বৃহস্পতিবার ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

সোমবার সারাদেশে বিএনপির প্রতিবাদ সমাবেশ

নভেম্বর ১৬, ২০১৯ | ৯:০৭ অপরাহ্ণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দ্রব্যের ক্রমবর্ধমান মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে সোমবার (১৮ নভেম্বর) সারাদেশে প্রতিবাদ সমাবেশ করবে বিএনপি। এছাড়া ২৮ নভেম্বর বিদ্যুৎতের দাম বৃদ্ধি নিয়ে গণশুনানিতে অংশও নেবে দলটি।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (১৬ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে একথা জানান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এ সময় তিনি বলেন, ‘বর্তমানে পেঁয়াজের দাম হুহু করে বাড়ছে। এই দাম বৃদ্ধির জন্য সিন্ডিকেট দায়ী এবং এদের পেছনে সরকারের মদদপুষ্টরা জড়িত। পেঁয়াজ ছাড়াও দেশে অন্যান্য পণ্যের দামও ব্যাপক হারে বেড়েছে। দ্রবমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে আগামী সোমবার ঢাকাসহ সারাদেশে প্রতিবাদ সমাবেশ হবে।’

পদ্মাসেতুর মেয়াদ দেড় বছর বাড়িয়ে প্রকল্পে অর্থ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত ‘মেগা প্রজেক্টে মেগা দুর্নীতি ছাড়া কিছুই নয়’ বলে মন্তব্য করে ফখরুল বলেন, ‘পুরো প্রকল্পের ব্যয় এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকা। মেগা প্রোজেক্টের সাথে মেগা দুর্নীতি এবং নতুন করে যোগ হয়েছে মেগা পাচার। মানি লন্ডারিংয়ের মাধ্যমে এসব টাকা পাচার করা হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি রেল দুর্ঘটনা নিয়ে তিনি বলেন, ‘সরকার রেল পরিচালনা ও সড়কে দুর্ঘটনা রোধে ব্যর্থ। সরকার নিজেই যেখানে লাইনচ্যুত হয়ে গেছে, সেখানে রেল কীভাবে লাইনে থাকে।’

রোহিঙ্গা ইস্যু প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘রোহিঙ্গা নিধন ও নির্যাতনের জন্য আন্তর্জাতিক পর্যায়ে মামলা হলেও বাংলাদেশ সরকার এখনও তাদের বিরুদ্ধে মামলা না করায় সরকারের অনিহা দেখছে বিএনপি।’ এ বিষয়ে তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাঁর প্রসঙ্গ টেনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ নূর হোসেনকে নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছে আমরা সেজন্য তাকে ধিক্কার জানাই এবং তার বিরুদ্ধে সংসদীয় নীতিমালায় ব্যবস্থা নিতে সংসদের প্রতি আহ্বান জানাই। তার এই পদে থেকে এমন বক্তব্য আশা করা যায় না ‘

বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে বিএনপি উদ্বিগ্ন উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দেশনেত্রী প্রায় পঙ্গু অবস্থায় চলে এসেছে বলে মেডিকেল বোর্ড বলছে। তার শারীরিক অবস্থা গোপন করে বিএসএমএমইউ পরিচালক গর্হিত কাজ করেছেন।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘রোববার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে আবেদন করা হচ্ছে। আদালত তার স্বাস্থ্যগত কারণে অন্তত বেগম জিয়াকে জামিন দেবেন। আদালতের কাছে আমরা সুবিচার আশা করি।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে আগামী ২৮ তারিখ যে গণশুনানি হবে সেখানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর নেতৃত্বে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল অংশ নেবে। সেখানে তারা এ বিষয়ে বিএনপির বক্তব্য তুলে ধরবেন।’

এর আগে বিকেল সাড়ে চারটায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের কার্যালয়ে বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, ড. মঈন খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, বেগম সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচ/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন