বিজ্ঞাপন

রিফাত হত্যা: ০০৭ গ্রুপের সেই সাগর গ্রেফতার

June 30, 2019 | 1:16 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

বরগুনা: রিফাত হত্যার পরিকল্পনায় জড়িত থাকা মো. সাগর নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রিফাত হত্যার আগের রাতে নয়ন বন্ডের নেতৃত্বে পরিচালিত মেসেঞ্জার গ্রুপ ০০৭-এ যে পরিকল্পনা হয়, তাতেও অংশ নিয়েছিলেন তিনি। জানা গেছে, পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় চূড়ান্তভাবে মনোনীত হয়েছিলেন এই সাগর।

বিজ্ঞাপন

সাগরকে গ্রেফতারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি, মিডিয়া) মো. সোহেল রানা। তিনি জানান, সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সাগরকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন- বরগুনার ‘০০৭ গ্রুপে’র সাগর পুলিশে চাকরি পাচ্ছে!

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৬ জুন) সকালে রিফাত শরীফকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনের সড়কে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। রিফাতের পরিবারের অভিযোগ, নয়ন বন্ডের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এর আগের রাতেই ০০৭ নামে একটি মেসেঞ্জার গ্রুপে ওই হত্যার পরিকল্পনা হয়। ওই গ্রুপের কথোপকথনের স্ক্রিনশট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সেসব কথোপকথনেই দেখা যায়, সাগর নামে একজন রয়েছেন সেই গ্রুপে।

রিফাত হত্যা: ০০৭ গ্রুপের সেই সাগর গ্রেফতার

রিফাত হত্যার পরিকল্পনা নিয়ে ০০৭ মেসেঞ্জার গ্রুপের কথোপকথনে দেখা যায়, রিফাতকে হত্যার দিন সকাল ৮টা ৬ মিনিটে রিফাত হত্যা মামলার দুই নম্বর আসামি রিফাত ফরাজী (নয়ন বন্ডের ০০৭ গ্রুপের সেকেন্ড ইন কমান্ড হিসেবে পরিচিত) গ্রুপে লেখেন, ‘০০৭-এর সবাইরে কলেজে দেখতে চাই।’ এর উত্তরে ‘Mohammad’ নামে একজন জানতে চান, ‘কয়টায়?’ আর ফরাজীর ওই নির্দেশনায় সাগর উপস্থিত থাকার সম্মতি জানান, বিজয়সূচক ‘ভি’ (v) প্রতীকও দেন।

মো. সাগর  নিজেও ০০৭ গ্রুপে যুক্ত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। যদিও তিনি বলছেন, তাকে জোর করে এই গ্রুপে যোগ করা হয়েছে। তাছাড়া রিফাত হত্যার সময় তিনি বরগুনা কলেজ এলাকায় উপস্থিত ছিলেন না বলেও দাবি করেছেন।

সাগর বরগুনা সদর উপজেলার এম বালিয়াতলী ইউনিয়নের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আবদুল লতিফের ছেলে। বরগুনা পৌরসভার পশ্চিম আমতলা পাড় সড়কে তাদের বাড়ি। বরগুনায় পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নিয়ে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার ফল মিলিয়ে তৈরি মেধাতালিকায় ১৮তম হয়েছেন সাগর। পরীক্ষায় তার রোল ছিল ১০৮, পরীক্ষায় ৪০ নম্বর পেয়েছিলেন তিনি। আজ রোববার বরগুনা পুলিশ লাইনে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তবে তার আগেই গ্রেফতার হলেন তিনি।

গ্রেফতারের আগে সাগরের সঙ্গে মোবাইলে কথা বলে তিনি বলেন, দুই বছর আগে আমি বরগুনায় এসেছি। এর মধ্যে আমি দুই মাস বরগুনা থেকেছি। বাকি সময় ঢাকাতেই থেকেছি। বরগুনায় আমি আসলে কাউকে চিনতাম না। আমাকে বলছে, এখানে থাকতে হলে নয়ন বন্ডের সঙ্গে সম্পর্ক রেখেই চলতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমি এই এলাকায় নতুন এসেছি। রিফাত ও তার সহযোগীরা জোর করে আমাকে মেসেঞ্জার গ্রুপে ঢুকিয়েছে।

আরও পড়ুন-

প্রকাশ্যে হামলা, স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না স্ত্রী

 ‘০০৭’ গ্রুপের মিশন, রিফাত হত্যা পরিকল্পনা আগের রাতেই

সারাবাংলা/এসএইচ/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন