রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৭ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

টানা তিন জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯ | ৬:৩৪ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের চলমান আসরে টানা তৃতীয় জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টের একাদশ ম্যাচে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে ৪২ রানে হারিয়েছে টাইগার যুবারা। তিন ম্যাচের সবটিতেই জিতে বাংলাদেশের পয়েন্ট সর্বোচ্চ ৬, গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই সেমি ফাইনালে নামবে লাল-সবুজের জার্সিধারীরা।

বিজ্ঞাপন

শ্রীলঙ্কায় বসা এবারের আসরে বাংলাদেশ খেলছে ‘বি’ গ্রুপে। নিজেদের প্রথম ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ৬ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। পরের ম্যাচে নেপালকে ৪ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে আকবর আলির দলটি।

অন্য গ্রুপে তিন ম্যাচের তিনটিতেই জিতেছে ভারত। আফগানিস্তান তিন ম্যাচের দুটিতে জিতে সেমি ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গেছে পাকিস্তান, কুয়েত, নেপাল আর সংযুক্ত আরব আমিরাত। বাংলাদেশের বিপক্ষে হারলেও সেমিতে উঠেছে শ্রীলঙ্কা। ১২ সেপ্টেম্বর প্রথম সেমিতে ভারতের মুখোমুখি হবে শ্রীলঙ্কা আর বাংলাদেশের মুখোমুখি হতে হবে আফগানিস্তানকে। আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে।

স্বাগতিক লঙ্কানদের বিপক্ষে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশ ৭ উইকেট হারিয়ে তোলে ২৭৩ রান। সেঞ্চুরির দেখা পান ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয়, ব্যাক-টু-ব্যাক ফিফটির দেখা পান সহ-অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয়। জবাবে, ৪৭.৪ ওভারে ২৩১ রান তুলে থামে লঙ্কানদের ইনিংস।

বিজ্ঞাপন

ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ৩০ রানের মাথায় বিদায় নেন ওপেনার তানজিদ হাসান (১৭)। আরেক ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয় খেলেন ১২৬ রানের দারুণ এক ইনিংস। তার ১৪০ বলে সাজানো ইনিংসে ছিল ১২টি চার আর দুটি ছক্কার মার। তিন নম্বরে নামা পারভেজ হোসেন ইমন ১০ রানে বিদায় নেন। তৌহিদ হৃদয় আগের ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও রানের দেখা পেয়েছেন। ৭৫ বলে চারটি বাউন্ডারিতে ৫০ রান করেছেন যুবাদের সহ-অধিনায়ক।

শামিম হোসেন ২২, দলপতি আকবর আলি ১৪, শাহাদাত হোসেন ১২*, মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরি ৪ আর রাকিবুল হাসান ৪* রান করেন। লঙ্কান বোলার দিলশান মাদুশানকা ১০ ওভারে ৫৪ রান দিয়ে পান তিনটি উইকেট। ৯ ওভারে ৩৯ রান খরচায় দুটি উইকেট পান আশিয়ান দানিয়েল।

২৭৪ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে লঙ্কান ওপেনার পারানাভিথানা ১৭ আর কামিল মিশারা ৩৩ রান করেন। রাশান্থা ১৭, আহান ৩৩, দলপতি নিপুন পেরেরা ৩৬, থারিন্দু ২২ রান করেন। শেষ ব্যাটসম্যান হয়ে আউটের আগে রোহান সঞ্জায়া ৩৬ বলে চারটি চার আর দুটি ছক্কায় করেন ৪২ রান।

বাংলাদেশের রাকিবুল হাসান ১০ ওভারে ৪৯ রান দিয়ে তিনটি উইকেট তুলে নেন। ১০ ওভারে ৪৭ রান খরচায় দুটি উইকেট পান আশরাফুল ইসলাম। ১০ ওভারে ৩৯ রান দিয়ে একটি উইকেট পান শামিম হোসেন। শরিফুল ইসলাম ৯ ওভারে ৫০ রানের বিনিময়ে তুলে নেন দুটি উইকেট। ৮.৪ ওভারে ৩৮ রান দিয়ে একটি উইকেট পান মৃত্যুঞ্জয়।

সারাবাংলা/এমআরপি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন