বিজ্ঞাপন

‘ছেলেকে হত্যা ছাড়া উপায় ছিল না, এখন আমি আমার ফাঁসি চাই’

May 16, 2022 | 3:29 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

যশোর: পিতার বিরুদ্ধে ছেলেকে ইলেকট্রিক শক ও নির্যাতন চালিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রোববার (১৫ মে) গভীর রাতে যশোর সদরের ফতেপুর ইউনিয়নের পূর্ব চাঁদপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

নিহত রুহুল আমিন (১৬) ওই এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে। পুলিশ অভিযুক্ত পিতা নুরুল ইসলামকে আটক করেছে। আটকের পরে পুলিশের কাছে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন অভিযুক্ত পিতা।

যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি তাজুল ইসলাম জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে নুরুল ইসলাম তার ছেলে রুহুল আমিনকে হত্যা করেছে বলে জানতে পেরেছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

তিনি জানান, ঘটনার দিন রুহুল নিজ ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। এ সময় বাবা নুরুল ইসলাম প্রথমে ছেলের বাম পায়ে ইলেকট্রিক শক দেন। এতে মৃত্যু না হওয়ায় পরে গলায় গামছা পেঁচিয়ে তাকে হত্যা করেন। পরে খবর পয়ে পুলিশ নুরুল ইসলামকে আটক করেছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অভিযুক্ত নুরুল ইসলাম পুলিশের কাছে বলেন, জমি বিক্রি করে ৪১ লাখ টাকা সংসারের পেছনে খরচ করেছি। এখন পরিশ্রম করতে পারি না। স্ত্রী ও ছেলে মিলে আমাকে অমানসিক নির্যাতন করতো। ছেলেকে হত্যা না করে কোনো উপায় ছিল না। এখন আমি আমার ফাঁসি চাই।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন