বিজ্ঞাপন

সাকিবকে ক্ষমা প্রার্থনা প্রত্যাহারের আহ্বান

December 1, 2020 | 10:39 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পূজার অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার বিতর্কে ক্রিকেটার সাবিক আল হাসান যে ক্ষমা চেয়েছিলেন তা প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়েছেন বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। তিনি বলেছেন, ‘সাকিব সাহেবের কাছে আমার দাবি, উনি যে অন্যায়ভাবে মাফ চেয়েছেন, তার সেই মাফ বা ক্ষমা উইথড্রো (প্রত্যাহার) করতে হবে এবং আমাদের কাছে তার নতুন করে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশনের সামনের রাস্তায় অনুষ্ঠিত এক মানববন্ধনে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু ও সংবিধান অবমাননার অভিযোগে হেফাজতে ইসলামের আমির জুনাইদ বাবুনগরী এবং যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের গ্রেফতারসহ ৭ দফা দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। সামাজিক, সাংস্কৃতি ও পেশাজীবীদের ৬০টি সংগঠন এই মানববন্ধনে অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন

বিচারপতি মানিক বলেন, ‘সাকিব, তার কাছে আমার দাবি, উনি কয়েকজন ধর্ম ব্যবসায়ীর ভয়ে, ভীত হয়ে, তাদের কাছে অন্যায়ভাবে মাফ চাইলেন। অথচ তিনি এমন কিছু করেননি, যার জন্যে তার মাফ চাওয়া উচিৎ ছিল। এদেশের ৯০ ভাগ মানুষ আমরা পূজার অনুষ্ঠানে যাই। কিন্তু সাকিব সাহেব ভয় পেয়ে গেলেন। সাকিব সাহেবের কাছে আমার দাবি, উনি যে অন্যায়ভাবে মাফ চেয়েছেন, তার সেই মাফ বা ক্ষমা উইথড্রো করতে হবে এবং আমাদের কাছে তার নতুন করে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে।’

শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক আরও বলেন, ‘আজ ভাস্কর্যের কথা বলছ, এটা কোনো ধর্মের কারণে বলছ না, তোমাদের একমাত্র উদ্দেশ্য বাংলাদেশ থেকে বঙ্গবন্ধুর সিধিকে বিনষ্ট করা। সেটা তোমরা কখনো পারবে না। বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশের সংবিধান একই সূত্রে গাঁথা। বাংলাদেশ সরকারের কাছে দাবি জানাবো মামুনুল হক, বাবুনগরীসহ অন্যান্য ধর্ম ব্যবসায়ী, যারা আসলে মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত অপশক্তি, তাদের সবাইকে গ্রেফতার করে তাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা করা হোক। কারণ তারা বঙ্গবন্ধু এবং সংবিধানের বিরুদ্ধে কথা বলছে। তাদের গ্রেফতারের দাবি আজ গণদাবিতে পরিণত হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

ধোলাইপাড়ে বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য নির্মাণ কেউ থামাতে পারবে না এমন হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘পৃথিবীতে সব জাতির পিতার ভাস্কর্য রয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যও হবে। পদ্মা সেতুর ওপরে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য হবে, কেউ দমাতে পারবে না।‘

মানববন্ধনে সূচনা বক্তব্যে ৭ দফা দাবি তুলে ধরেন ‘রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশের’ আহ্বায়ক ও সাংবাদিক আবেদ খান। একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবিরের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, সংসদ সদস্য শাহজাহান খান, বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, সম্প্রীতি বাংলাদেশের আহ্বায়ক পীযূষ বন্দোপাধ্যায়, জাসদের একাংশের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতা কাজল দেবনাথ, চিকিৎসক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া ও অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসানসহ আরও অনেকে। মানবন্ধনে আরও অংশ নেন যুবলীগ সভাপতি শেখ ফজলে শামস, গবেষক মুনতাসীর মামুন, বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের সভাপতি সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন হাবীব, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্তসহ আরও অনেকে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইএইচটি/এমআই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন