বুধবার ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৯ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরি

বিজ্ঞাপন

প্রোটিয়াদের হোয়াইটওয়াশ করেছে ভারত

অক্টোবর ২২, ২০১৯ | ১:০১ অপরাহ্ণ

স্পোর্টস ডেস্ক

তৃতীয় এবং শেষ টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ইনিংস এবং ২০১ রানের ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক ভারত। এ জয়ে সফরকারী প্রোটিয়াদের তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজে ধবল ধোলাই করল কোহলিরা। নিজেদের মাঠে এই নিয়ে টানা ১১টি সিরিজ জিতেছে বিরাট কোহলির দল। ঘরের মাঠে শেষ ৩২ ম্যাচের মধ্যে মাত্র একটি টেস্ট হেরেছে তার দল। জয়ের সেই তালিকায় যুক্ত হলো আরও একটি ম্যাচ।

বিজ্ঞাপন

সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম দুটিতে জেতা ভারত আগেই সিরিজ নিশ্চিত করেছিল। তবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচ হওয়ায় শেষ ম্যাচটিও গুরুত্বপূর্ণ ছিল সমান ভাবেই। তৃতীয় দিন শেষে সিরিজের শেষ ম্যাচ জিততে ভারতের দরকার ছিল মাত্র দুটি উইকেট। চতুর্থ দিনের শুরুতেই একটি উইকেট তুলে নেয় আর আঘাত পেয়ে মাঠ ছেড়ে যাওয়া ডিন এলগার আর মাঠে না নামলে জয় নিশ্চিত হয় ভারত।

রোহিত শর্মার টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি, আজিঙ্কা রাহানের সেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে রানের পাহাড় গড়ে স্বাগতিক ভারত। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের এই ম্যাচের তৃতীয় দিন শেষেও ধুঁকছিল সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা। কোনোভাবে ম্যাচ বাঁচাতে হলে অলৌকিক কিছুই করতে হত প্রোটিয়াদের। ম্যাচের দুদিন বাকি থাকলেও প্রোটিয়াদের হাতে ছিল ২ উইকেট, আর সামনে ছিল ২০৩ রানের পাহাড়। তবে ইতিহাস গড়া আর হয়নি সফরকারীদের। চতুর্থ দিনে মাত্র ১ রান যোগ করতেই ৯ম উইকেট তুলে নেয় ভারত।

রাঁচি টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৯ উইকেটে ৪৯৭ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে টিম ইন্ডিয়া। প্রথম ইনিংসে ১৬২ রানে অলআউট হয় প্রোটিয়ারা। ফলোঅনে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে সফরকারীরা ৯ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৩৩ রান। চোট পেয়ে উঠে যাওয়া ডিন এলগার আর ব্যাট করতে না নামলে শেষ হয় প্রোটিয়াদের দ্বিতীয় ইনিংস।

প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ভারতের ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়াল (১০), চেতশ্বর পূজারা (০) আর দলপতি বিরাট কোহলি (১২) দ্রুত বিদায় নেন। এরপর মহাকাব্যিক এক ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকান রোহিত শর্মা। ২৫৫ বলে ২৮টি চার আর ৬টি ছক্কায় করেন ২১২ রান। আজিঙ্কা রাহানে ১৯২ বলে ১৭টি চার আর একটি ছক্কায় করেন ১১৫ রান।

রবীন্দ্র জাদেজা ৫১, রিদ্ধিমান সাহা ২৪, রবীচন্দ্রন অশ্বিন ১৪, উমেস যাদব ৩১, অভিষিক্ত শাহবাজ নাদিম ১* আর মোহাম্মদ শামি ১০* রান করেন। প্রোটিয়াদের হয়ে প্রথম টেস্ট খেলতে নামা স্পিনার জর্জ লিন্দে চারটি, কেগিসো রাবাদা তিনটি করে উইকেট পান।

নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে ০ রানেই বিদায় নেন ওপেনার ডিন এলগার। আর ব্যক্তিগত ৪ রানে বিদায় নেন আরেক ওপেনার কুইন্টন ডি কক। জুবায়ের হামজা ইনিংস সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন। দলপতি ডু প্লেসিস ১ রানে বিদায় নেন। তেমবা বাভুমা করেন ৩২ রান। অভিষেক টেস্টে জর্জ লিন্দে করেন ৩৭ রান। দুটি করে উইকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ শামি, অভিষিক্ত শাহবাজ নাদি এবং রবীন্দ্র জাদেজা। উমেস যাদব তুলে নেন তিনটি উইকেট।

ফলোঅনে ব্যাটিংয়ে নেমে ওপেনার ডিনন এলগার ১৬ রান করে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যান, এরপর ডি কক ৫, হামজা ০, ডু প্লেসিস ৪, বাভুমা ০, ক্লাসেন ৫, লিন্দে ২৭, ড্যান পিয়েড ২৩, রাবাদা ১২ রান করেন। ডি ব্রুইন ৩০ আর নরজে ৫ রানে অপরাজিত আছেন। ভারতের পেসার শামি তিনটি, উমেস যাদব এবং শাবাজ নাদিম দুটি, জাদেজা এবং অশ্বিন একটি করে উইকেট তুলে নেন। প্রথম ইনিংস ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানো রোহিত শর্মা হন ম্যাচ সেরা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন