বিজ্ঞাপন

নাম থেকে ‘ফেয়ার’ ঝেড়ে ফেলছে ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি’

June 25, 2020 | 9:24 pm

লাইফস্টাইল ডেস্ক

আমেরিকায় ঝড় তোলা ব্ল্যাক লাইফ ম্যাটার (বিএলএম) আন্দোলনের ঢেউ এসে লেগেছে ভারতেও। এরই জেরে তুমুল সমালোচনার মুখে প্রসাধন ব্র্যান্ড ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি’ থেকে ‘ফেয়ার’ অর্থাৎ ফর্সা শব্দটি বাদ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে হিন্দুস্তান ইউনিলিভার। খবর রয়টার্স ও এনডিটিভি।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) ভারতীয় ইউনিলিভার কর্তৃপক্ষ দীর্ঘদিন ধরেই কালো ও বাদামী ত্বককে নেতিবাচকভাবে দেখানো ত্বকের রঙ ফর্সাকারী এই ব্র্যান্ড নাম বদলের ঘোষণা দেয়। ব্র্যান্ডটির নতুন নামের জন্য রেগুলেটরি কমিশনের অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে নতুন নাম কি হবে তা এখনও জানানো হয়নি।

প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান সঞ্জীব মেহতা বলেন, ‘আমার আমাদের ত্বকের যত্নের পোর্টিফোলিওতে নতুন নতুন বিষয় অন্তর্ভুক্ত করছি... সৌন্দর্যের আরও বৈচিত্র্যময় চিত্রায়ন হবে এখানে।’

বিজ্ঞাপন

শুধু ভারতেই নয় সমগ্র দক্ষিন এশিয়াতেই সামাজিক কারণে ফর্সা ত্বকের প্রতি চরম আসক্তি বিদ্যমান। সেই সুযোগেই বাজারে রঙ ফর্সাকারী ক্রিম ও অন্যান্য প্রসাধনের চাহিদা অত্যন্ত বেশি। দীর্ঘদিন ধরেই এধরনের পণ্যের বিরুদ্ধে বর্ণ বৈষম্যের অভিযোগ আনা হচ্ছে। বিএলএম এর প্রভাবে সম্প্রতি ভারতীয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হিন্দুস্তান ইউনিলিভারের বিরুদ্ধে নতুন করে সমালোচনা শুরু হয়।

পৃথক বক্তব্যে প্রতিষ্ঠানটির বিউটি ও পারসোনাল কেয়ার বিভাগের চেয়ারম্যান সানি জেইন বলে, ‘আমরা স্বীকার করি যে, ‘ফেয়ার’ (ফর্সা), ‘হোয়াইট’ (সাদা) ও ‘লাইট’ (হালকা) শব্দের ব্যবহার এমন এক একক আদর্শ সৌন্দর্যের পরামর্শ দেয় যা আমরা সঠিক বলে মনে করি না, এবং আমরা এটির সমাধান করতে চাই।’

বিজ্ঞাপন

ইউনিলিভার ছাড়াও ল’র‍্যেল ও প্রোক্টর অ্যান্ড গ্যাম্বলও রঙ ফর্সাকারী প্রসাধন বাজারজাত করে। ব্যাপক প্রতিবাদের মুখে ভারতীয় ল’র‍্যেলও রঙ ফর্সাকারী প্রসাধন বিষয়ে আলোচনা শুরু করেছে বলে জানাচ্ছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম। এদিকে জনসন অ্যান্ড জনসন চলতি মাসে কোনধরনের ত্বক ফর্সাকারী প্রসাধনী বিক্রি না করার ঘোষণা দিয়েছে।

সারাবাংলা/আরএফ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন