বিজ্ঞাপন

ভোট পেছাতে শাহবাগ থেকে ১৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম, সিইসির পদত্যাগ দাবি

January 14, 2020 | 6:41 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণের তারিখ পেছাতে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) ১৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা। আগামীকাল বুধবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুর ১২টার মধ্যে ভোটের তারিখ পরিবর্তন করা না হলে তারা ইসি অভিমুখে যাত্রা করবেন এবং ইসি ঘেরাও কর্মসূচি পালন করবেন। একইসঙ্গে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টার অভিযোগে ঢাবি শিক্ষার্থীরা প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদাসহ অন্য নির্বাচন কমিশনারদেরও পদত্যাগ দাবি করেছেন।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শাহবাগ চত্বর থেকে এ কর্মসূচি ঘোষণা দেন ঢাবি জগন্নাথ হল সংসদের সহসভাপতি (ভিপি) উৎপল বিশ্বাস। ঘোষণা দিয়ে শাহবাগের অবরোধ তুলে নেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা। এরপর শাহবাগ ঘিরে যানচলাচল শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন- ‘ধর্মীয় অধিকার ক্ষুণ্ন হয়েছে, আমরা ক্ষুব্ধ’

বিজ্ঞাপন

উৎপল বিশ্বাস বলেন, বুধবার দুপুর ১২টার মধ্যে নির্বাচনের তারিখ পেছানোর সিদ্ধান্ত নির্বাচন কমিশনকে নিতেই হবে। এই সময়ের মধ্যে আমাদের দাবি না মানলে দুপুর ১২টায় রাজু ভাস্কর্য থেকে ইসি অভিমুখে যাত্রা করা হবে এবং ইসি ঘেরাও কর্মসূচি পালন করা হবে।

উৎপল বিশ্বাস আরও বলেন, সরস্বতী পূজার মতো হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় গুরুত্বপূর্ণ একটি দিনে ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের অপচেষ্টা ছাড়া কিছুই নয়। এ কারণে আমরা সিইসিসহ সব কমিশনারের পদত্যাগ দাবি করছি।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- ‘পূজার দিন ভোট নয়’ দাবিতে অবরুদ্ধ শাহবাগ

এসময় উৎপল বিশ্বাসের সঙ্গে ঢাবির বিভিন্ন হল সংসদের ভিপি ও জিএস এবং ডাকসু নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

রমনা জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার আজিমুল হক সাংবাদিকদের বলেন, শিক্ষার্থীরা যে দাবি নিয়ে শাহবাগ মোড় অবরোধ করেছিলেন, তা পুলিশের আশ্বাসে শেষ হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে কমিশনকে বিষয়টি অবহিত করা হবে।

এডিসি আরও বলেন, শাহবাগ মোড়টি অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি স্থান। এখানে দুইটি বড় ও গুরুত্বপূর্ণ হাসপাতাল রয়েছে। তাই ভবিষ্যতে যেকোনো দাবি আদায়ে শাহবাগ মোড় বাদ দিয়ে কর্মসূচি দেওয়ার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ থাকবে আমাদের।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- রিট খারিজ, ৩০ জানুয়ারিই ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন

এর আগে, মঙ্গলবার বিকেলে শাহবাগ চত্বরে অবস্থান নিতে শুরু করেন ঢাবি’র বিভিন্ন হলের শিক্ষার্থীরা। একপর্যায়ে তারা মাঝসড়কে অবস্থান নিলে শাহবাগ ঘিরে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণের তারিখ ঘোষণার পর বিভিন্ন মহল থেকে তারিখ পরিবর্তনের দাবি জানানো হয়। বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে একাধিকবার ভোটের তারিখ পেছাতে চিঠি দেওয়া হয় নির্বাচন কমিশনে। অন্য একাধিক সংগঠনও নির্বাচন কমিশনকে ভোটের তারিখ পেছানোর আহ্বান জানিয়েছে। তবে তাকে কাজ হয়নি। নির্বাচন কমিশন নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় ছিল।

পরে সরস্বতী পূজার সঙ্গে ঢাকা সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের তারিখ ধর্মীয় দিক থেকে সাংঘর্ষিক উল্লেখ করে হাইকোর্টে রিট করেন আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছিল, আদালত নির্দেশ দিলেই কেবল তারা ভোটের তারিখ পেছাতে পারবেন। তবে মঙ্গলবার শুনানি নিয়ে রিটটি খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। ফলে ৩০ জানুয়ারিই ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের তারিখ বহাল রয়েছে।

আদালতের এ আদেশের পর রিটকারী আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ জানিয়েছেন, তিনি আপিল করবেন। শিক্ষার্থীরাও আদালতের এ আদেশ প্রত্যাখ্যান করেছেন বলে জানিয়েছেন। তারা ভোট পেছানোর দাবিতে অনড় রয়েছেন।

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন