মঙ্গলবার ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং , ৯ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৪ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

আজ রাত রঙিন উল্কাবর্ষণের!

ডিসেম্বর ১৪, ২০১৭ | ৩:১৫ অপরাহ্ণ

এমএকে জিলানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

বিজ্ঞাপন

ঢাকা : আজ রাত রঙিন উল্কাবর্ষণের রাত। আজ বৃহস্পতিবার রাত ৯টা থেকে ৩টা পর্যন্ত সময়ে ঘণ্টায় প্রায় ১২০টি উল্কাবর্ষণ দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। শুধু জানতে হবে আকাশের কোন গতি পথের দিকে নজর রাখতে হবে। তার সঙ্গে প্রয়োজন হবে পরিষ্কার এবং কুয়াশামুক্ত আকাশ।

জ্যোতিবিদ্যা ও সৃষ্টিতত্ত্ব সূত্রে জানা গেছে, আজ বৃহস্পতিবার রাত ৯টা থেকে ৩টা পর্যন্ত সময়ে আকাশের মিথুন নক্ষত্রমণ্ডলে ঘটবে আলোকছটার লীলাখেলা। এই সময়ে ঘণ্টায় প্রায় ১২০টি উল্কাবর্ষণ হবে। মিথুন নক্ষত্রমণ্ডলে বিষ্ণুতারার পাশেই অবস্থান সোমতারার। মাঝরাতে আকাশে থাকে কালপুরুষ। কালপুরুষ থেকে থেকে কিছুটা উত্তর বা উত্তর-পূর্বে আরও একটি হলুদ রঙের তারা দেখতে পাওয়া যায়। যাকে বাংলায় বলা হয় ‘আর্দ্রা’ তারকা আর ইংরেজিতে ‘বেতেলগইউজ’। আর্দ্রা তারকার পূর্বদিক বরাবর একটু দূরে যে দুইটি উজ্জ্বল তারকা দেখা যায় সে দুইটি তারকাই হচ্ছে বিষ্ণুতারা এবং সোমতারা। আর এই তারকা-রাজদের পাশেই আজ ঘটবে মিথুন উল্কাবর্ষণ। আজ মিথুন উল্কাবর্ষণের কারণে চাঁদমামা ভোররাত ৩টা ৪৫ মিনিটের আগে উঁকি দিবে না।

বিজ্ঞাপন

আকাশে বেশিরভাগ উল্কাবর্ষণের কারণ হচ্ছে ধূমকেতু। তবে আজ রাতের উল্কাবর্ষণ কিন্তু ধূমকেতুর প্রভাবে ঘটবে না। ৩২০০ পাইথন নামের একটি গ্রহাণুর কারণে ঘটবে আজকের উল্কা-বৃষ্টি। যার ব্যাস হচ্ছে ৩ মাইল। দেড় বছর পরপর পাইথন গ্রহটি সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে করতে পৃথিবীর কক্ষপথে আসে। আর এমন সময়ে সূর্যের তাপের কারণে পাইথন থেকে কয়েক মিলিমিটার আকৃতির বালির কাঁকড়ের মতো অংশ খসে পরে এবং পৃথিবীর কক্ষপথে রয়ে যায়। আর অভিকর্ষণ সূত্রের ফলে তা পৃথিবীর দিকে পতিত হয়। পতিত হওয়ার সময় বায়ুমণ্ডলের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। আর এই সংঘর্ষে তা জ্বলে ওঠে। যাকে আমরা উল্কাবর্ষণ বলছি।

সাধারণত, ডিসেম্বরের ৭ থেকে ১৭ তারিখে উল্কাবর্ষণের ঘটনা ঘটলেও ১৩ বা ১৪ ডিসেম্বর মিথুন উল্কাবর্ষণ ঘটে থাকে। যা উল্কাবর্ষণের মধ্যে সর্বোচ্চ। মিথুন উল্কাবর্ষণের মধ্যে বিভিন্ন রং দেখা যায়। যার মধ্যে ৬৫ শতাংশ সাদা, ২৬ শতাংশ হলুদ এবং ৯ শতাংশ লাল ও সবুজ রঙের।

সারাবাংলা/জেআইএল/আইজেকে

 

Advertisement
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন