বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ১২ বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ শাবান, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

৩ দিনের বেসিস সফটএক্সপো শুরু হচ্ছে আজ

মার্চ ১৯, ২০১৯ | ১২:২৪ পূর্বাহ্ণ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ‘টেকনোলজি ফর প্রোসপারিটি’— স্লোগানে ঢাকায় দেশের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের সবচেয়ে বড় প্রদর্শনী ‘বেসিস সফটএক্সপো ২০১৯’ শুরু হচ্ছে আজ মঙ্গলবার (১৯ মার্চ)। বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) আয়োজনে সফটএক্সপো’র ১৫তম এই আসর এ বছর বসছে রাজধানীর আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি)। এক্সপো চলবে ২১ মার্চ পর্যন্ত।

সোমবার (১৮ মার্চ) কারওয়ান বাজারের বেসিস কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এক্সপো আয়োজনের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হয়। এসময় জানানো হয়, সফটএক্সপোর পার্টনার হিসেবে থাকছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

সংবাদ সম্মেলনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, আইসিটি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর, জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ও বেসিস সফটএক্সপো ২০১৯-এর আহ্বায়ক ফারহানা এ রহমান এবং সহসভাপতি (প্রশাসন) শোয়েব আহমেদ মাসুদ, সহসভাপতি (অর্থ) মুশফিকুর রহমান ও পরিচালক দিদারুল আলম উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রগতি ডিজিটাল বাংলাদেশের মূল ভিত্তি। ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হচ্ছে স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি খাতের নিরলস অবদানের কারণেই। বেসিস সফটএক্সপো আয়োজনের মূল লক্ষ্য হচ্ছে স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা তুলে ধরা। পাশাপাশি এবার তথ্যপ্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের অংশগ্রহণ থাকছে।

বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, দেশের সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানগুলোর সম্প্রসারণে এই এক্সপোর আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রায় আড়াইশ প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে। দেশের সফটওয়্যারের নিজস্ব চাহিদা পূরণে সক্ষমতা প্রদর্শন ও আস্থা তৈরিই এ প্রদর্শনীর লক্ষ্য।

বেসিস সফটএক্সপো ২০১৯-এর আহ্বায়ক ফারহানা এ রহমান বলেন, এবারের আসরে আমরা সারাদেশ থেকেই প্রচুর সাড়া পেয়েছি। দেশ-বিদেশ থেকে বক্তারা আসবেন। নারী উদ্যেক্তাদের জন্য থাকছে উইমেন জোন। শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিটি স্টলেই থাকবেন সিভি জমা দেওয়ার সুবিধা। থাকছে বি-টু-বি ম্যাচমেকিং, জাপান ডে, করপোরেট আওয়ার। বিজনেস লিডারশিপ মিটে অংশ নেবেন পাঁচ শতাধিক করপোরেট হাই অফিশিয়াল। আমরা সবাইকে নিয়েই বড় পরিসরে সমগ্র আয়োজনটি করব।

আয়োজকরা জানান, তিন দিনের এই এক্সপোতে ২৫০টিরও বেশি দেশি-বিদেশি তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে। থাকবে ৩০টিরও বেশি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক সেমিনার। আইসিটি ক্যারিয়ার ক্যাম্প ও গেমিং ফেস্টের মতো আয়োজনও থাকছে এখানে।

আয়োজকরা জানান, এক্সপো এলাকাটি ১০টি জোনে ভাগ করা হয়েছে। নতুন সংযোজন হিসেবে থাকছে ইন্ডাস্ট্রি ৪.০ জোন ও এক্সপেরিয়েন্স জোন, যা বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সক্ষমতা তুলে ধরবে।

সারাবাংলা/ইএইচটি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন