপোরেশনের সঙ্গে জেলা প্রশাসন, বিভাগীয় কমিশনারও কাজ করছে। এর ফলে অন্যান্য অঞ্চলের মতো চট্টগ্রামে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব হয়নি।’

বিজ্ঞাপন

‘কিন্তু ডেঙ্গুর এই প্রাদুর্ভাবের সময়ও আমাদের নেতাকর্মীদের অনেককেই দেখা যাচ্ছে শুধু মশকনিধন কার্যক্রমের সঙ্গে ছবি তুলতে। দুঃখজনক হলেও সত্য, অনেক ক্ষেত্রেই তারা ছবি তুলে কাজ সেরেছেন। ডেঙ্গু নিয়ে জনসচেতনতা কার্যক্রমে নেতাকর্মীদের উপস্থিতি তেমন ছিল না, এমন অভিযোগও শোনা গেছে’, বলেন মেয়র।

এসময় মেয়র যুবলীগের চট্টগ্রাম মহানগরের থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিট কমিটিগুলোকে সক্রিয় করার নির্দেশনা দেন।

শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় নগর আওয়ামী যুবলীগ যুগ্ম আহবায়ক দিদারুল আলম, সদস্য কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, আরশাদুর রহমান আসাদ, আবদুর রহিম, লিটন রায় চৌধুরী, বেলায়েত হোসেন রুবায়েত, নগর যুবলীগ নেতা এস এম আলম, ওয়াহিদুল আলম শিমুল, তানভীর আহমেদ রিংকু, সাখাওয়াত হোসেন সাকু, খোরশেদ আলম রহমান, নঈম উদ্দিন খান, তৌহিদ আজিজ, শাহেদ হোসেন টিটু, আতিকুর রহমান আতিক, কাজী শামীম হাবিব রুবেল ছিলেন।

সারাবাংলা/আরডি/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন