বিজ্ঞাপন

ফিকা’র প্রতিবেদন বিভ্রান্তিমূলক দাবি বিসিবি’র

August 4, 2020 | 2:58 pm

ফেডারেশন অব ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন-ফিকার সবশেষ বার্ষিক প্রতিবেদনে প্রকাশ পেয়েছে বিশ্বজুড়ে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টগুলোতে খেলা এক-তৃতীয়াংশের বেশি ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক পেতে দেরি হয় কিংবা একেবারেই পান না। ফিকা'র প্রকাশিত ছয়টি এমন টুর্নামেন্টগুলোর মধ্যে নাম উঠে এসেছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ-বিপিএলেরও। আর এরই পরিপ্রেক্ষিতে সংবাদবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি দাবি করেছে ফিকা'র প্রকাশিত প্রতিবেদন বিভ্রান্তিমূলক এবং ভিত্তিহীন। একই সঙ্গে বিসিবি এও দাবি করেছে যে এটি একটি বিছিন্ন ঘটনা।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি'র মাধ্যমে বিসিবি ফিকা'র প্রকাশিত প্রতিবেদনের বিপরীতে নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করে জানিয়েছে, এটি একটি বিছিন্ন ঘটনা। বিসিবি'র পক্ষ থেকে জানানো হয়, 'বিসিবি লক্ষ্য করেছে যে এফআইসিএ'র সংবাদবিজ্ঞপ্তিতে ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে ক্রিকেটারদের অর্থ প্রদান সংক্রান্ত বিভ্রান্তিমূলক এবং ভুল তথ্য প্রকাশ করেছে। ‘মেনস গ্লোবাল এমপ্লয়মেন্ট রিপোর্ট ২০২০’ প্রকাশ করে ফিকা বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগকে এমন একটি লিগ হিসাবে তালিকাভুক্ত করেছে যেখানে দেরীতে অর্থ প্রদান বা অর্থ প্রদান না করার সমস্যা অব্যহত রয়েছে।'

তবে এ ব্যাপারটি একটি বিছিন্ন ঘটনা হিসেবে দাবি করেছে বিসিবি। 'এ বিষয়ে বিসিবি স্পষ্টভাবে বলতে চায় যে বিপিএল'র একমাত্র অমীমাংসিত আর্থিক লেনদেনের ঘটনা ঘটেছে চারজন ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে। এর মধ্যে তিনজন বিদেশী খেলোয়াড় এবং একজন কোচ রয়েছেন যারা বিপিএল'র ৬ষ্ঠ আসরে অংশ নিয়েছিলেন। এই ঘটনাটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা, কেননা বিপিএল একটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট যেখানে ১৭০'র অধিক দেশি এবং বিদেশী খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফ চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন।'-যোগ করা হয় সংবাদবিজ্ঞপ্তিতে।

বিজ্ঞাপন

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক সংক্রান্ত ব্যাপারটি প্রকাশ্যে এসেছে ফিকা'র জরিপে। সাম্প্রতিক সময়ে ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক নিয়ে ঝামেলার সৃষ্টি হয়েছে বিশ্বজুড়ে মোট ছয়টি টুর্নামেন্টে যার মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ-বিপিএল। আর ফিকার অভিযোগের তীরে বিদ্ধ ছয় টুর্নামেন্টের মধ্যে আইসিসি'র পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র প্রতিষ্ঠিত লিগ বিপিএল। বাকি পাঁচটি টুর্নামেন্ট হচ্ছে, গ্লোবাল টি-টোয়েন্টি কানাডা, আবু ধাবি টি-টেন, কাতার টি-টেন, ইউরো টি-টোয়েন্টি স্ল্যাম এবং মাস্টার্স চ্যাম্পিয়ন্স লিগ।

ফিকা'র তৈরি করা পুরুষ ক্রিকেটারদের ২০২০ সালের গ্লোবাল এমপ্লয়মেন্ট রিপোর্টে দেখা গেছে, ৩৪ শতাংশ ক্রিকেটার তাদের প্রাপ্য টাকা পেতে ভোগান্তিতে পড়েছেন। বিপিএলে ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক নিয়ে একসময় ছিল অভিযোগের পাহাড়। তবে গত কয়েক বছরে সেটি নেই বলেই বারবার দাবি করেছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। এই সময়টায় ক্রিকেটারদের কাছ থেকে অভিযোগও তেমন শোনা যায়নি।

বিজ্ঞাপন

যদিও পারিশ্রমিক প্রদানের জটিলতার কারণে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বন্ধ ছিল দুই বছর। বিপিএল'র দ্বিতীয় আসর শেষে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক দিতে না পারায় বন্ধ হয়ে যায় লিগটি। পরে নিলামপ্রথা তুলে দিয়ে প্লেয়ার বাই চয়েস পদ্ধতি প্রবর্তন করে বিসিবি।

খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকজনিত সমস্যার হাল বের করতে আইসিসি'কে অনুরোধ জানিয়েছে ফিকা। ফিকার প্রধান নির্বাহী টম মোফফাত বলেছেন, ‘ক্রিকেটারদের চুক্তিভঙ্গ ও পারিশ্রমিক না দেওয়ার বিষয়গুলো দ্রুত চিহ্নিত করতে হবে। আইসিসি'র অধীনে কাজ করা ব্যক্তিদের রক্ষা করা তাদেরই দায়িত্ব। তাই এ বিষয়টি নিয়ে আইসিসি'র যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন