বুধবার ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৯ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

চলচ্চিত্রে শৃঙ্খলা ফেরাতে প্রযোজক সমিতির নতুন নীতিমালা

অক্টোবর ২২, ২০১৯ | ১:৪১ অপরাহ্ণ

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপন্ডেন্ট

এমন অভিযোগ প্রায়ই শোনা যায়; শৃঙ্খলার অভাবে বাংলা চলচ্চিত্র ক্রমেই পিছিয়ে পড়ছে। বিশেষ করে অভিনয়শিল্পীদের খামখেয়ালিপনার জন্য অনেক প্রযোজককে প্রয়োজনের অতিরিক্ত টাকা খরচ করতে হয়। ফলে প্রযোজক সঙ্কট দেখা দিয়েছে ইন্ডাস্ট্রিতে।

বিজ্ঞাপন

এবার চলচ্চিত্রের শৃঙ্খলা ফেরাতে নতুন নীতিমালা করেছে চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতি। গত ২৪ আগস্ট প্রযোজক নেতারা বৈঠক করেন। সেই বৈঠকে চলচ্চিত্রের প্রতিবন্ধকতা দূরীকরণ ও শৃঙ্খলা ফেরাতে নীতিমালা প্রণয়নের জন্য ১০ সদস্য বিশিষ্ট একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

নানা বিষয় পর্যালোচনা করে সেই আহ্বায়ক কমিটি ৯টি নীতিমালা প্রণয়ন করে। সোমবার (২১ অক্টোবর) এফডিসির জহির রায়হান ভিআইপি প্রজেকশন মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে নীতিমালগুলো জানানো হয়।

নীতিমালাগুলো হলো—সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত শুটিং টাইম নির্ধারণ, কোনো শিল্পী বা কুশলী যদি সময়মত না আসেন; তার জন্য শুটিং শুরু করা যদি না যায় তাহলে তার দায়–দায়িত্ব বা ক্ষতিপূরণ তাকেই বহন করতে হবে। এছাড়া কুশলী ও শিল্পীদের অবশ্যই প্রযোজকের সঙ্গে চুক্তিপত্র স্বাক্ষর করতে হবে। সেখানে প্রথম কিস্তিতে ২৫ ভাগ এবং পরবর্তীতে কাজের অগ্রগতির ভিত্তিতে ৭৫ ভাগ তিন কিস্তিতে পরিশোধ করার কথা উল্লেখ থাকবে।

এক লাখ টাকার উপরে যাদের সম্মানী তারা কোনো প্রকার কনভেন্স (যাতায়াত ভাতা) পাবেন না এবং আউটডোরে অবস্থানকালীন শুটিংয়ের সহকারী পরিচালক ও সহকারী চিত্রগ্রাহকরা কনভেন্স এর অর্ধেক হাত খরচ বাবদ পাবেন। আর ড্রেস বা পোশাক নির্মাণের জন্য কোনো শিল্পীকে টাকা প্রদান করা হবে না। গল্পের প্রয়োজন অনুযায়ী শিল্পীদের নিজের ড্রেস প্রোডাকশন থেকে তৈরি করে দেয়া হবে। এছাড়া ছবির প্রমোশনের জন্য প্রধান শিল্পীদের ছবি মুক্তির আগে অন্তত ৫ দিন শিডিউল দেওয়াসহ বেশকিছু বিষয় এই নীতিমালায় রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এসব নীতিমালা যথাযথভাবে অনুসরন করা হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণের জন্য একটি মনিটরিং কমিটিও করা হয়েছে। আগামী মাসের (নভেম্বর) ১ তারিখ থেকে এই নীতিমালা কার্যকর হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, সাধারণ সম্পাদক সামসুল আলাম, চিত্রগ্রাহক সংস্থার সভাপতি আবদুল লতিফ বাচ্চু, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, মহাসচিব বদিউল আলম খোকন, প্রযোজক পরিবেশক সমিতির ‘চলচ্চিত্র নির্মাণ সংক্রান্ত নীতিমালা প্রণয়ন কমিটির আহ্বায়ক কামাল মো. কিবরিয়া লিপু ও সদস্য আবু মুসা দেবু। এ ছাড়া প্রযোজক, পরিচালকসহ অন্য সংশ্লিষ্ট সংগঠনের অনেকেই এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরএসও/পিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন