বিজ্ঞাপন

আইপিএলের কারণেই ভারতের এমন দুর্দশা?

January 13, 2021 | 6:48 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

অস্ট্রেলিয়ায় দারুণ এক অর্জনের সামনে ভারত। আসন্ন ব্রিসবান টেস্ট জিততে পারলে অস্ট্রেলিয়া থেকে টেস্ট সিরিজ জিতে ফিরতে পারবে ভারত। ইতিহাসে এর আগে যা একবারই করতে পেরেছে ভারতীয়রা। ব্রিসবানে হার এড়াতে পারলে সিরিজ না হেরে ফিরতে পারবে সফরকারীরা। সেটাও কম অর্জন নয়। এতো বড় অর্জনের সামনে দাঁড়িয়ে চোট সমস্যায় জর্জরিত ভারত।

বিজ্ঞাপন

সিরিজ শুরুর আগে ছিটকে গেছেন ইশান্ত শর্মা। তারপর চোট সমস্যা নিয়ে একে একে ভারতের স্কোয়াড থেকে ছিটকে গেছেন অভিজ্ঞ পেসার মোহাম্মদ শামি, তারকা ব্যাটসম্যান লোকেশ রাহুল, অপর অভিজ্ঞ পেসার উমেশ যাদব, দুর্দান্ত পারফরর্মার রবীন্দ্র জাদেজা এবং বোলিং বিভাগের অন্যতম সেরা অস্ত্রো জাশপ্রীত বুমরাহ। সিডনি টেস্টে বীরত্বগাথা ইনিংস খেলা হানুমা বিহারিকে নিয়েও তৈরি হয়েছে শঙ্কা।

অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে সিরিজের সর্বশেষ টেস্টের একাদশ নির্বাচন করতেই হিমশিম খেতে হচ্ছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টকে। শুধু ভারত নয়, চোট দুর্দশা অস্ট্রেলিয়ারও। অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিংয়ের ৩০ শতাংশ ভাবা হয় ডেভিড ওয়ার্নারকে। চোটের কারণে সিরিজের প্রথম দুই টেস্টে খেলতে পারেননি অস্ট্রেলিয়ার গুরুত্বপূর্ণ এই ক্রিকেটার। অস্ট্রেলিয়ার প্রধান কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার এই দুর্দশার কারণ খোঁজার চেষ্টা করেছেন। কারণ হিসেবে ভারতের জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্ট আইপিএলের কথা উল্লেখ করেছেন ল্যাঙ্গার।

বিজ্ঞাপন

করোনাকালের আইপিএল শেষ হতেই শুরু হয়েছে চলতি অস্ট্রেলিয়া-ভারত সিরিজ। টানা সিডিউলে ব্যস্ত আইপিএল শেষে আরব আমিরাত থেকে সরাসরি অস্ট্রেলিয়া গেছেন ভারতীয় দল। তারপর থেকে টানা ক্রিকেট খেলে যাচ্ছেন ক্রিকেটাররা। অজি কোচের মতে, একের পর এক ক্রিকেটারকে চোটে ছিটকে যেতে হচ্ছে সেই কারণেই।

ল্যাঙ্গার মনে করছেন চোটের এই মিছিল আরও বাড়বে, 'আমাদের এখন দেখতে হবে অস্ট্রেলীয় গ্রীষ্মে আরও কতজন ক্রিকেটারকে চোট আক্রমণ করে। প্রথমে সাদা বলের সিরিজ ও পরে টেস্ট সিরিজে চোট আমাদের ভুগিয়ে যাচ্ছে। আমি ভাবতে বাধ্য হচ্ছি, এবারের আইপিএলের সময়সূচিটা কারও জন্যই ঠিক ছিল না, বিশেষ করে এমন একটা বড় সিরিজের ঠিক আগ দিয়ে।’

বিজ্ঞাপন

গুরুত্বপূর্ণ একটা সিরিজের আগ মুহূর্তে আইপিএলের সেই ব্যস্ত সূচি কিছুতেই মানতে পারছেন না ল্যাঙ্গার, 'আমি আইপিএল ভালোবাসি। আমি আইপিএলকে দেখি সেভাবেই, যেভাবে আমাদের সময় তরুণ ক্রিকেটারদের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য ইংলিশ কাউন্টি ক্রিকেটকে দেখা হতো। কাউন্টিতে একসময় কোনো ক্রিকেটার গেলে তাঁর দারুণ উন্নতি হতো। আমি মনে করি, আইপিএলও তেমনই। এটা দিয়ে সাদা বলের ক্রিকেটে তরুণ ক্রিকেটাররা অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করে। কিন্তু এবার এটির সময়সূচিটা ঠিক হয়নি। সেটা যে ঠিক হয়নি, তা বোঝা যাচ্ছে সিরিজে দুই দলের ক্রিকেটারদেরই চোটে পড়া দেখে।’

ব্রিসবেনে অস্ট্রেলিয়া-ভারত সিরিজের শেষ টেস্টটা মাঠে গড়াবে জানুয়ারির ১৫ তারিখে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন