array(4) {
  [0]=>
  string(73) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2020/02/Untitled-1-26-30x23.jpg"
  [1]=>
  int(30)
  [2]=>
  int(23)
  [3]=>
  bool(true)
}
array(4) {
  [0]=>
  string(69) "https://sarabangla.net/wp-content/uploads/2020/02/BD-U-19-2-30x23.jpg"
  [1]=>
  int(30)
  [2]=>
  int(23)
  [3]=>
  bool(true)
}
আকবর ‘সরি’ বললেন, ভারত অধিনায়ক দোষ চাপালেন

বিজ্ঞাপন

আকবর ‘সরি’ বললেন, ভারত অধিনায়ক দোষ চাপালেন

February 10, 2020 | 4:43 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

ফাইনাল ম্যাচের শুরু থেকেই মাঠের এবং মাঠের বাইরে চলছিল বেশ উত্তেজনাপূর্ণ সময়। যা লক্ষ্য করা যায় বাংলাদেশের বোলিং ইনিংসের শুরু থেকেই। টাইগার পেসারদের তোপে ছিন্নভিন্ন ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপ। আর সেই সঙ্গে চলছে বাক যুদ্ধও। মাঠে টাইগার পেসারদের চোখ রাঙানি আর ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের অসহায় আত্মসমপর্ণ। ঠিক যেন মেনে নিতে পারেনি ভারতীয় বোলাররা। আর তার ফলাফলের দেখাও মিলল টাইগার ব্যাটসম্যানদের উইকেটে নামার পরেই। যা শেষ পর্যন্ত গড়ায় হাতাহাতির পর্যায়ে। তবে ম্যাচ শেষে তার জন্য বাংলাদেশের অধিনায়ক ক্ষমা চাইলেও ভারতের অধিনায়ক দোষ চাপিয়েছেন বাংলাদেশের ওপরেই।

বিজ্ঞাপন

                                       আরও পড়ুন: টাইগারদের ওপর আক্রমণাত্মক আচরণ ভারতের!

শুরু থেকেই শুরু হওয়া উত্তেজনা চলে ম্যাচ জুড়ে যার শেষটা গড়ায় বাংলাদেশের শিরোপা উদযাপনের সময়ে। জয়ের জন্য বাংলাদেশের তখন দরকার মাত্র এক রান। হাতে রয়েছে তিনটি উইকেট, বল বাকি ২৪টি। বিশ্বকাপ তখন দরজায় দাঁড়িয়ে কড়া নাড়ছে টাইগারদের। ডাগ আউটে জয় উদযাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন ক্ষুদে টাইগাররা। উইকেটে ব্যাট হাতে প্রস্তুত রাকিবুল। অপরপ্রান্তে রয়েছেন খুঁটি গেড়ে বসা টাইগার দলপতি আকবর আলী।

বিজ্ঞাপন

শেষ সময়ে বল হাতে এলেন ভারতীয় স্পিনার আনকোলেকার। তার ওভারের প্রথম বলটি ডিপ মিড উইকেটের দিকে উড়িয়ে দিয়ে কাঙ্ক্ষিত সেই রানটি সংগ্রহ করলেন রাকিবুল। আর সেই রানেই রচিত হলো নতুন ইতিহাস। তিন উইকেটের জয়ের সাথে সাথে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের স্বাদ পেল বাংলাদেশ। সেই সাথে পরাজয় মেনেই মাঠ ছাড়তে হলো সর্বোচ্চ চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারতকে।

রাকিবুলের রান নেবার সাথে সাথে ডাগ আউটে থাকা তাদের সতীর্থরা জয় উৎসবের জন্য মাঠে ছুটে আসে। বাঁধ ভাঙা উল্লাস করতে করতে প্রদক্ষিণ করতে থাকে মাঠের চারদিক।

বিজয়ী দল জয় উদযাপন করছে এই দৃশ্য টেলিভিশনের পর্দায় দেখছিলেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। কিন্তু হঠাৎ তাদের এই উল্লাস দেখানোর পরিবর্তে ক্যামেরা ঘুরিয়ে নেওয়া হলো গ্যালারিতে থাকা দর্শকদের দিকে। বিষয়টা বেশ খটকা দেয় সাধারণের মনে। কেননা ক্যামেরা ঘুরিয়ে নেবার আগের দৃশ্যটি ছিল বেশ গুরুতর।

টিভির ক্যামেরা ঘুরিয়ে নেবার পূর্বমুহূর্তে দেখা যায় ভারতীয় ক্রিকেটারদের অপেশাদার আচরণের দৃশ্য। বাংলাদেশের কাছে শিরোপা হাতছাড়া হওয়াতে ভারতীয় ক্রিকেটাররা বেশ ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এ সময় বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের লক্ষ্য করে তারা খুব বাজে অঙ্গভঙ্গি করছিলেন। এমনকি সে সময় বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা কেড়ে নিতেও দেখা যায় ভারতীয় এক ক্রিকেটারকে।

একইভাবে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রাও বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়ে। তবে ম্যাচ অফিসিয়ালদের হস্তক্ষেপে দ্রুতই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যায়। জানা গেছে, ভারতীয় ক্রিকেটারদের কাছ থেকেই এই আচরণের সূত্রপাত।

খেলার মাঠে এমন অনাকাঙ্খিত ঘটনা চোখ এড়ায়নি সেখানে উপস্থিত থাকা সাংবাদিকদেরও। আর তাই তো ম্যাচ শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে দুই দেশের দুই অধিনায়কের কাছেই এই বিষয়ে প্রশ্ন, 'কেন এমন ঘটনা ঘটেছে মাঠের মধ্যে?'

আর সেখানেই দুই দলের দুই অধিনায়কের মধ্যে ব্যবধানের দেখা মেলে। টাইগার অধিনায়ক এবং ফাইনালের ম্যান অব দ্য ম্যাচ আকবর আলী এমন ঘটনায় দু:খ প্রকাশ করলেও পরাজিত ভারতীয় অধিনায়ক প্রিয়াম গ্র্যাগ পুরো দায়টা চাপিয়ে দেয় বাংলাদেশের ওপর। যেখানে টিভি ক্যামেরায় সরাসরি দেখা যায় ভারতের ক্রিকেটাররাই বাংলাদেশের পতাকা টেনে নিয়ে যাচ্ছে।

আকবর সাংবাদিকদের বলেন, 'ফাইনাল ম্যাচে এমনটা হওয়ার কারণ হচ্ছে আমরা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলাম। তবে এটা আসলেই কাম্য নয়; ক্রিকেট ভদ্রলোকের খেলা আর তাই এটা আমাদের কাছ থেকে কোনোভাবেই কাম্য নয়। আমি আমার পুরো দলের পক্ষ থেকে দু:খ প্রকাশ করছি। আমি মনে করি যেকোনো জায়গায় এমনটা হওয়া উচিত নয়। প্রতিপক্ষকে সম্মান করা উচিত। খেলাটাকে সম্মান করা উচিত।'

টাইগার অধিনায়ক যেখানে দু:খ প্রকাশ করেছেন ঠিক সেখানেই ভারতীয় অধিনায়ক বাংলাদেশের ওপর দোষ চাপিয়ে বলেন, 'আমরা প্রথম দিকে ঠিক ছিলাম। আমরা জানি যে ম্যাচের মধ্যে একটু আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ে সবাই। কিন্তু বাংলাদেশের কাছ থেকে আমরা বাজে ব্যবহার পেয়েছি। আর তাই শেষ পর্যন্ত আমরা উত্তেজিত হয়ে এমন আচরণ করেছে। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা আমাদের সঙ্গে বাজে ভাষায় কথা বলেছিল।'

সারাবাংলা/এসএস/এনএ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন