শুক্রবার ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ১৩ বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ শাবান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

ইরানে ইসলামি বিপ্লবের ৪০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন

ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯ | ৭:৩৯ অপরাহ্ণ

।। আন্তর্জাতিক ডেস্ক ।।

ইরানে উদযাপিত হচ্ছে ইসলামি বিপ্লবের (ইসলামিক রেভুলিউশন) ৪০তম বর্ষপূর্তি। ১৯৭৯ সালে ঘটা এই বিদ্রোহের প্রতি নিজেদের আনুগত্য প্রকাশ করতে সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাস্তায় নেমে এসেছে হাজারো ইরানি। খবর বিবিসির।

ইসলামি বিপ্লবের (ইসলামিক রেভ্যুলিউশন) ৪০তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে তেহরানের আজাদি স্কয়ারে সোমবার বক্তব্য রেখেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি।

বিজ্ঞাপন

তিনি তার বক্তব্যে ইরানকে অর্থনৈতিকভাবে একঘরে করতে মার্কিন প্রচেষ্টা ব্যর্থ হবে বলে জানান। বলেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ইরানকে ভাঙতে পারবে না।

রুহানি বলেন, ইরানজুড়ে আজ মানুষের এই উপস্থিতি প্রমাণ করে যে, ইরানের শত্রুরা কখনোই তাদের লক্ষ্য অর্জন করতে পারবে না।

তিনি আরও জানান, বহিঃশক্তি থেকে ইরানকে রক্ষা করতে ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিতে অব্যাহত রাখা হবে। বলেন, আমরা আমাদের ক্ষেপণাস্ত্র ভাণ্ডার বাড়াতে কখনো অনুমতি চাইনি আর কখনো চাইবোও না।

উল্লেখ্য, প্রতি বছর ১১ ফেব্রুয়ারি উদযাপন করতে দেশব্যাপি আয়োজন করে ইরান। ১৯৭৯ সালে এই বিদ্রোহের মধ্য দিয়ে পতন ঘটে তৎকালীন শাহ মোহাম্মদ রেজা পাহলাভি সরকারের। তার জায়গায় সুপ্রিম নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনির অধীনে নিযুক্ত হন নতুন ইসলামি নেতা।

ইরানিদের কাছে ইসলামি বিদ্রোহের ঘটনা ‘দশ-দিন ভোর’ নামে পরিচিত। ১৯৭৯ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয় বিদ্রোহ। ওইদিনই নির্বাসন থেকে ইরানে ফেরত যান খোমেনি। একইসঙ্গে ওইদিন দেশটিতে ২ হাজার ৫০০ বছর ধরে চলা পার্সিয়ান সাম্রাজ্যের আনুষ্ঠানিক পতন ঘটে।

এদিকে, আজাদি স্কয়ারে রুহানির বক্তব্য শুনতে জড়ো হয়েছিল হাজার হাজার মানুষ। তাদের মধ্যে কেউ কেউ স্লোগান দিচ্ছিল- আমেরিকার মৃত্যু হোক, ইসরাইলের মৃত্যু হোক, সৌদি আরবের আল-সৌদ পরিবারের মৃত্যু হোক।

সোমবারের আয়োজন উপলক্ষে দেশজুড়ে কড়া নিরাপত্তা জারি করা হয়। গত বছর ইসলামি বিদ্রোহের ৩৯তম বর্ষপূর্তিতে এক সামরিক কুচকাওয়াজে বন্দুকধারীরা উন্মুক্ত গুলি চালালে অন্তত ২৯ জন নিহত হয়। আহত হয় আরও শতাধিক।

সারাবাংলা/ আরএ

ইরানে ইসলামি বিপ্লবের ৪০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন
বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন