বিজ্ঞাপন

ওজন কমাতে আপেল সাইডার ভিনেগার খাওয়ার সেরা সময়

June 29, 2020 | 10:12 am

লাইফস্টাইল ডেস্ক

ঢাকা: রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ ও ওজন কমাতে আপেল সাইডার ভিনেগার কার্যকর। স্বাস্থ্য সচেতন মানুষের ডায়েট তালিকায় আপেল সাইডার ভিনেগারের উপস্থিতি আজকাল নিয়মিত। প্রতিদিনের ডায়েট তালিকায় আপেল সাইডার ভিনেগার থাকলে ওজন থাকবে নিয়ন্ত্রণে। ওজন কমাতে দিনের ঠিক কখন-কতটুকু ভিনেগার খাওয়া চাই তা জানলে অধিক ফল পাওয়া সম্ভব।

বিজ্ঞাপন

আপেল থেকে গাঁজন প্রক্রিয়ায় আপেল সাইডার ভিনেগার তৈরি করা হয়। এ ভিনেগারে থাকে ৫-৬ শতাংশ অ্যাসিটিক এসিড, ফলে অতিরিক্ত গ্রহণে দাঁতের ক্ষয়ের ঝুঁকি থাকে। এ ভিনেগার মূলত নিম্ন মাত্রায় গ্রহণ করা বাঞ্ছনীয়।

কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, রাতে ঘুমানোর অন্তত আধা ঘণ্টা আগে পানির সঙ্গে মিশিয়ে আপেল সাইডার ভিনেগার পান করলে সকালে রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণে থাকে। তবে অন্যান্য উপকারের পাশাপাশি যদি আপনার মূল উদ্দেশ্য থাকে ওজন কমানো, তাহলে জানা দরকার দিনের কখন এ ভিনেগার খাওয়া অধিক উপকারী।

বিজ্ঞাপন

                                                আরও পড়ুন- কাঁচকলার কোফতা কারি

প্রচুর শর্করা জাতীয় খাবার যেমন- ভাত, আলু, পাস্তা ইত্যাদি খাওয়ার আগে আপেল সাইডার ভিনেগার গ্রহণ করলে রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। তবে মনে রাখা উচিত, ভিনেগার খেতে হবে অল্প পরিমাণে।

হেলথলাইন বলছে, প্রতিদিন মাত্র ১ থেকে ২ টেবিল চামচ বা ১৫ থেকে ৩০ মি.লি. আপেল সাইডার ভিনেগার খাওয়া উচিত। সবচেয়ে ভালো হয় এ পরিমাণ ভিনেগার প্রতিদিন ২ থেকে ৩ ডোজে ভাগ করে খেলে। প্রতিদিন আহারের পূর্বে এ ভিনেগার খাওয়াই উত্তম।

এর কারণ ব্যাখ্যা করেছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, ওজন কমাতে চাই দৈনিক ক্যালোরি গ্রহণের মাত্রা কমানো। আহারের পূর্বে আপেল সাইডার ভিনেগার খেলে ক্যালোরি গ্রহণ কমবে। আর এটাই ওজন কমাতে সাহায্য করবে।

অনেক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের মতে, প্রতিদিন সকালে ঠাণ্ডা পানির সঙ্গে আপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে পান করলে দিনের বিপাক প্রক্রিয়ার চমৎকার শুরু হয়। এটিও ওজন নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।

সুত্র: এক্সপ্রেসডটইউকে

ব্রণ ও ত্বকের দাগ দূর করতে আপেল সাইডার ভিনেগার

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন