বিজ্ঞাপন

হালদার তীরে মৃত ডলফিন

December 5, 2019 | 8:35 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: দেশে কার্পজাতীয় মাছের একমাত্র প্রাকৃতিক প্রজননক্ষেত্র হালদা নদীতে একটি মৃত ডলফিন পাওয়া গেছে। এ নিয়ে গত দুই বছরে ২২টি মৃত ডলফিন পাওয়ার তথ্য দিয়েছে হালদা নদী গবেষকরা।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) ‍দুপুরে চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার মাদার্শা ইউনিয়নের আকবরিয়া এলাকায় নদীর তীরে পাথরের ব্লকের মধ্যে মৃত ডলফিনটি আটকে ছিল।

স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে হাটহাজারী উপজেলা প্রশাসন মৃত ডলফিনটি উদ্ধারের পর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হালদা রিভার রিসার্চ ল্যাবরেটরিতে হস্তান্তর করেছে।

ল্যাবরেটরির কো-অর্ডিনেটর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মনজুরুল কিবরীয়া সারাবাংলাকে জানান, মৃত ডলফিনটির ওজন প্রায় ৩৫ কেজি এবং লম্বা সাড়ে ৪ ফুট। এর মাথায় গুরুতর জখম আছে। ডলফিনটি সদ্যমৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞাপন

গবেষক মনজুরুল কিবরীয়ার ধারণা, সকালে ডলফিনটি মারা গেছে।

কী কারণে ডলফিনটির মৃত্যু হয়েছে তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি গবেষক মনজুরুল কিবরীয়া এবং হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী মো. রুহুল আমীন।

মনজুরুল কিবরীয়া সারাবাংলাকে বলেন, ‘স্থানীয় লোকজন বলছেন, নদীর পাড়ে পাথরের ব্লক বসানো হচ্ছে। সেই ব্লকের আঘাতে মৃত্যু হয়েছে। এই বক্তব্য সঠিক কি না তা যাচাইয়ের প্রয়োজন আছে।’

বিজ্ঞাপন

রুহুল আমীন সারাবাংলাকে বলেন, ‘হালদা নদীর পাড় সংরক্ষণ ও বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ চলছে। সেখানে পাথরের ব্লক বসানো হচ্ছে। আর এখন যেহেতু প্রজনন মৌসুম নয়, নদীতে ইঞ্জিনচালিত নৌকাও চলছে। কীভাবে ডলফিনটির মৃত্যু হয়েছে, সেটা আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। ল্যাবরেটরির প্রতিবেদনে হয়ত বিষয়টি উঠে আসবে।’

মনজুরুল কিবরীয়া সারাবাংলাকে জানিয়েছেন, ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর থেকে চলতি বছরের ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত হালদা নদীতে ২২টি মৃত ডলফিন পাওয়া গেছে। সবচেয়ে বেশি ১৯টি ডলফিনের মৃত্যু হয়েছে ২০১৮ সালে। ২০১৯ সালে ২টি মৃত ডলফিন পাওয়া গেছে।

সারাবাংলা/আরডি/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন