বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশকে সেই ক্ষত আবারও মনে করালেন হার্দিক

June 4, 2020 | 8:55 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ভারতের বিপক্ষের সেই আউটটা বড্ডই পোড়ায়- কদিন আগেও কথাটা বলেছিলেন মুশফিকুর রহিম। শুধু মুশকিককে নয়, সেদিন পুরো বাংলাদেশকেই কাঁদিয়েছিল সেই আউটটা। বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে স্মরণীয় জয় পেতে ৩ বলে বাংলাদেশের লাগত ২ রান। ক্রিজে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। অবিশ্বাস্যভাবে ম্যাচটা ১ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

ভারতীয় অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়াকে ছক্কা হাঁকিয়ে খেলা শেষ করতে গিয়ে ওভারের চতুর্থ বলে ক্যাচ আউট হন মুশফিকুর রহিম। পরের বলে মাহমুদুল্লাহও ফেরেন ছক্কা হাঁকাতে গিয়েই। শেষ বলে ১ রানও নিতে পারেনি শোভাগত হোম ও মোস্তাফিজুর রহমান। ভুতুড়েভাবে ম্যাচটা ১ রানে জিতে যায় ভারত। অথচ এই ম্যাচ হারলে ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়তে পারত ভারতীয়রা। মুশফিকুর, মাহমুদুল্লাহর সেই পাগলামী নিয়ে বহু কথা হয়েছে। হার্দিক পান্ডিয়া আবারও স্মরণ করিয়ে দিলেন ক্ষতটা।

সম্প্রতি ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট 'ক্রিকবাজে' হার্শা ভোগলের মুখোমুখি হয়েছিলেন হার্দিক। আলাপচারিতায় উঠে আসে ভারতের অবিশ্বাস্য সেই জয়ের ঘটনা। হার্দিক বলেছেন, তিনি ব্যাটিংয়ে থাকল প্রথমে ১ রান নিয়ে স্কোর লেভেল করতেন। জয় নিশ্চিত করতে তারপর ছক্কা হাঁকাতে চাইতেন।

বিজ্ঞাপন

ভারতীয় অলরাউন্ডার বলেন, 'সত্যি বলতে, যা হয়েছে (ভারতের জয়) সেটি যে সম্ভব ছিল আমিও ভাবিনি। এমনকি ওই সময় যদি আমি ব্যাটিংয়ে থাকতাম, প্রথমে সিঙ্গেল নিয়ে জয়টা নিশ্চিত করতাম। তারপর আমার পছন্দের ছক্কা মেরে শেষ করতাম।'

জয়ের জন্য শেষ ওভারে বাংলাদেশের রান লাগত ১১টি। প্রথম বলে সিঙ্গেল নিয়ে মুশফিককে স্ট্রাইক দিয়েছিলেন মাহমুদুল্লাহ। পরের দুই বলে দুই চার হাঁকিয়ে জয়টা হাতের মুঠোয় নিয়ে আসেন মুশফিকই। তারপরই সব কিছু ওলট-পালট। ওভারের চতুর্থ বলে মুশফিককে বোলিং করার সময় কি ভেবেছিলেন হার্দিক পান্ডিয়া?

বিজ্ঞাপন

হার্দিক জানালেন, 'আমি ভাবছিলাম সিঙ্গেল নিতে গেলে কোন বলটি সবচেয়ে কঠিন হবে। মনে হলো, ব্যাক অফ দ্য লেংথ দিলে সেটা হিট করা বা সিঙ্গেল নেওয়া কঠিন হবে। রান বের করতে হলে এই বলে আপনাকে ভালো কিছু করতে হবে। কিন্তু সে বড় শট খেলে বসে, ফলে আউট হয়ে যায়।'

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন